ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯, ১১ আগস্ট ২০২২, ১২ মহররম ১৪৪৪

বইমেলা

বসন্ত বাতাসে হলুদ-বাসন্তীতে রাঙলো বইমেলা

হোসাইন মোহাম্মদ সাগর, ফিচার রিপোর্টার | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২৪৮ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৯
বসন্ত বাতাসে হলুদ-বাসন্তীতে রাঙলো বইমেলা বসন্তের প্রথম দিনে বইমেলা পরিণত হয় হলুদ ঢেউয়ে/ছবি: বাদল

গ্রন্থমেলা প্রাঙ্গণ থেকে: কোকিলের সুর, সবুজ কচি পাতা আর ফুলের পাপড়িতে ভর করে যেন নগরে নেমেছে বসন্ত। ফাগুনের আগুন হাওয়ায় নগরী যেন মুগ্ধ। ঢাকা শহর আজ খোঁপায় গোঁজা ফুল আর হলুদরঙা শাড়ির তরুণীদের। উদাস করা বসন্ত ঢল নামিয়েছে হলুদের। বইমেলা প্রাঙ্গণও সে ঢলে মুখরিত বাসন্তী রঙে। 

বুধবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) পহেলা ফাল্গুনে অমর একুশে গ্রন্থমেলার দ্বার খোলা হয় বিকেল ৩টায়। শুরু থেকেই নগরীর বিভিন্ন প্রান্তের তরুণ-তরুণীসহ সব বয়সী মানুষ গ্রন্থমেলায় ভিড় জমাতে থাকেন বাসন্তী সাজে।

এসময় কেউ ঘুরেছেন একা একা, কেউ পরিবার বা বন্ধুদের সঙ্গে, আবার কেউবা প্রিয় মানুষটির আঙুলে আঙুল জড়িয়ে।

মেলা প্রাঙ্গণ ঘুরে দেখা যায়, এদিন প্রায় সবাই নিজেদের রাঙিয়েছে লাল, হলুদ অথবা বাসন্তী আমেজে। মেয়েদের খোঁপায় ফুলের মঞ্জুরি, মাথায় ফুলের টায়রা, হাতভর্তি রেশমি চুড়ি। তরুণরাও হলুদ পাঞ্জাবিতে নিজেদের মানিয়ে নিয়েছে বেশ। আর শিশুদের সঙ্গে প্রাপ্তবয়স্করাও সেজেছেন প্রকৃতির সঙ্গে তাল মিলিয়ে।

বাসন্তী সাজে তরুণীরা বইমেলায়রাজধানীর রামপুরা থেকে তাহমিনা রাহমান এসেছেন তার ছোট্ট মেয়েকে নিয়ে। নিজের সাজের সঙ্গে অনেকটা মিল রেখেই তিনি সাজিয়েছেন ছোট্ট নিশাতকে। কথা হলে বলেন, সবার সাজগোজ আর বাইরে আসা দেখে মেয়ে বায়না ধরেছে। তার শখ পূরণেই চলে এলাম বইমেলায়। একটু ঘোরাঘুরি করে সন্ধ্যার দিকে কিছু বই কিনে ঘরে ফিরবো।

শুধু দর্শনার্থী বা পাঠকই নন, আজ বসন্ত ছোঁয়া দিয়েছে বইমেলার প্রায় প্রতিটি স্টলে। বিকেলে প্রায় সব স্টলের বিক্রেতাদেরই দেখা গেছে ফাগুনের সাজ শরীরে নিয়ে বই বিকিকিনি করতে।

পরিবারের সবচেয়ে ছোট সদস্যকেও আনতে ভোলেননি মেলায়কথা হয় সাহিত্য বিলাস প্রকাশনীর বিক্রয়কর্মী সানজিদা আফরিনের সঙ্গে। মেলায় ঘুরে বেড়াতে না পারলেও হলুদ শাড়ি, রেশমি চুড়ি আর খোঁপায় ফুল গুঁজে বই সম্পর্কে বলছিলেন ক্রেতাদের। কথা হলে বলেন, পহেলা ফাল্গুন আজ। একটু তো সাজতেই হয়। সুযোগ পেলে মেলার মধ্যে একটু ঘুরে বেড়ানোরও ইচ্ছে আছে সন্ধ্যায়।

বুধবার গ্রন্থমেলায় পহেলা বসন্তে উৎসবের বন্যা বয়ে যাবে। সকাল ও বিকেলে বসন্ত উৎসবের আয়োজন ছিল চারুকলায়। তাই ভোরেই শাহবাগ, টিএসসি এলাকা জেগে যায়। জেগে থাকবে রাত অবধি, নানা বয়সের মানুষের আগমনে মুখরিত হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৭১০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৯
এইচএমএস/এএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa