ঢাকা, শনিবার, ১ কার্তিক ১৪২৮, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

বইমেলা

মেলার তৃতীয় দিনেও শেষ হয়নি স্টল নির্মাণ

ফিচার রিপোর্টার | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৪৯ ঘণ্টা, মার্চ ২০, ২০২১
মেলার তৃতীয় দিনেও শেষ হয়নি স্টল নির্মাণ স্টলের কাজ চলছে। ছবি: শাকিল আহমেদ

বইমেলা থেকে: করোনা ভাইরাস মহামারির মধ্যেই শুরু হয়েছে বিলম্বিত অমর একুশে বইমেলা। তবে, আনুষ্ঠানিকভাবে বইমেলা শুরু হলেও এখনও শেষ হয়নি সবগুলো স্টল ও প্যাভিলিয়নের নির্মাণ।

শেষ হয়নি শৌচাগার ও নামাজের স্থানের নির্মাণও।

শনিবার (২০ মার্চ) সরেজমিন পরিদর্শনে দেখা যায়, এখনও চলছে বেশ কিছু স্টলের নির্মাণ কাজ। শোনা যাচ্ছে হাতুড়ি পেটার আওয়াজ। রং করা হচ্ছে অনেক স্টলে, আবার কোথাও লাগানো হচ্ছে স্টলের ছাদ বা নামফলক। জোর হাতে চলছে নির্মাণ কাজ শেষ করার চেষ্টা।

তবে, নির্দিষ্ট সময়ে কাজ শেষ না হলেও শিগগিরই সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করে পুরোদমে বই বিকিকিনির কাজ শুরু করতে পারবেন বলে আশা বইয়ের প্রকাশক ও স্টলকর্মীদের। এই বিষয়ে অন্য প্রকাশের প্রধান নির্বাহী মাজহারুল ইসলাম বলেন, এবার বাংলা একাডেমি থেকে স্টল/প্যাভেলিয়ন বরাদ্দ পেতে সময় লেগেছে বেশি, ফলে এদিকে সময় কম পাওয়া গেছে। এছাড়া প্রধানমন্ত্রী নিজে উপস্থিত থেকে মেলার উদ্বোধন করেন বলে নিরাপত্তা জনিত কারণে আগের রাতের মধ্যেই সব কাজ শেষ করতে হয়। কিন্তু এবার সেই বিষয়টি না থাকায় অনেকেই আস্তে ধীরে কাজ করছেন। করোনা থাকলেও অন্য যেকোনো বারের তুলনায় এবার মেলার প্রথম দুই দিনে লোক সমাগমটা ভালো; যদিও তা সন্ধ্যার পর থেকে। সকালে বা মেলার প্রথম প্রহর কাটে প্রায় জনশূন্য অবস্থায়। তার সঙ্গে মিল রেখেই যেন এখনও পুরোপুরি গুছিয়ে ওঠেনি মেলা। এ বিয়ষে পুথিনিলয় প্রকাশনীর ম্যানেজার আলমগীর অরণ্য বলেন, বইমেলা হবে কি হবে না সে বিষয়ে একটা দ্বিধা ছিল প্রথম থেকেই। সঙ্গে বাংলা একাডেমিও স্টল বরাদ্দ করেছে অনেক দেরিতে। এর ভেতর আবার সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী জানিয়েছিলেন করোনার প্রকোপ বাড়লে মেলা বন্ধও হতে পারে। সবকিছু মিলিয়ে আসলে লেখক-পাঠক-প্রকাশক উভয়েই দ্বিধান্বিত। মানুষ এখনো বুঝতেই পারছে না যে মেলা আদৌ হচ্ছে কিনা। এরপর ঝড়-বৃষ্টির কথা মাথায় রাখা লাগছে। আর এই সবকিছু মিলিয়ে কাজে অগ্রগতি কম।

এদিকে মেলার তৃতীয় দিনে এসেও এমন হাতুড়ি-পেরেকের শব্দে সন্তুষ্ট নয় আগত পাঠকেরা। তারা বলছেন যতটা আশা নিয়ে বইমেলা আসা, ততটুকু পাচ্ছেন না তারা।

এ বিষয়ে শিশির আহমেদ নামে এক পাঠক বলেন, মেলার আজ তৃতীয় দিন। দুটো ছুটির গেলো, অথচ কেউ সেভাবে এখনো প্রস্তুত না। বড় বড় প্রকাশনগুলোও এখনো গুছিয়ে উঠতে পারেনি। এটা এখন কাম্য নয়। এদিকে বাংলা একাডেমির পক্ষ থেকেও এখনো পুরোপুরি ঠিক হয়নি মেলার বাথরুম, নামাজ আদায় করার কক্ষ, আশ্রয়কেন্দ্রসহ বেশ কিছু অংশ। বেশিরভাগ স্টলেই চলছে কাজ শেষ করার জোর প্রস্তুতি। আর হাতে গোনা কয়েকটি স্টল-প্যাভেলিয়নে বই সাজাতে ব্যস্ত দেখা গেছে প্রকাশকদের।

এ বিষয়ে বাংলা একাডেমির পরিচালক ও মেলা পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব ড. জালাল আহমেদ বলেন, সময় মতন কাজ শেষ করার জন্য দ্রুত গতিতেই কাজ করা হচ্ছে। আশা করি, খুব শিগগিরই সবকিছুই ঠিক করা হবে যাবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৪৯ ঘণ্টা, মার্চ ২০, ২০২১
এইচএমএস/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa