ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯, ১১ আগস্ট ২০২২, ১২ মহররম ১৪৪৪

বইমেলা

উৎসবমুখর বইমেলা, পাঠকের বইকেনার প্রতিযোগিতা

ফিচার রিপোর্টার | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০১৪৪ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৯, ২০১৯
উৎসবমুখর বইমেলা, পাঠকের বইকেনার প্রতিযোগিতা শুক্রবার উৎসবমুখর বইমেলা | ছবি: শাকিল আহমেদ

অমর একুশে গ্রন্থমেলা থেকে: দুদিন আগে প্রকাশকরা যে প্রত্যাশা করেছিলেন তার চেয়ে বেশি প্রাপ্তি ঘটেছে মেলার অষ্টম দিনে। বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বাঁধভাঙা জোয়ারে দেখা গেছে বইমেলা প্রাঙ্গণে। বইয়ের উৎসব, বই কেনার উৎসব মেতে ওঠেন বইপ্রেমীরা।

শুক্রবার (৮ ফেব্রুয়ারি) বইপ্রেমীদের উপচেপড়া ঢেউয় ওঠে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে। শুধু ঘোরাঘুরি নয়, ছিলো বই কেনার প্রতিযোগিতাও।

এদিনের মেলা নিয়ে শীর্ষস্থানীয় প্রকাশনা সংস্থা ঐতিহ্যের ব্যবস্থাপক আমজাদ হোসেন কাজল বলেন, শুক্রবার মেলা অনেক বেশি জমে উঠবে এমনটা আশা আমাদের ছিলো, তবে যা আশা করেছিলাম তার চেয়ে জনসমাগম ও বিক্রি বেশি হয়েছে। বইপ্রেমীদের এ জোয়ার যদি অব্যাহত থাকে তবে এবারের মেলা বিগত বছরগুলোর চেয়ে অনেক বেশি সফলতা পাবে।

কথার সত্যতা মিলেছে মেলায় আগতদের হাতে হাতে ব্যাগভর্তি বই দেখে। বলা চলে একপ্রকার প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়েই তারা যেন বই কিনেছেন।

মেলা প্রাঙ্গণে কথা হয় রাজধানীর খিলগাঁও থেকে আগত সামান্তা দিয়ার সঙ্গে। এই বই পড়ুয়া কিনেছেন প্রায় ৩ হাজার টাকার বই। বাংলানিউজকে তিনি বলেন, ভার্সিটি আর পরিবারকে সময় দিয়ে নিজের জন্য সময় বের করাটা বেশ কঠিন। আমার অবসর সময়গুলো বই পড়েই কাটে। তাই আজ ছুটির দিনে একটু সময় করে বন্ধু এবং পরিবারের সঙ্গে এসেছি বইমেলায়। কিনেছি পছন্দ মতো কিছু বই। আগামীতেও আরো বেশ কিছু বই কেনার ইচ্ছা আছে।

শুক্রবার বাংলা একাডেমির জনসংযোগ উপবিভাগের তথ্যমতে মেলায় নতুন বই এসেছে ২৬৩টি। এর মধ্যে গল্প ৩৪, উপন্যাস ৩৩, প্রবন্ধ ১৯, কবিতা ৮৩, গবেষণা ৩, ছড়া ৭, শিশুসাহিত্য ১৩, জীবনী ১১, মুক্তযুদ্ধ বিষয়ক ৬, নাটক ১, বিজ্ঞান বিষয়ক ৫, ভ্রমণ বিষয়ক ৫, ইতিহাস বিষয়ক ৩, রাজনীতি ৩, স্বাস্থ্য বিষয়ক ২, রম্য ৪, সায়েন্স ফিকশন ২, ধর্মীয় ৩, কম্পিউটার ৩, অভিধান ১, অনুবাদ ১ এবং অন্যান্য ২১টি।

এদিনের উল্লেখযোগ্য বই হলো— জনতা প্রকাশনী এনেছে সৈয়দ শামসুল হকের শিশুতোষ গল্প ‘কলম ও নৌকার গল্প’, ভাষা প্রকাশ এনেছে যতীন সরকারের প্রবন্ধ ‘সংস্কৃতি ভাবনা’, কথাপ্রকাশ এনেছে ইমদাদুল হক মিলনের কিশোরগল্প ‘কলাপাতা ও লাল জবা ফুল’, সময় প্রকাশন এনেছে ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালের কিশোর সাহিত্য ‘এক ডজন একজনে’, কবি প্রকাশনী এনেছে আবুল হাসানের কবিতার বই ‘প্রেমের কবিতা সমগ্র’, পাঠক সমাবেশ এনেছে সৈয়দ আবুল মকসুদের ‘নির্বাচিত সহজিয়া কড়চা’, বিদ্যা প্রকাশ এনেছে মোহিত কামালের উপন্যাস ‘লুইপার কালসাপ’, চন্দ্রবতী একাডেমী এনেছে আনিসুজ্জামানের ‘স্মরণ ও বরণ’ ইত্যাদি।

বিকেল ৪টায় মেলার মূল মঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় ‘চিত্রশিল্পী পরিতোষ সেন: জন্মশতবর্ষ শ্রদ্ধাঞ্জলি’ শীর্ষক আলোচনা। এতে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন আবুল মনসুর।  চিত্রশিল্পী রফিকুন নবীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানের আলোচনায় অংশ নেন মতলুব আলী এবং সৈয়দ আবুল মকসুদ।  

সন্ধ্যায় কবিকণ্ঠে কবিতাপাঠ করেন কবি অঞ্জনা সাহা এবং রনজু রাইম। আবৃত্তি পরিবেশন করেন মীর বরকত। সঞ্জয় রায়ের পরিচালনায় সাংস্কৃতিক সংগঠন ‘গীতিসত্র’ এবং ফারহানা চৌধুরীর পরিচালনায় নৃত্য পরিবেশন করে নাচের দল বাংলাদেশ একাডেমি অব ফাইন আর্টস (বাফা)’ নৃত্যশিল্পীরা।

শনিবার (৯ ফেব্রুয়ারি) মেলা চলবে সকাল ১১টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত। সকাল ১১টা থেকে বেলা ১টা পর্যন্ত মেলায় শিশুপ্রহর ঘোষণা করা হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ২০৪০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ০৮, ২০১৯
এইচএমএস/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa