ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ আশ্বিন ১৪২৯, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

বাবার মৃত্যুর কথা বিশ্বাস হচ্ছে না ছোট্ট রিনসির

মো. মহিউদ্দিন,স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১১৭ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৬, ২০১৩
বাবার মৃত্যুর কথা বিশ্বাস হচ্ছে না ছোট্ট রিনসির

চট্টগ্রাম: বাবার মৃত্যুর কথা বিশ্বাসই হচ্ছে না তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্রী রিনসির। তার বিশ্বাস বাবা ফিরবেন বায়না ধরা খেলনা নিয়ে।

এলাকাবাসী ছোট্ট রিনসিকে বাবার কথা জিজ্ঞেস করলে তার উত্তর না দিয়ে বাবার খবর জানতে চাইছে সে।

রিনসি আক্তার নয়ন। চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার মহুরিহাট বটতল এলাকায় অবরোধকারীদের ছোড়া  পেট্রল বোমায় নিহত আব্দুল আজিজের বড় মেয়ে। নাঙ্গলমোড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেনীর ছাত্রী সে। তার ছোট দুই ভাই-বোন রয়েছে।

সোমবার ভোরে বাবার মৃত্যু হলেও লাশ পৌঁছেনি এখনো। কিন্তু শুরু হয়েছে দাফনের কাযক্রম। সহমর্মিতা জানাতে ছুটে এসেছেন গ্রামবাসী। তবে কি জন্য এতো মানুষের আগমন তা উপলব্ধি করতে পারছে না আজিজের ছোট্ট তিন শিশু।  

ট্যাক্সি চালক আবদুল আজিজ চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার নাঙ্গলমোড়া ইউনিয়নের মুকিম চৌধুরী বাড়ীর মৃত জরিপ আলী চৌধুরীর পুত্র। চার ভাইয়ের মধ্যে তৃতীয় তিনি।

১৮ দলীয় জোটের ডাকা অবরোধ চলাকালে গত ১ ডিসেম্বর হাটহাজারী থেকে বাড়ি ফেরার পথে চট্টগ্রাম-নাজিরহাট মহাসড়কের মুহুরীহাট বটতল এলাকার অবরোধকারীদের ছোড়া পেট্রোল বোমায় ঝলসে যায় ট্যাক্সি চালক আবদুল আজিজ।

এ ঘটনায় অগ্নিদগ্ধ হন যাত্রী নুরুল ইসলাম ইউসুফ, খোকন (৩৫) ও আাবুল কালাম (৫২)। ওইদিন রাতে আশঙ্কাজনক অবস্থায় আব্দুল আজিজকে চমেক হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে ৪ ডিসেম্বর তাকে ঢাকা মেডিকেলে প্রেরণ করা হয়। সেখানে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে সোমবার সকালে মারা যান আবদুল আজিজ।

আবদুল আজিজের বড় ভাই মো. জামাল উদ্দিন বাংলানিউজকে জানান, আজিজের দুই মেয়ে ও এক পুত্র সন্তান রয়েছে। বড় মেয়ে রিনসি আকতার (৮), রিনশা আকতার (৪) এবং ছেলে রবিউল হাসান ফরহাদ(২)।

তিনি জানান, ২০০০ সালের আজিজ পাড়ি জমান মধ্যপ্রাচ্যের দুবাইয়ে। সেখানে আটবছর থাকার পর ২০০৮ সালে দেশে ফিরে জমানো টাকা দিয়ে একটি সিএনজি ট্যাক্সি কিনে নিজেই চালাতেন।

‘সাধারণত অবরোধ হরতালের সময় সে গাড়ি নিয়ে মহাসড়কে যেত না। এলাকার আশে পাশেই চালাতেন। ১ ডিসম্বের তার ট্যাক্সির ব্যাটারির সমস্যা দেখা দিলে মেরামতের জন্য বিকেলের দিকে গাড়ি নিয়ে বের হয়। সে যাওয়াই শেষ যাওয়া হল। না ফেরার দেশে চলে গেল সে ’-- কান্না জড়িত কণ্ঠে বলেন জামাল উদ্দিন।  

এ ধরণের সহিংসতায় সাধারণ মানুষের মৃত্যুর জন্য দুই প্রধান রাজনৈতিক দলকে দায়ী করে তিনি বলেন, ক্ষমতা দখলের নেশায় রাজনীতিবিদরা মত্ত। কার কি হয়েছে তাদের জানার দরকার নেই। তাদের শুধু চেয়ারটা দরকার।

এদিকে ঘটনার ১৫ দিন অতিক্রান্ত হলে এখনো পর্যন্ত এ ঘটনায় মামলা দায়ের করতে পারেনি পুলিশ। হাটহাজারী থানার সেকেন্ড অফিসার সেন্টু মিয়া বলেন, ঘটনার ব্যাপারে এখনো মামলা হয়নি। তবে মামলার প্রস্তুতি চলছে।  

আবদুল আজিজকে সোমবার রাতে ঢাকা থেকে চট্টগ্রামের গ্রামের বাড়িতে নিয়ে আসার পর রাতেই দাফন করা হবে বলে পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে।

বাংলাদেশ সময়:২১০০ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৬, ২০১৩

সম্পাদনা: তপন চক্রবর্তী, ব্যুরো এডিটর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa