ঢাকা, সোমবার, ১৮ আশ্বিন ১৪২৯, ০৩ অক্টোবর ২০২২, ০৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

জলবায়ু ও পরিবেশ

গোল্ডফিশের টিউমার: অপারেশনে ব্যয় চারশ’ পাউন্ড

পরিবেশ-জীববৈচিত্র্য ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬২৯ ঘণ্টা, জুলাই ২৫, ২০১৫
গোল্ডফিশের টিউমার: অপারেশনে ব্যয় চারশ’ পাউন্ড

ঢাকা: পোষা প্রাণী সবারই প্রিয়। তা পশু-পাখি কিংবা মাছ।

পোষা প্রাণীটি অসুস্থ হয়ে পড়লে প্রভুর কষ্ট হবে এটাই স্বাভাবিক। অসুস্থ পোষা প্রাণীকে সারিয়ে তুলতে চেষ্টার কি কমতি থাকতে পারে!

ডেনবি শহর থেকে ২ পাউন্ড দিয়ে সাড়ে তিন ইঞ্চি (৯ সে.মি.) লম্বা একটি গোল্ডফিশ কেনেন ইমা মারফি। নাম রাখেন সেড্রিক।

হঠাৎ মারফি টের পান দুই বছর বয়সী সেড্রিকের মাথায় টিউমার হয়েছে। দ্রুত ব্যবস্থা না নিলে মাছটি মারা যাবে। অপারেশনের বিষয়ে চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলেন তিনি।

অ্যাকোয়া সার্জনের ব্যবহৃত উপকরণ সরবরাহ কর‍ার পাশাপাশি স্টাফ’র সদস্য না হওয়ায় তাকে বাড়তি গুণতে হয় ৪০০ পাউন্ড। যদিও এ টাকায় তিনি ২০০ বার গোল্ডাফিশ বদলে ফেলতে পারতেন।

গোল্ডফিশের অপারেশনের অভিজ্ঞতা যেমন মারফির প্রথম, একইভাবে চিকিৎসকরও।

মারফি বলেন, সেড্রিকের মাথার টিউমারটা দিন দিন বড় হচ্ছিল। সময় মতো অপারেশন না করানো হলে তার যন্ত্রণাদায়ক মৃত্যু হতো। মাথার পাশে টিউমার হওয়ায় ওর সাঁতার কাটতে কষ্ট হতো, এটা দেখেও আমার কষ্ট হতো।

সৌভাগ্যক্রমে আমাদের একটি বিশেষজ্ঞ বিভাগ রয়েছে এবং চিকিৎসকরা দক্ষ। এমনকি অবশ করতেও।

মাছটির নাম সেড্রিক রাখার কারণ তার চিকিৎসক বলেছিলেন, রোগীর নাম না জেনে অপারেশন করা যাবে না। তখন দ্রুতই এই নাম রাখা হয়। অপারেশন করেন ডারবি শহরে প্রাইড ভেটেনারি সেন্টারের চিকিৎসক টম হ্যাকনি।

তিনি বলেন, মাছের জন্য স্বতন্ত্র ফিশ কেয়ার ইউনিট না থাকার পরেও এমন অপারেশন খুবই কঠিন কাজ। পাশাপাশি মাত্র কায়েক ইঞ্চি দৈর্ঘ্যের মাছকে অপারেট করাও কষ্টসাধ্য বিষয়। আর পানির ভেতরে মাছ খুবই কৌশলী।

ছয় বছরের চিকিৎসক এমন অপারেশন আগে কখনও করেননি ডা. টম। ফলে সফলভাবে অপারেশন করতে তাকে বেশ পড়া-লেখা করতে হয়েছে বলে জানান তিনি।

অপারেশনের সময় ভেজা তোয়ালের ওপর রাখা হয় মাছটিকে এবং অক্সিজেন সরবরাহ ঠিক রাখতে তার ম‍ুখে একটি পাইপ দেওয়া হয়, যা থেকে পানি পাবে মাছটি। অচেতন হওয়ার পরে একটি স্ক্যান করা হয়, টিউমারটি কাটার পরে বেশি রক্তক্ষরণ হতে পারে কিনা তা নিশ্চিত হতে।

মরফি বলেন, পোষা প্রাণীর অপারেশন চোখে দেখা খুবই যন্ত্রণাদায়ক। সেড্রিকের ম‍ুখের ভেতরে পাইপ দিয়ে পানি যাচ্ছিল ঠিকই, কিন্তু আমরা নিশ্চিত হতে পারছিলাম না সে কেমন আছে। যে কারণে অপারেশন খুব দ্রুত করে ফেলতে হয়।

এটা দেখতে ভালো লাগছিল, দক্ষ চিকিৎসক দল কিভাবে সম্পূর্ণ নতুন একটি কাজ সেরে ফেললো। তবে চিন্তা হচ্ছিল কারণ আমার পোষা মাছ এবং বুদ্ধিটাও আমার। অপারেশন করার পরে বড় চ্যালেঞ্জ ছিল রক্ত বন্ধ করা। কারণ মাছের শরীরে সেলাই কাজ করে না। ডা. টম সেলাইয়ের পরিবর্তে বোনজেলা ক্রিম ব্যবহার করেন যা রক্ত বন্ধের পাশাপাশি পানির সংস্পর্শে আসার পরে সেড্রিককে সংক্রামণের হাত থেকে রক্ষা করবে।

সেড্রিক আরও দুইটি গোল্ডাফিশের সঙ্গে বসবাস করে। অপারেশনের পরে তাকে আলাদ‍া একটি পাত্রে রাখা হয়। সেখানে প্রায় এক ঘণ্টা সেড্রিক অচেতন ছিল। অচেতন অবস্থায় এক ঘণ্টা থাকলেও সেড্রিক পানির ওপরে ছিল মাত্র কয়েক মিনিট।

সম্পূর্ণ নতুন ধরনের কাজ করার পরে চিকিৎসক টম বলেন, একবার রাতে দায়িত্বে থাকার সময় একটি টিকটিকি’র চিকিৎসা করতে হয়েছিল। টিকটিকিটি নিজেই কামড়ে তার শরীরের ভেতরের অঙ্গ বের করে ফেলেছিল। তবে এবারের ঘণ্টাব্যাপী অপারেশন ছিল সম্পূর্ণ ব্যতিক্রমী অভিজ্ঞতা।

বাংলাদেশ সময়: ১৬২৯ ঘণ্টা, জুলাই ২৫, ২০১৫
এটি/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa