ঢাকা, শনিবার, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৮ মে ২০২২, ২৬ শাওয়াল ১৪৪৩

জলবায়ু ও পরিবেশ

চায়ের রাজধানীতে শীতের তীব্রতা নামবে ডিসেম্বরেই

বিশ্বজিৎ ভট্টাচার্য বাপন, ডিভিশনাল সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪১৭ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৬, ২০১৬
চায়ের রাজধানীতে শীতের তীব্রতা নামবে ডিসেম্বরেই ছবি: তারিক হাসান

চায়ের রাজধানী শ্রীমঙ্গলে ডিসেম্বরের শেষেই জেঁকে বসবে তীব্র শীত। হাঁড় কাঁপানো শীতে জুবুথুবু হবে এ জনপদের ছিন্নমূল দুস্থ মানুষেরা। দীর্ঘ রাতের হিমশীতল হাওয়ায় ভর করে কুয়াশা এসে আশ্রয় নেবে চা-গাছের পাতায় পাতায়।

শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজার): চায়ের রাজধানী শ্রীমঙ্গলে ডিসেম্বরের শেষেই জেঁকে বসবে তীব্র শীত। হাঁড় কাঁপানো শীতে জুবুথুবু হবে এ জনপদের ছিন্নমূল দুস্থ মানুষেরা।

দীর্ঘ রাতের হিমশীতল হাওয়ায় ভর করে কুয়াশা এসে আশ্রয় নেবে চা-গাছের পাতায় পাতায়।  

ডিসেম্বরের শুরুতে শ্রীমঙ্গলে রাতের বেলায় শীতের আমেজ কিছুটা অনুভূত হলেও দিনে রয়েছে তার উল্টোচিত্র। গরমের উত্তাপ চারদিকে।   

মঙ্গলবার (০৬ ডিসেম্বর) শ্রীমঙ্গলে তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১১ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এটিই আজ সারাদেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা।

সোমবার (০৫ ডিসেম্বর) দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল শ্রীমঙ্গলে ১২ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। মজার বিষয় হলো, পরপর ৩ বছর একই দিনের তাপমাত্রা হুবুহু একই পাওয়া গেছে! অর্থাৎ ২০১৪, ২০১৫ এবং ২০১৬ সালের ‘৫ ডিসেম্বর’ শ্রীমঙ্গলের তাপমাত্রা ছিল ১২ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।  

২০১৩ থেকে ২০১৫ সাল অর্থাৎ ৩ বছরের রেকর্ড থেকে এ ডিসেম্বরের শেষেই শীতের তীব্রতার তথ্য পাওয়া গেছে। রেকর্ড থেকে দেখা গেছে, বছরের শেষ মাস অর্থাৎ ‘ডিসেম্বর’ এর দ্বিতীয় এবং তৃতীয় সপ্তাহ থেকেই জেঁকে বসেছিল শীত।   

২০১৩ সালের ১৮ ডিসেম্বর এ মাসের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ৬ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ২০১৪ এবং ২০১৫ সালের ২৩ ডিসেম্বর এ মাসের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল যথাক্রমে ৮ দশমিক ৫ এবং ৬ দশমিক ০ ডিগ্রি সেলসিয়াস।  

আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র থেকে জানা যায়, ২০১৩ সালের ১ ডিসেম্বর থেকে ৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত রেকর্ডকৃত তাপমাত্রা ছিল যথাক্রমে ১৪ দশমিক ৫, ১৩ দশমিক ৮, ১৪ দশমিক ৬, ১৩ দশমিক ৭ এবং ১৪ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।  

২০১৪ সালের ১ ডিসেম্বর থেকে ৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত রেকর্ডকৃত তাপমাত্রা যথাক্রমে ১১ দশমিক ৯, ১৩ দশমিক ০, ১৩ দশমিক ৫, ১৩ দশমিক ৫ এবং ১২ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।  

২০১৫ সালের ১ ডিসেম্বর থেকে ৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত রেকর্ডকৃত তাপমাত্রা যথাক্রমে ১৫ দশমিক ৬, ১৬ দশমিক ২, ১৭ দশমিক ১, ১৭ দশমিক ৩ এবং ১২ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।  

চলতি বছর অর্থাৎ ২০১৬ সালে ১ ডিসেম্বর থেকে ৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত রেকর্ডকৃত তাপমাত্রা যথাক্রমে ১৫ দশমিক ২, ১৪ দশমিক ৫, ১৪ দশমিক ৪, ১৩ দশমিক ২ এবং ১২ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।  

শ্রীমঙ্গল আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রের সিনিয়র অবজারভার হারুনুর রশিদ বাংলানিউজকে বলেন, শ্রীমঙ্গল দেশের অন্যতম শীতার্ত অঞ্চল। পরপর ৩ বছরের রেকর্ড থেকে দেখা যাচ্ছে ডিসেম্বরের তৃতীয় সপ্তাহ থেকেই শ্রীমঙ্গলে নামে শীতের তীব্রতা। এবারও হয়তো এর ব্যতিক্রম হবে না। শিগগিরই নামবে হাড়কাঁপানো শীতের অনুভূতি।   

১৯৬৮ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি শ্রীমঙ্গলে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল ২.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস বলে জানান এ আবহাওয়াবিদ।  

চা শিল্পাঞ্চলের নৈসর্গিক শোভায় লালিত শ্রীমঙ্গলের শীত উপভোগ করতে শীতপ্রিয় পর্যটকরা এখনই স্থানীয় হোটেল-রিসোর্টগুলোতে অগ্রিম বুকিং দিয়ে রাখতে পারেন।  

বাংলাদেশ সময়: ২০১০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০৬, ২০১৬
বিবিবি/এসএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa