ঢাকা, সোমবার, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৯, ০৮ আগস্ট ২০২২, ০৯ মহররম ১৪৪৪

বইমেলা

বইমেলায় প্রযুক্তির ছোঁয়া

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮২৩ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৫, ২০১৫
বইমেলায় প্রযুক্তির ছোঁয়া ছবি: জি এম মুজিবুর /বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ঢাকা: মুদ্রিত বইয়ের মেলা হলেও অমর একুশে গ্রন্থমেলায় রয়েছে প্রযুক্তির ছোঁয়া। তথ্য প্রযুক্তির উৎকর্ষতায় বইমেলা দিন দিন হচ্ছে আরও সমৃদ্ধ।


কেনাকাটায় যুক্ত হয়েছে অনলাইন সুবিধা। স্টলগুলোতে ব্যবহার করা হচ্ছে কম্পিউটার ও ইলেকট্রিক ক্যাশ বক্স।

এছাড়া ব্যস্ততার জন্য যারা মেলায় আসতে পারছেন না, তারা বইমেলার সর্বশেষ আপডেট বাংলানিউজসহ একাধিক অনলাইন নিউজ পোর্টালের মাধ্যমে মুহূর্তেই নিতে পারছেন। শুধু কী তাই? স্যাটেলাইট চ্যানেলের যুগে দেশের বেশকিছু টিভি চ্যানেল মেলামাঠ থেকে প্রতিদিনকার সর্বশেষ খবরটুকু সরাসরি সম্প্রচার করছেন।

ডিজিটাল প্রকাশনা ও প্রযুক্তির বইয়ের সম্ভারে প্রতিদিনই ঋদ্ধ হচ্ছে মেলা।

ই-তথ্যকেন্দ্র
মেলায় আগতদের সুবিধার্থে বাংলা একাডেমির আমতলায় স্থাপন করা হয়েছে ই-তথ্যকেন্দ্র। এখানে রয়েছে দুটি কিয়স্ক। কিয়স্ক দু’টিতে সংযুক্ত করা হয়েছে দুটি স্পর্শ পর্দার মনিটর। কিবোর্ড ও টাচের মাধ্যমে বাংলা যে কোনো বর্ণ চেপে ওই বর্ণ দিয়ে নামের বই খুঁজে নিতে পারছেন আগতরা, যেখান থেকে আঙুলের পরশে জানা যায় মেলায় অবমুক্ত হওয়া বইয়ের তথ্য।

আর এ কাজে নবীনদের সহায়তার জন্য এখানে রয়েছেন দু’জন স্বেচ্ছাসেবী। প্রতিদিন হাজারের বেশি মানুষ ভিড় করছেন এই ই-তথ্যকেন্দ্রে। এখান থেকে অমর একুশে বইমেলায় অংশ নেওয়া স্টলে নতুন কী কী বই এসেছে, বইগুলোর লেখকের নাম, প্রকাশনীর নাম জানা যায় সহজেই। এই এক জায়গায় দাঁড়িয়েই ডিজিটাল মানচিত্রের মাধ্যমে নাম ও ক্রমিক অনুসারে প্রকাশনীর স্টলের অবস্থান জানা যায়। মুহূর্তেই প্রিয় লেখকের বই ও প্রকাশনী সম্পর্কে তথ্য জানতে পারছেন দর্শনার্থীরা।

এর বাইরেও বাংলা একাডেমির ওয়েবসাইট ব্রাউজ করতে পারছেন। ভিজিট করতে পারছেন তিন শতাধিক ই-বুক, ই-তথ্যকোষসহ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে ডিজিটাল লাইব্রেরি। এজন্য অ্যাকসেস টু ইনফরমেশনের সহায়তায় প্রতিদিন সন্ধ্যায় এখানে বইয়ের তালিকা আপলোড করা হচ্ছে।

অনলাইনে বইমেলা :
পরিসর বাড়ায় প্রতিবছরের মতো এবারের বইমেলায় ভিড় কিছুটা কম। কিন্তু বিকেল গড়াতেই নগরীতে যানজট এখন নিত্যদিনের ঘটনা। এজন্য মেলা প্রাঙ্গণে পৌঁছাতে ধকল রয়েছে আগের মতো। তাছাড়া রাজধানীর বাইরের অনেকেই রয়েছেন, যারা ঘরে বসেই জানতে চান বইমেলার খোঁজখবর।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.ডমের মাধ্যমে জেনে নিতে পারছেন বইমেলার খবরা-খবর। এছাড়া বইভিত্তিক অনলাইন পোর্টাল বইনিউজ ও লেখক নেটের ওয়েবসাইট ভিজিট করেই আগ্রহীরা যোগ দিতে পারছেন একুশের বইমেলায়।

ওয়াইফাই সুবিধা :
মেলায় রয়েছে ‘ওয়াইফাই’ ইন্টারনেট সেবা। মেলায় এসে কেউ ল্যাপটপ কিংবা স্মার্ট ফোনের মাধ্যমে এই ‘ওয়াইফাই’ ইন্টারনেট সেবা নিতে পারেন। এবার মেলার মূল স্পন্সর টেলিটক মেলায় এই ফ্রি ইন্টারনেট ব্যবহারের সুবিধা দিয়েছে। মেলায় এসে ওয়াইফাই ইন্টারনেট সেবা পেতে কোনো পাসওয়ার্ড লাগবে না। ‘ওয়াইফাই’- এর এই প্রসেসটি সফল করতে প্রফেশনালস সিস্টেম নামের আইটি সলিউশন কোম্পানি কাজ করেছে। এজন্য মেলার একাডেমি চত্বরে তথ্যকেন্দ্রের সামনে রয়েছে তাদের একটি স্টল। মেলায় না এসেও ঘরে বসে rokomari.com  এর মাধ্যমে বই কেনার সুযোগ রয়েছে পাঠকদের।

বাংলাদেশ সময়: ১৮২৫ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ০৫, ২০১৫

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa