ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯, ১১ আগস্ট ২০২২, ১২ মহররম ১৪৪৪

বইমেলা

কাটতি বেশি উপন্যাসের

আদিত্য আরাফাত, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৩৬ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০১৫
কাটতি বেশি উপন্যাসের ছবি : দিপু মালাকার / বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

গ্রন্থমেলা থেকে: অমর একুশের বইমেলায় বিক্রির শীর্ষে রয়েছে উপন্যাস। তবে বেশি প্রকাশিত হয়েছে কবিতার বই।

এরপরের অবস্থানে যথাক্রমে উপন্যাস ও গল্প।

মঙ্গলবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) পর্যন্ত মেলার ২৪দিনে কবিতার বই এসেছে ৭৩৭টি, উপন্যাস ৫৫৪টি, গল্পের বই এসেছে ৪৯৯টি। মোট বই এসেছে ৩ হাজার ১৩৫টি।

গত দুই দশকের মতো এবারও বিক্রিতে লেখকদের মধ্যে এগিয়ে প্রয়াত নন্দিত কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ। তার বিভিন্ন উপন্যাস এখনও বিক্রি হচ্ছে দেদারসে। সেই সঙ্গে তার পুরনো উপন্যাস ও বিভিন্ন সংকলন গ্রন্থগুলোও বিক্রি হচ্ছে মুড়ি মুড়কির মতো।

এবারের মেলায় অন্যপ্রকাশ, অনন্যা, ইত্যাদি, সময়, মাওলা ব্রাদার্স, তাম্রলিপি, কাকলী প্রকাশনীর স্টলে কিছুক্ষণ দাঁড়ালেই বোঝা যায়, পাঠকদের পছন্দের শীর্ষে রয়েছে উপন্যাস।

হুমায়ূন আহমেদের বইয়ের পরেই বিক্রির শীর্ষে আছে তারই ভাই মুহম্মদ জাফর ইকবাল এর বই। এর পরেই ইমদাদুল হক মিলন, সৈয়দ শামসুল হক, সেলিনা হোসেন, আনিসুল হক, সৈয়দ মনজুরুল ইসলামের নতুন ও পুরনো উপন্যাসগুলো। এছাড়া এবার তরুণদের উপন্যাসের কাটতিও আশানুরূপ।

মঙ্গলবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) বইমেলার চিত্র ছিলো প্রাণবন্ত। শেষ মুহূর্তে এসে মেলা জমে উঠেছে এমনটি বলা যায় সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ও বাংলা একাডেমি মেলার দুই প্রাঙ্গণের সার্বিক চিত্র পর্যবেক্ষণে।

সময় প্রকাশন থেকে প্রকাশিত মুহম্মদ জাফর ইকবালের ‘সেরিনা’ ও তাম্রলিপি থেকে প্রকাশিত ‘গ্রামের নাম কাঁকনডুবি’ বইটি আশানরূপ বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া হুমায়ূন আহমেদের পুরনো বইগুলোও বেশি বিক্রি হচ্ছে। তবে বাংলা একাডেমি প্রকাশিত অভিধান বিক্রির দিক থেকে সব লেখককে পেছনে ফেলেছে। শীর্ষস্থানীয় প্রকাশনা সংস্থা থেকে শুরু করে মাঝারি ও ক্ষুদ্র প্রকাশনা সংস্থার স্টলগুলোতেও বিকিকিনি ছিলো আশাব্যঞ্জক।

এদিন মেলায় এসেছিলেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। বাংলা একাডেমির স্টলে কিছুক্ষণ সময় কাটান এবং সমগ্র মেলা প্রাঙ্গণ পরিদর্শন করেন তিনি। এছাড়া মেলায় এসেছিলেন প্রয়াত হুমায়ূন আহমেদ পত্নী মেহের আফরোজ শাওন। এসময় তিনি অন্যপ্রকাশের স্টলে কিছু সময় কাটান।

২৪তম দিনে ৮৩ বই
অমর একুশে গ্রন্থমেলার ২৪তম দিনে ৮৩টি নতুন বই প্রকাশিত হয়েছে। এর মধ্যে গল্পের বই ১৬টি, উপন্যাস ১০টি, প্রবন্ধ ১টি, কাব্যগ্রন্থ ১৮টি, গবেষণা ২টি, ছড়ার বই ৬টি, শিশুসাহিত্য ৭টি, জীবনী ৪টি, রচনাবলি ১টি, মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক ১টি, নাটক ২টি, বিজ্ঞান ১টি, ইতিহাস ৩টি, অনুবাদ ১টি ও অন্যান্য ১০টি।

এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য বইগুলো হলো– শিকড় থেকে প্রকাশিত মঈনুল আহসান সাবেরের ‘পাথর সময়‘, দেশ পাবলিকেশন্স থেকে জাহাঙ্গীর ফিরোজের ‘সাগরের গর্জন থেকে নুন রক্তে আসিল’ উৎস প্রকাশন থেকে প্রকাশিত হয়েছে মেসবাহ কামালের ‘বাংলাদেশের আদিবাসী জীবন সংগ্রাম ও মানবাধিকার, বাংলা প্রকাশ থেকে প্রকাশিত হয়েছে বিজ্ঞানী জগদীশ চন্দ্র বসুর ‘কিশোর রচনা সমগ্র’ ইত্যাদি। এছাড়া একাডেমির নজরুল মঞ্চে ৫টি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করা হয়।

মূলমঞ্চের আয়োজন
বিকেলে গ্রন্থমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় বাংলা একাডেমি প্রকাশিত ৬৪ জেলাভিত্তিক বাংলাদেশের লোকজ সংস্কৃতি গ্রন্থমালা শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন অধ্যাপক মাহবুবুল হক। আলোচনায় অংশ নেন অধ্যাপক গোলাম কিবরিয়া ভূঁইয়া, ড. মুহম্মদ শহীদ উজ জামান, অধ্যাপক মির্জা তাসলিমা সুলতানা এবং অধ্যাপক মাহবুবা নাসরীন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. রণজিৎ কুমার বিশ্বাস।

সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে একক সঙ্গীত পরিবেশন করেন কণ্ঠশিল্পী সরদার মো. রহমাতুল্লা, বীনা মজুমদার, সমির বাউল, সাধনা মিত্র, মো. আনোয়ার হোসেন, এ এফ এম জহিরুল হক চৌধুরী, আসলাম মিঞা, সুচরিতা রায়, যাবীন তাসনিম শুভ্রা এবং রিদওয়ান আফরিন।

বুধবারের আয়োজন
বিকেলে গ্রন্থমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে ‘বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের উপন্যাস’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন অধ্যাপক শান্তনু কায়সার। আলোচনায় অংশ নেবেন বদিউর রহমান, পূরবী বসু ও জাকির তালুকদার। সভাপতিত্ব করবেন কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন।

বাংলাদেশ সময়: ২১৩৬ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০১৫

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa