ঢাকা, সোমবার, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ২৩ রবিউস সানি ১৪৪৩

বইমেলা

ইতিহাসকে বিভক্ত করার বিপক্ষে ছিলেন মমতাজুর রহমান

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৩৫ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৪, ২০১৪
ইতিহাসকে বিভক্ত করার বিপক্ষে ছিলেন মমতাজুর রহমান ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ঢাকা: ইতিহাসকে বিভক্ত করার বিপক্ষে ছিলেন মমতাজুর রহমান তরফদার। যেকারণে মধ্যযুগের ইতিহাস রচনার ক্ষেত্রে তাকে একজন প্রকৃত ধর্মনিরপেক্ষ পণ্ডিত হিসেবে চিহ্নিত করা যায়।

 

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৪ চতুর্থ দিনে গ্রন্থমেলার মূলমঞ্চে ‌আয়োজিত ‘মমতাজুর রহমান তরফদারের ইতিহাস চর্চায় একাল ভাবনা’ শীর্ষক আলোচনা সভায় বক্তারা এ মন্তব্য করেন।

বক্তারা বলেন, আমাদের ইতিহাসের এই ধর্মনিরপেক্ষ ব্যাখ্যাকার ইতিহাসের তত্ত্বদর্শনে মৌলিকত্বের ছাপ রেখেছেন। কোনো বিশেষ সম্প্রদায় অথবা গোষ্ঠীর প্রতি তার দুর্বলতা ছিল না, যে কারণে মধ্যযুগের ইতিহাস রচনার ক্ষেত্রে তাকে একজন প্রকৃত ধর্মনিরপেক্ষ পণ্ডিত হিসেবে চিহ্নিত করা যায়। এই ধরনের পাণ্ডিত্য পাকিস্তানের পটভূমিতে বিরল, বিশেষ করে যখন তার অনুসন্ধানের কাল ছিল মুসলিম শাসিত।  

আলোচনা সভায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন পারভীন হাসান। তিনি বলেন, মমতাজুর রহমান তরফদার বিশ্বাস করতেন ইতিহাস শুধু কিছু ঘটনা কিংবা সন-তারিখ নয়। সমকালীন সমাজ ব্যবস্থায় তিনি সন্তুষ্ট হতে পারেন নি, তাই বাঙালিকে তার সার্বিক ঐতিহাসিক পটভূমিতে দাঁড় করিয়ে নিজ জাতীয়তাবাদের উৎসের খোঁজ দিতে চেয়েছেন। দেশপ্রেম দিয়ে সমাজের অসুস্থতা বুঝতে চেষ্টা করেছেন এবং ইতিহাস চর্চার মাধ্যমে দেশবাসীকে তাদের অতীত সম্পর্কে অবগত করাতে চেয়েছেন। যেন অতীতের জ্ঞান তাদের বর্তমানকে আলোকিত করে এবং তারা স্বচ্ছ দৃষ্টিতে সমাজের অসঙ্গতিগুলো অবলোকন করতে পারেন।

অধ্যাপক অজয় রায়ের সভাপতিত্বে অন্যান্যদের মধ্যে অধ্যাপক সৈয়দ আনোয়ার হোসেন, সাইফুদ্দীন চৌধুরী, এ কে এম শাহনাওয়াজ এবং মোহাম্মদ সেলিম আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৩৫ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ০৪, ২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa