ঢাকা, সোমবার, ১৩ আষাঢ় ১৪২৯, ২৭ জুন ২০২২, ২৭ জিলকদ ১৪৪৩

ক্রিকেট

আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সাদা পোশাকের ২০১৫

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫৩৩ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩১, ২০১৫
আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সাদা পোশাকের ২০১৫

ঢাকা: টেস্ট ক্রিকেটের বাইশ গজে ২০১৫ সালে কত কিছুই না ঘটে গেছে। ব্যাটিংয়ে নেমে অসাধারণ সব ইনিংস খেলেছেন ব্যাটসম্যানরা।

বোলাররা দেখিয়েছেন দুর্দান্ত সব স্পেল। দলীয় পারফর্মে কোনো কোনো দেশ নিজেদের টপকে গেলেও কেউবা এ বছর মুখ থুবড়ে পড়েছে। রেকর্ড গড়েছে বেশ কিছু পার্টনারশিপ।

সাদা পোশাকের এমন সব কীর্তি (তালিকায় শীর্ষ তিনে থাকা) বাংলানিউজের পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো:

টেস্টে ২০১৫ সালের সর্বোচ্চ রান: ১৩ ম্যাচ খেলে টেস্টে এ বছরে সর্বোচ্চ রান করেছেন ২৪ ইনিংস খেলা অস্ট্রেলিয়ার দলপতি স্টিভেন স্মিথ। সবশেষ প্রকাশিত ৠাংকিংয়ে ব্যাটসম্যানদের তালিকায় এক নম্বরে থাকা এ ব্যাটসম্যান ২০১৫ সালে ১৪৭৪ রান করেছেন। ৭৩.৭ ব্যাটিং গড়ে তার রয়েছে ৬টি শতক আর ৫টি অর্ধশতক। এ বছর সর্বোচ্চ ২১৫ রানের একটি ইনিংসও খেলেছেন স্মিথ। দুই নম্বরে রয়েছেন ইংলিশ ব্যাটসম্যান জো রুট। ১৪ ম্যাচে ২৬টি ইনিংসে ১৩৮৫ রান করা রুট ১০টি অর্ধশতকের পাশাপাশি ৩টি শতকও হাঁকিয়েছেন। তিন নম্বরে রয়েছেন রুটের সতীর্থ অ্যালিস্টার কুক। রুটের সমান ম্যাচ আর ইনিংস খেলা এ ব্যাটসম্যান ১৩৬৪ রান করেছেন ৮টি অর্ধশতক আর ৩টি শতকের সাহায্যে।

টেস্টে ২০১৫ সালের সর্বোচ্চ শতক: ১৩ ম্যাচ খেলে এ বছর ৬টি শতক হাঁকিয়ে সর্বোচ্চ শতকের তালিকায় এক নম্বরে রয়েছেন অজি দলপতি স্মিথ। ৮ ম্যাচ খেলে একটি শতক কম নিয়ে বছর শেষ করেছেন দুইয়ে থাকা নিউজিল্যান্ডের কেন উইলিয়ামসন। অজিদের আরেক ব্যাটিং তারকা ডেভিড ওয়ার্নার (১৩ ম্যাচ) এ তালিকায় তিনে থাকতে শতক হাঁকিয়েছেন ৪টি।

টেস্টে ২০১৫ সালের ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ইনিংস: নিউজিল্যান্ডের রস টেইলর ২৯০ রানের অসাধারণ একটি ইনিংস খেলে এ বছর ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ইনিংসের তালিকায় এক নম্বরে। পার্থে এ বছরের নভেম্বরে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে এ ইনিংসটি খেলেন টেইলর। ২৬৯ রান করে অপরাজিত থাকা অস্ট্রেলিয়ার অ্যাডাম ভোজেস ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে এ ইনিংসটি খেলে এ তালিকায় দুইয়ে। আর তিন রয়েছেন ইংলিশ ব্যাটসম্যান অ্যালিস্টার কুক। আবুধাবিতে গত অক্টোবরে পাকিস্তানের বিপক্ষে ২৬৩ রান করেছিলেন তিনি।

এ তালিকায় শীর্ষ দশ নম্বরে টাইগারদের ওপেনার তামিম ইকবালের নামটি রয়েছে। গত এপ্রিলে খুলনায় সফরকারী পাকিস্তানের বিপক্ষে ২০৬ রান করেছিলেন তামিম।

টেস্টে ২০১৫ সালের সর্বোচ্চ উইকেট: ৯ ম্যাচে ১৭ ইনিংসে সর্বোচ্চ ৬২ উইকেট দখল করেছেন ভারতের স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিন। সবশেষ প্রকাশিত ৠাংকিংয়ের তালিকায় এক নম্বরে থাকা অশ্বিন ৭ বার ৫ উইকেট করে নিয়েছেন। দু’বার নিয়েছেন দশটি করে উইকেট। এ তালিকায় দুইয়ে রয়েছেন ইংলিশ পেসার স্টুয়ার্ট ব্রড। ১৪ ম্যাচ খেলা এ পেসার ২৭ ইনিংস খেলে নিয়েছেন ৫৬টি উইকেট। আর তিন নম্বরে রয়েছেন ১২ ম্যাচের ২৩ ইনিংস খেলে ৫১ উইকেট নেওয়া অজি বোলার জোস হ্যাজেলউড।

টেস্টে ২০১৫ সালের বেস্ট বোলিং ফিগার (ইনিংস): এ তালিকায় এক নম্বরে রয়েছেন ইংলিশ পেসার ব্রড। গত আগস্টে নটিংহ্যামে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৯.৩ ওভার বল করে ১৫ রান খরচায় তিনি তুলে নেন ৮ উইকেট। একই মাসে ২১ ওভার বল করে ৪৮ রানের বিনিময়ে ৭ উইকেট নেওয়া লঙ্কান স্পিনার রঙ্গনা হেরাথ রয়েছেন দুই নম্বরে। আর গত নভেম্বরে নাগপুর টেস্টে দ. আফ্রিকার বিপক্ষে ২৯.৫ ওভার বল করে ৬৬ রানের বিনিময়ে ৭ উইকেট নেওয়া ভারতের স্পিনার অশ্বিন রয়েছেন তিন নম্বরে।

টেস্টে ২০১৫ সালের বেস্ট বোলিং ফিগার (ম্যাচ): গত নভেম্বরে দ. আফ্রিকার বিপক্ষে ৪৬ ওভার হাত ঘুরিয়ে ৯৮ রান খরচায় মোট ১২ উইকেট নেওয়া অশ্বিন এ তালিকায় এক নম্বরে। ৫৫ ওভার বল করে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ১৪৭ রান খরচ করে ১০ উইকেট নেওয়া লঙ্কান স্পিনার হেরাথ দুই নম্বরে। আর তিন রয়েছেন গত আগস্টে গলেতে ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে ৪২ ওভার বল করে ১৬০ রান খরচ করে ১০ উইকেট পাওয়া অশ্বিন।

টেস্টে ২০১৫ সালে জুটি গড়ে সর্বোচ্চ রান: ৯ ম্যাচে একসঙ্গে ৮১৬ রান করে ২০১৫ সালের সেরা পার্টনারশিপের তালিকায় এক নম্বরে রয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার স্টিভেন স্মিথ এবং অ্যাডাম ভোজেস। এ তালিকায় দুইয়ে রয়েছেন নিউজিল্যান্ডের রস টেইলর এবং কেন উইলিয়ামসন জুটি (১০ ম্যাচে ৭৩৪ রান)। ১১ ম্যাচ খেলে তিন নম্বরে রয়েছেন জুটি বেধে ৭২০ রান করা অজিদের দুই তারকা ক্রিস রজার্স এবং ডেভিড ওয়ার্নার।

এ তালিকায় শীর্ষ দশে রয়েছেন তামিম-ইমরুল। ৮ ম্যাচে জুটি বেধে এ দুই টাইগার করেছেন ৫২৪ রান।

টেস্টে ২০১৫ সালে সর্বোচ্চ পার্টনারশিপ: এ তালিকায় এক নম্বরে রয়েছেন চতুর্থ উইকেট জুটিতে ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে হোবার্ট টেস্টে ৪৪৯ রান করা শন মার্শ এবং অ্যাডাম ভোজেস। ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে ওয়েলিংটনে গত জানুয়ারিতে ৩৬৫ রানের জুটি গড়া কিউই ব্যাটসম্যান ওয়াটলিং আর উইলিয়ামসন রয়েছেন দুইয়ে। আর তিন নম্বরে রয়েছেন টাইগারদের দুই ওপেনার তামিম-ইমরুল। পাকিস্তানের বিপক্ষে ৩১২ রানের জুটি গড়ে ক্রিকেট বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়েছিলেন তারা।

টেস্টে ২০১৫ সালে বেশি জয়: ১৩ ম্যাচের ৮টিতে জয় নিয়ে এ তালিকায় এক নম্বরে অস্ট্রেলিয়া। ৩ ম্যাচে হারের পাশাপাশি দুটিতে ড্র করেছে অজিরা। ১৪ ম্যাচের ৬টিতে জয়, ৬টিতে পরাজয় আর দুটিতে ড্র নিয়ে দুইয়ে ইংলিশরা। ৯ ম্যাচের ৫টিতে জয়, একটিতে পরাজয় আর তিনটিতে ড্র করা ভারত রয়েছে তিন নম্বরে।

নয় নম্বরে থাকা টাইগারদের টেস্টে ২০১৫ সালে কোনো জয় না থাকলেও ৫ ম্যাচের একটিতে হেরে যাওয়া বাংলাদেশ বাকি চারটি ম্যাচেই ড্র করে।

টেস্টে ২০১৫ সালে বেশি পরাজয়: ১০ ম্যাচের মাত্র একটিতে জয় পাওয়া ওয়েস্ট ইন্ডিজ সর্বোচ্চ ৮টি ম্যাচে হেরেছে ২০১৫ সালে। বাকি ম্যাচটি ড্র করে ক্যারিবীয়রা। ১১ ম্যাচের ৪টিতে জয় পেলেও ৭টি ম্যাচ হেরে এ তালিকায় দ্বিতীয় শ্রীলঙ্কা। আর ১৪ ম্যাচের ৬টি জয়, সমান ম্যাচে পরাজয় আর দুটি ম্যাচে ড্র করা ইংল্যান্ড রয়েছেন এ তালিকায় তিন নম্বরে।

বাংলাদেশ সময়: ১৫২৫ ঘণ্টা, ৩১ ডিসেম্বর ২০১৫
এমআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa