ঢাকা, বুধবার, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ০৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

বাজেট

কালো টাকা বলে কোনো টাকা নেই

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২০২ ঘণ্টা, জুন ২২, ২০১৪
কালো টাকা বলে কোনো টাকা নেই

সংসদ থেকে: এদেশে কালো টাকা বলে কোনো টাকা নেই দাবি করে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশিদ বলেছেন, যে টাকাকে কালো টাকা বলা হয় তা বিদেশে পাচার করে সাদা করা হয়। তাই দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে যে ব্যক্তি যেভাবেই টাকা আয় করুক তাদের বিনিয়োগের সুযোগ দিতে হবে।



এব্যপারে সরকারের উচ্চ মহলের হস্তক্ষেপও কামনা করেন তিনি।
 
রোববার দশম জাতীয় সংসদের বাজেট অধিবেশনের শুরুতেই পয়েন্ট অব অর্ডারে দাঁড়িয়ে তিনি এ কথা বলেন।

এসময় সংসদে সভাপত্বি করেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।
 
কাজী ফিরোজ রশিদ বলেন, সরকারি ভুল নীতি ও আমলাতান্ত্রিক জটিলতার কারণে টাকা বিদেশে পাচার হয়ে যাচ্ছে। গত দুই দিন দেশের সমস্ত পত্রিকায় যে খবর বেরিয়েছে তা অত্যন্ত উদ্বেগজনক।

 
গণমাধ্যমে বলা হয়েছে দুর্নীতির টাকা সুইচ ব্যাংকে চলে যাচ্ছে। ধারাবাহিকভাবে টাকা পাচার হচ্ছে। মালোয়েশিয়ায় সেকেন্ড হোমের নামে প্রায় ৫ হাজার কোটি টাকা পাচার করা হয়েছে। কানাডা, যক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য হংকং, সিঙ্গাপুর পাচার হচ্ছে হাজার হাজার কোটি টাকা। এটা অত্যন্ত লজ্জার।
 
তিনি বলেন, এই দেশে অপার সম্ভাবনা রয়েছে। পর্যটন খাতে বিনিয়োগের সুযোগ সৃষ্টি হলে এই খাত থেকে বিপুল পরিমাণ রাজস্ব আয় হবে। আমরা যদি পুঁজি এখানে খাটাতে চাই আমাদের সেক্টরের অভাব হবে না।

কিন্তু অত্যন্ত কঠিন নিয়ম করা হয়েছে, যে কারণে ইনভেস্টররা বিনিয়োগ করতে পারছে না। তাই অর্থমন্ত্রীকে বলবো আপনি বিনিয়োগের খাতগুলো সুনির্দিষ্ট করে দিন। বিনিয়োগকারীদের ৫ বছর ট্যাক্স ফ্রি করে দিন, সমস্ত টাকা বিনিয়োগ করুক। বিনিয়োগের সুযোগ দিলে টাকা বিদেশে পাচার হবে না।
 
তিনি বলেন, দেশের এক কোটি মানুষ যদি সুন্দরবনে যায় আর যদি তারা গড়ে ১০ হাজার টাকা খরচ করে, তাহলে বছরে ১০ হাজার কোটি টাকা আয় হবে।
 
** দুই দিন বিরতির পর ফের শুরু বাজেট অধিবেশন

বাংলাদেশ সময়: ১২০২ ঘণ্টা, জুন ২২, ২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa