ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ আষাঢ় ১৪২৯, ০৭ জুলাই ২০২২, ০৭ জিলহজ ১৪৪৩

কর্পোরেট কর্নার

কোকা-কোলা ইয়াং ট্যালেন্ট ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রাম চালু

কর্পোরেট ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯১১ ঘণ্টা, মে ১২, ২০২২
কোকা-কোলা ইয়াং ট্যালেন্ট ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রাম চালু

ঢাকা: তরুণদের দক্ষতা বিকাশে ‘কোকা-কোলা অন ক্যাম্পাস’ ওয়েবিনারের মধ্য দিয়ে কোকা-কোলা’র ইয়াং ট্যালেন্ট ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রাম চালু করা হয়েছে।

সম্প্রতি কোকা-কোলা বটলিং ইনভেস্টমেন্টস গ্রুপ (বিআইজি) ১৫টি দেশে এর প্রথম ওয়েবিনার ‘কোকা-কোলা অন ক্যাম্পাস’ আয়োজন করে।

এই ওয়েবিনারে অংশগ্রহণের মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা বিআইজির শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের কাছ থেকে জানার সুযোগ লাভ করেন।

কোকা-কোলা কোম্পানির সাবসিডিয়ারি ইন্টারন্যাশনাল বেভারেজেস প্রাইভেট লিমিটেড বাংলাদেশের শিক্ষার্থীদের এই বৈশ্বিক সেশনে অংশগ্রহণের সুযোগ করে দেয়।

বৃহস্পতিবার (১২ মে) কোকা-কোলার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ১৫টি দেশের শিক্ষার্থীদের বৈশ্বিক ক্ষেত্রে সুযোগ তৈরি করে দিতে এবং কোকা-কোলার তিনটি ফ্ল্যাগশিপ প্রোগ্রাম সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা দেওয়ার লক্ষ্যে এই ভার্চ্যুয়াল সেশনটির আয়োজন করা হয়। এতে শিক্ষার্থীরা বৈশ্বিক ও স্থানীয় শীর্ষ কর্মকর্তাদের কাছ থেকে জানার ও শেখার সুযোগ পান।

তারা এসব মেধাবী তরুণদের কাছে তাদের প্রত্যাশা, সফল ক্যারিয়ার গড়ার টিপস এবং বাস্তব জীবনের অভিজ্ঞতা শেয়ার করেন। এছাড়াও শিক্ষার্থীরা কোকের কর্ম পরিবেশ, নিজস্ব বিকাশের সুযোগ এবং এর প্রাতিষ্ঠানিক সংস্কৃতি সম্পর্কেও ধারণা লাভ করেন।

তিনটি বিশেষ ইয়াং ট্যালেন্ট ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রাম চালুর মধ্য দিয়ে কোকা-কোলা সদ্য স্নাতক শেষ করা বা বিশ্ববিদ্যালয়ের শেষ বর্ষে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের নিজেদের দক্ষতা বিকাশের সুযোগ দিচ্ছে। ইন্টার্নশিপ করার অসাধারণ সুযোগ কোকা-কোলা স্টুডেন্ট ইন্টার্নশিপ প্রোগ্রাম (এসআইপি), শিক্ষার্থীদের ফুল-টাইম এবং পার্ট-টাইম উভয় উপায়ে কাজ করার সুযোগ দেয়।

কোকা-কোলা এক্সেল হচ্ছে ছয় মাস মেয়াদী গ্র্যাজুয়েট ট্রেনিং প্রোগ্রাম, যা গ্র্যাজুয়েট ট্রেইনিদের পারফরমেন্স এবং সুযোগের ওপর ভিত্তি করে প্রশিক্ষণ শেষে স্থায়ী পদে নিয়োগ লাভের সম্ভাবনা তৈরি করে।

আর কোকা-কোলা অ্যাস্পায়ার ফিউচার লিডারস প্রোগ্রাম হচ্ছে দুই বছর মেয়াদী ম্যানেজমেন্ট ট্রেইনি প্রোগ্রাম, যা তরুণ স্নাতকধারীদের ভবিষ্যতে নেতৃত্ব প্রদানের জন্য প্রস্তুত করার পাশাপাশি কৌশলগত এবং অপারেশনাল প্রকল্পগুলোতে কাজ করার জন্য তৈরির ওপর বিশেষ গুরুত্ব দেয়।

এসব প্রোগ্রাম মেধাবী তরুণদের অনুপ্রেরণা দিতে এবং তাদের জন্য আরও বাস্তবধর্মী জ্ঞান লাভের সুযোগ বৃদ্ধি করবে। ইতোমধ্যে মেধাবী শিক্ষার্থীদের জন্য অ্যাস্পায়ার ফিউচার লিডারস প্রোগ্রামের আবেদন গ্রহণ শুরু হয়েছে বলে বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

এই গ্লোবাল সেশনটিতে অংশ নেন কোকা-কোলা বটলিং ইনভেস্টমেন্ট গ্রুপের (বিআইজি) চিফ পিপল অফিসার ড্রিউ ফার্নান্দেজ, বিআইজির চিফ ট্যালেন্ট অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট অফিসার শেহজাদ লালওয়ানি, বিআইজি’র হেড অব এমপ্লয়ার ব্র্যান্ডিং অ্যান্ড ট্যালেন্ট অ্যাকুইজিশন জেইক বুস্তোস।

বাংলাদেশ সেশনে অতিথি বক্তা ছিলেন কোকা-কোলা বাংলাদেশ বেভারেজেস’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক তাপস কুমার মন্ডল, মানবসম্পদ পরিচালক মহসিনুল হক, পাবলিক অ্যাফেয়ার্স- কমিউনিকেশনস অ্যান্ড সাসটেইনেবিলিটির পরিচালক আনোয়ারুল আমিন, ট্যালেন্ট অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট হেড (সাউথ ওয়েস্ট এশিয়া) তাসলিমা হাসনাত জায়গিরদার, হেড অব জেনারেল ট্রেড মো. জাহিদুল হক এবং সেলস অ্যানালিস্ট মিমোসা কামাল।

বাংলাদেশ সময়: ১৯১২ ঘণ্টা, মে ১২, ২০২২
এনএসআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa