ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ মাঘ ১৪২৮, ২৭ জানুয়ারি ২০২২, ২৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

বইমেলা

বইমেলায় জমে উঠেছে শিশুপ্রহর

ফিচার রিপোর্টার | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭০০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৮, ২০২০
বইমেলায় জমে উঠেছে শিশুপ্রহর

গ্রন্থমেলা প্রাঙ্গণ থেকে: প্রথম প্রহরেই জমে উঠেছে বইমেলার দ্বিতীয় শিশু প্রহর। প্রথম প্রহরেই বিভিন্ন বয়সী শিশুরা স্টল ঘুরে ঘুরে বইয়ের পাতা উল্টে নিজেদের পছন্দের বই খুঁজছে। স্টলের পাশে থাকা কয়েকটি খেলাধুলার স্পটেও তাদের মধ্যে বেশ উচ্ছ্বাস লক্ষ্য করা গেছে।

শনিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) অমর একুশে গ্রন্থমেলার শিশু প্রহরের দ্বিতীয় দিন। এদিন সকাল ১১টা থেকে শিশু-কিশোরদের ভিড় সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের প্রবেশ গেটে।

কেউবা বাবা-মায়ের হাত ধরে, কেউবা বন্ধুদের সঙ্গে আবার কেউবা শিক্ষকদের সঙ্গে এসেছে প্রাণের মেলায়।
বইপ্রেমীরা, ছবি: ডিএইচ বাদলমেলা ঘুরে দেখা গেছে, মেলার সোহরাওয়ার্দী উদ্যান অংশে ছোটদের মজার মজার সব বইয়ের স্টল এবং বিনোদন কেন্দ্র নিয়ে সাজানো হয়েছে শিশু চত্বর। শিশু চত্বরে প্রবেশ করলেই মনে হবে এ যেন কোনো শিশুরাজ্য। যেখানে শিশু-কিশোরদের রাজত্ব। এখানে রয়েছে শিশু-কিশোরদের সায়েন্স ফিকশন, ভূতের গল্প, কৌতুক এবং ছড়াসহ নানা ধরণের বই।

শিশু প্রহরে কথা হয় বই কিনতে আসা পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী তুবার সঙ্গে। গত বছরের মতো এবারও সে মায়ের সঙ্গে বই কিনতে মেলায় এসেছে। বিজ্ঞান এবং ছোটদের গল্পের বই পড়তে তার ভীষণ পছন্দ। আর চার বছর বয়সী শিশু জিনাত রায়হান জানায়, তার কার্টুন দেখতে ভালোলাগে। তাই সে কয়েকটি কার্টুনের বই কিনেছে।

মুন্সিগঞ্জ থেকে একমাত্র ছেলে রক্তিমকে নিয়ে মেলায় এসেছেন আদনান-আরিফা দম্পত্তি। জানতে চাইলে তারা বলেন, মেলার প্রথম দিন থেকেই বাচ্চার আবদার মেলায় আসবে। তাই ছুটির দিনে ওকে নিয়ে মেলায় আসা। মেলা থেকে বেশকিছু বই কিনেছেন তারা।
শিশু চত্বরে সিসিমপুরের প্রিয় চরিত্রগুলোর সঙ্গে সময় পার করছে শিশুরা, ছবি: ডিএইচ বাদলশিশু চত্বরে দেখা মিললো আজিমপুর শিশু বিকাশ কেন্দ্রের একঝাঁক শিক্ষার্থীর সঙ্গে। প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে তাদের মেলায় নিয়ে আসা হয়েছে। জানতে চাইলে শিক্ষার্থী লায়লা ও শিল্পী বলে, অনেক ভালো লাগছে। অনেকগুলো পছন্দের বইয়ের তালিকা নিয়ে এসেছি। মেলা ঘুরে দেখবো এবং এগুলো কিনবো।

শিশুপ্রহরে শিশু-কিশোরদের বাড়তি আনন্দ দিচ্ছে সিসিমপুর স্টল। যেখানে বাচ্চাদের জন্য আকর্ষণীয় সব মজার মজার বই সাজানো রয়েছে। একইসঙ্গে শিশু চত্বরে সিসিমপুরের প্রিয় চরিত্রগুলোর সঙ্গেও সময় পার করে আনন্দিত শিশুরা।

বাংলাদেশ সময়: ১১৫৫ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ০৮, ২০২০
এইচএমএস/ওএইচ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa