ঢাকা, বুধবার, ৪ কার্তিক ১৪২৮, ২০ অক্টোবর ২০২১, ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

ক্রিকেট

লাল-সবুজে স্টেডিয়াম চত্বর!

ঊর্মি মাহবুব, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭১২ ঘণ্টা, মার্চ ১৬, ২০১৪
লাল-সবুজে স্টেডিয়াম চত্বর! ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ঢাকা: স্বাধীনতার মাস মার্চ! বাংলার দামাল ছেলেরা আইসিসি ওয়ার্ল্ড টি-২০র প্রথম ম্যাচে খেলবে। আর তাই যেন মিরপুর স্টেডিয়ামের ভেতর ও বাইরে ছেয়ে গেছে লাল-সবুজের পতাকায়।

এ যেন এক অন্যরকম স্বাধীনতা!

দর্শকদের গায়ে লাল-সবুজের জার্সি। মাথায় লাল-সবুজের ব্যান্ড। অন্য প্রায় সব দর্শকই পরেছেন লাল-সবুজ রঙের পোশাক। স্টেডিয়ামে একের পর এক দল দর্শক ঢুকছেন। বেশির ভাগের হাতেই রয়েছে লাল-সবুজের পতাকা।

দূর থেকে চোখে পড়ে এক দল তরুণ স্বাধীনতার লাল-সবুজের বিশাল এক পতাকা নিয়ে এসেছেন।

পতাকার নিচ থেকে হাদি বলেন, আমরা উত্তরা থেকে আসছি। আজকের খেলার জন্য গত প্রায় চার দিন ধরে সবাই মিলে নিজেরাই পতাকাটি তৈরি করেছি।
 
শুধু হাদিরাই নয়। শিশুদেরও হাতে ছিল ছোট ছোট পতাকা। মাথায় লাল-সবুজের পতাকা। গালে লাল-সুবজে বাঘের থাবার ছাপ আর গায়ে জার্সি।

চাচার সঙ্গে খেলা দেখতে এসেছে নাহিয়ান। চাচা মিশু আহমেদ গ্রিন ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী।

মিশু বলেন, বুধবার ওর বাবার সঙ্গে খেলা দেখতে আসার কথা ছিল। কিন্তু, ভাইয়া অফিসে ছুটি না পাওয়ায় আমাকেই নাহিয়ানকে নিয়ে আসতে হলো। আমারও ইচ্ছে ছিল। কিন্তু আমি আগে টিকিট পাইনি। অনেকটা কপাল গুণেই বলা চলে আজকের খেলা দেখার সুযোগ পেলাম!
 
ভাতিজার মাথায় লাল-সবুজের চোঙা আকৃতির টুপি। মাঠ ও মাঠের বাইরে অনেকের গায়েই আবার জাতীয় পতাকা জড়ানো। মিরপুর স্টেডিয়াম ও বাইরে তাকালে মনে হবে, লাল-সবুজের চাদর।

বুধবার বাংলাদেশ-আফগানিস্তানের ম্যাচকে কেন্দ্র করেই এ সাজে সেজেছে মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়াম। বিকলে সাড়ে তিনটার খেলা দেখতে সকাল ১১টা থেকেই দর্শকরা মাঠের গেটে আসতে থাকেন। দুপুর একটার পর প্রবেশ দ্বার খুলে দেওয়া হয়। দর্শকরা খেলা উপভোগের জন্য ভেতরে প্রবেশ করছেন সারিবদ্ধভাবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৭১০ ঘণ্টা, মার্চ ১৬, ২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa