ঢাকা, বুধবার, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৭ শাবান ১৪৪৫

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

দুই মাস বন্ধ প্রাথমিক বিদ্যালয়

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩৪২ ঘণ্টা, মার্চ ২৪, ২০২৩
দুই মাস বন্ধ প্রাথমিক বিদ্যালয় ...

চট্টগ্রাম: সীতাকুণ্ডের দক্ষিণ সোনাইছড়ি ত্রিপুরাপাড়া প্রাক-প্রাথমিক বিদ্যালয় দুই মাস বন্ধ রয়েছে। এক বছর ধরে বেতন না পাওয়ায় থাকায় পদত্যাগ করেছেন বিদ্যালয়ের দুই শিক্ষক।

ফলে আদিবাসী শিশুরা শিক্ষা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

২০১৮ সালে একটি প্রকল্পের আওতায় ত্রিপুরাপাড়ায় তিন কক্ষের প্রাক-প্রাথমিক বিদ্যালয়টি চালু হয়।

বন্ধ থাকায় প্রতিদিন বিদ্যালয়ে এসে খেলাধুলা করেই শিশুরা ঘরে ফিরে যাচ্ছে।

পাড়ার বাসিন্দা কাঞ্চন ত্রিপুরা জানান, এখানে দুটি ত্রিপুরা পাড়ায় ৬৫ পরিবারের বসবাস। এলাকার মানুষ স্কুল পেয়ে খুশি হয়েছিল। ছেলে-মেয়েরা শিশু শ্রেণি পর্যন্ত পড়ার সুযোগ পেয়েছিল। কিন্তু এখন স্কুলটা বন্ধ হয়ে গেছে। শিক্ষকরা আসেন না।  

বিদ্যালয়ের দুই শিক্ষক প্রিয়াঙ্কা রানী নাথ ও তুলতুল আক্তার জানান, ২০১৮ সালে দুই বছরের তাদেরকে চুক্তিতে মাসিক ৫ হাজার টাকা বেতনে নিয়োগ দেওয়া হয়। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত পাঠদান করা হতো। ২০২২ সালের মার্চ মাস থেকে বেতন বন্ধ রয়েছে। গত ফেব্রুয়ারি মাসে তারা ইউএনও’র কাছে পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন।

সীতাকুণ্ড উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. নুরুচ্ছাফা বলেন, ত্রিপুরাপাড়ার বিদ্যালয়টি ৬০ জন শিক্ষার্থীর জন্য ৭২ সেট বই দেওয়া হয়েছে।  

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. শাহাদাত হোসেন বলেন, ত্রিপুরাপাড়ার শিশুরা যেন পড়ালেখা করতে পারে, সেজন্য সরকারি একটি প্রকল্পের আওতায় প্রাক-প্রাথমিক বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা করা হয়েছিল। করোনাকালে প্রকল্পের কার্যক্রম বন্ধ থাকায় শিক্ষকদের বেতন দেওয়া সম্ভব হয়নি। তারপরও ছয় মাসের বকেয়া বেতন দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু বেতন কম হওয়ায় তারা পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন। নতুন শিক্ষক নিয়োগ দিয়ে বিদ্যালয়টি চালু রাখা হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৩৩০ ঘণ্টা, মার্চ ২৪, ২০২৩ 
এসি/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।