ঢাকা, রবিবার, ১৭ আশ্বিন ১৪২৯, ০২ অক্টোবর ২০২২, ০৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

জলবায়ু ও পরিবেশ

আগ্নেয়গিরিতে ড্রাগন ফিশের বসবাস

জীববৈচিত্র্য ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৪১ ঘণ্টা, আগস্ট ৩, ২০১৫
আগ্নেয়গিরিতে ড্রাগন ফিশের বসবাস

ঢাকা: সৌরজগতের একমাত্র বাসযোগ্য গ্রহ পৃথিবী। শুধু সৌরজগতই নয়, এখন পর্যন্ত পাওয়া তথ্য-উপাত্তের ভিত্তিতে বলা যায়, মহাবিশ্বের একমাত্র বাসযোগ্য গ্রহ এটি।

বেশির ভাগ বিজ্ঞানীর দাবি, পৃথিবীর সব জায়গায়ই রয়েছে জীবনের অস্তিত্ব। এ তত্ত্বে আগে সবাই একমত না হলেও এখন হতে বাধ্য হচ্ছেন। এর অন্যতম কারণ, সাগরতলে আগ্নেয়গিরির ভেতর মাছের সন্ধান পাওয়ার ঘটনা।

একটি জার্নালে প্রকাশিত প্রতিবেদনে অস্ট্রেলিয়ার ন্যাশনাল সায়েন্স এজেন্সির একদল গবেষক দাবি করেছেন, সাগরতলে লুকিয়ে থাকা আগ্নেয়গিরির উষ্ণ ও অম্লীয় জলে তারা এক ধরনের কালো মাছের সন্ধান পেয়েছেন। সেই সঙ্গে পেয়েছেন গলদা চিংড়ি ও অন্যান্য অনেক মাছের সন্ধানও।

ইউনিভার্সিটি অব নিউ সাউথ ওয়েলসের সামুদ্রিক জীববিজ্ঞানের অধ্যাপক ইয়াইন শুথার্সের নেতত্বে পরিচালিত এই অনুসন্ধানে গবেষকরা অস্ট্রেলীয় উপকূল চষে বেড়ান। তারা দেখতে পান, সেখানে সাগরতলে লুকিয়ে থাকা আগ্নেয়গিরির ভেতর এক ধরনের ছোট কালো মাছ ভেসে বেড়াচ্ছে।

কদাকার, মেরুদণ্ডহীন ও স্বচ্ছ ধাঁরালো দাঁতের এই মাছগুলোর পরিচয় জানতে বিজ্ঞানীরা এখনও গবেষণা করে যাচ্ছেন। তবে গবেষক দলের অন্তত দু’জন বিজ্ঞানী মনে করেন, মাছগুলো আসলে ড্রাগন ফিশ।

সাধারণত এই প্রজাতির মাছ ওই অঞ্চলের বাসিন্দা না। আগ্নেয়গিরির ভেতর এই মাছ ছাড়াও সন্ধান মিলেছে গলদা চিংড়িসহ আরো কয়েক ধরনের মাছ। এসবের বেশির ভাগই অস্ট্রেলীয় উপকূলে বাণিজ্যিকভাবে মাছ চাষের নার্সারি থেকে সমুদ্রে ভেসে যাওয়া লার্ভা। হারিয়ে যাওয়া লার্ভাগুলোই আগ্নেয়গিরির মাঝে উষ্ণ ও অম্লীয় জলে বেড়ে উঠছে।

অধ্যাপক ইয়াইন শুথার্স জানান, সিডনির উপকূলে গবেষক দল এই অনুসন্ধানের ফলাফলে অভিভূত। বছরের এই সময়টা মহাদেশের এই উপকূল গলদা চিংড়ির লার্ভা ও অন্যান্য প্রাণির জন্য অনুকূল থাকে না।

তিনি বলেন, আমরা ভেবেছিলাম, শুধুমাত্র সমুদ্রের মোহনায় মাছের লার্ভা বেড়ে উঠতে পারে। যদি একবার তা গভীর সাগরে ভেসে যায়, তাহলে সেখানেই শেষ। কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার পূর্ব উপকূলে বাণিজ্যিক নার্সারি থেকে হারিয়ে যাওয়া এই লার্ভাগুলো আগ্নেয়গিরির বৈরিতায় দিব্যি ভেসে বেড়াচ্ছে।

এর আগে, বিজ্ঞানীরা আগ্নেয়গিরির মধ্যে হাঙ্গরের বসবাসের খবর দিয়েছিলেন। এবার এলো লার্ভার বসবাসের খবরও।

বাংলাদেশ সময়: ২১৪২ ঘণ্টা, আগস্ট ০৩, ২০১৫
আরএইচ/এটি/এবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa