ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

জলবায়ু ও পরিবেশ

বৃক্ষরোপণে দেশ সেরা অনুভব ফাউন্ডেশন

নুর আলম, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৩৪০ ঘণ্টা, জুন ২৮, ২০১৫
বৃক্ষরোপণে দেশ সেরা অনুভব ফাউন্ডেশন ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

নীলফামারী: বৃক্ষরোপণে জাতীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করেছে নীলফামারীর বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা অনুভব ফাউন্ডেশন।

প্রতিষ্ঠান পর্যায়ে ৯ লাখ ৮০ হাজার টাকার চারা বিক্রি করা ছাড়াও বড় আকারে ফলদ বৃক্ষ নার্সারি স্থাপন করে সাফল্য দেখিয়েছে সংস্থাটি।



প্রতিষ্ঠানটির বিভিন্ন প্রকল্প এলাকা ঘুরে দেখা যায়, প্রায় ৬৫ একর জমিতে আম, কাঁঠাল, লিচু, আমড়া, আমলকি, বরই, বেল, কলা, সুপারি, পেয়ারা, নারিকেল, মালটা, লেবু, জাম, আঙুর, কমলা, জাম্বুরা, ডালিম, পেঁপে, প্রায় ১৪ একর জমিতে নিম, অর্জুন, আমলকি, হরতকি ও বয়রা এবং ১৩ একর জমিতে অপ্রচলিত ড্রাগন, প্যাসন ও চা বাগান।

পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ ভিনদেশি ড্রাগন ফলের বাগান করে চারা সহজলভ্য করেছে অনুভব ফাউন্ডেশন। ইতোমধ্যে সোয়া দুই লাখ টাকার ড্রাগন ফল বিক্রিও করেছে প্রতিষ্ঠানটি। এখন ড্রাগন ফল চাষে উদ্বুদ্ধ হচ্ছেন নীলফামারীর মানুষ।

এর স্বীকৃতিস্বরূপ ২০১৪ সালের দেশসেরা বৃক্ষরোপণকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করে এ অনুভব ফাউন্ডেশন।

সম্প্রতি কৃষি মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে ঢাকার কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের আ কা মু গিয়াস উদ্দিন মিলকী অডিটরিয়ামে ফলদ বৃক্ষরোপণ পক্ষ সমাপনী অনুষ্ঠানে অনুভব ফাউন্ডেশনের প্রধান নির্বাহী তামজিদুল আলম শাসনের হাতে পুরস্কার তুলে দেন প্রধান অতিথি কৃষি সচিব শ্যামল কান্তি ঘোষ।

কৃষি সচিব শ্যামল কান্তি ঘোষ জানান, প্রতিষ্ঠান পর্যায়ে এবারই প্রথম নীলফামারীর অনুভব ফাউন্ডেশন পুরস্কার পেলো। এর আগে কোনো প্রতিষ্ঠান সফলতা দেখাতে পারেনি।

তাই অনুভবের মতো আরও যেসব প্রতিষ্ঠান রয়েছে তাদেরও ফলদ বৃক্ষ রোপণ করার অহবান জানিয়ে প্রচলিত ফল চাষের পাশাপাশি অপ্রচলিত ফল চাষের গুরুত্বারোপ করেন তিনি।

অনুভব ফাউন্ডেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা তামজিদুল আলম শাসন জানান, অনুভব ফাউন্ডেশন জেলার প্রকল্প অফিসগুলোতে এক ইঞ্চি জায়গা ফাঁকা রাখেনি। প্রয়োজনে মরিচ গাছ রোপণ করে ভর্তি করা হয়েছে। আমরা চাই আমাদের দেখে অন্যরাও উদ্বুদ্ধ হোক। তাহলে পরিবেশ রক্ষার পাশাপাশি কর্মসংস্থান তৈরি ও অর্থনৈতিকভাবে পরিবর্তন আসবে মানুষের।

নীলফামারী কৃষি সম্প্রারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক গোলাম মোহাম্মদ ইদ্রিস বলেন, অনুভব ফাউন্ডেশন যে পুরস্কার অর্জন করেছে, তাতে নীলফামারী জেলার মাথা উঁচু হয়েছে। ভবিষ্যতে অনুভব ফাউন্ডেশনের মতো অন্য যে সব প্রতিষ্ঠান রয়েছে কৃষির সঙ্গে তারাও এগিয়ে আসবে।

বাংলাদেশ সময়: ০৩৩৯ ঘণ্টা, জুন ২৮, ২০১৫
এএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa