ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ মাঘ ১৪২৯, ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১০ রজব ১৪৪৪

জলবায়ু ও পরিবেশ

বেলকুচিতে স্পার বাঁধের ১২০ মিটার যমুনায় বিলীন

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪০৭ ঘণ্টা, অক্টোবর ২১, ২০২২
বেলকুচিতে স্পার বাঁধের ১২০ মিটার যমুনায় বিলীন

সিরাজগঞ্জ: যমুনার তীব্র ভাঙনে বিলীন হলো সিরাজগঞ্জের বেলকুচি উপজেলার বেতিল স্পার বাঁধ-১ এর ১২০ মিটার এলাকা।  

মঙ্গলবার (১৮ অক্টোবর) থেকে উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের আজুগড়া এলাকায় স্থাপিত স্পার বাঁধটিতে ধস দেখা দেয়।

শুক্রবার (২১ অক্টোবর) সকাল পর্যন্ত বাঁধটির মাটির অংশের ১২০ মিটার এলাকা নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যায়।

এ স্পারটিতে ধস দেখা দেওয়ায় মৎস্য ডিপ্লোমা ইনস্টিটিউট, পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর আজুগড়া সাবমেরিন কেবল সাইডের সার্স লাইনসহ সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও বাড়িঘর এবং ফসলি জমি হুমকির মুখে পড়েছে।  

পানি উন্নয়ন বোর্ড জানায়, তাঁত সমৃদ্ধ বেলকুচি-এনায়েতপুরকে যমুনার ভাঙন থেকে রক্ষায় সিরাজগঞ্জ-এনায়েতপুর আঞ্চলিক সড়কের পূর্বপ্রান্তে ২০০০-০১ অর্থ বছরে বেতিল স্পার বাঁধ-১ ও ২ নামে দুটি স্পার নির্মাণ করা হয়। বেতিল স্পার বাঁধ-১ এর মোট দৈর্ঘ্য ৯৫০ মিটার। এর মধ্যে ৮০০ মিটার আর্জেন্ট স্যাংক, যেটা মাটির তৈরি অংশ। বাকি ১৫০ মিটার  আরসিসি। গত কয়েকদিনে বাঁধটির মাটির অংশে ধস দেখা দিয়েছে। এতে প্রায় ১২০ মিটার এলাকা নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে।  

স্থানীয়রা জানান, দীর্ঘদিন আগে নির্মিত এ স্পারটির রক্ষণাবেক্ষণ যথাযথভাবে না করায় বারবারই ধস দেখা দেয়। তাছাড়া যমুনার বালু উত্তোলন এবং বালুবাহী ট্রাক বাঁধের ওপর দিয়ে চলাচল করার কারণে বাঁধটিতে ধস দেখা দেয়।  

সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী (বেলকুচি পওর বিভাগ) মো. মিল্টন হোসেন জানান, যমুনার পানি বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাঁধটিতে ধস দেখা দেয়। গত ১৪ অক্টোবর থেকে ধস দেখা দিয়েছে। ভাঙন রোধে তখন বালুর বস্তা ডাম্পিং করা হয়েছে। তারপরও যমুনার পানি বাড়ার কারণে বাঁধটিতে ভাঙন সৃষ্টি হয়। পানি কমে গেলে স্পারটি সংস্কার করা হবে।  

বাংলাদেশ সময়: ১৩৪৯ ঘণ্টা, অক্টোবর ২১, ২০২২
এসআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa