ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ মাঘ ১৪২৮, ২৫ জানুয়ারি ২০২২, ২১ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

চট্টগ্রামে বর্ষবরণের নিরাপত্তায় দু’হাজার পুলিশ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২২৫ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৩, ২০১৪
চট্টগ্রামে বর্ষবরণের নিরাপত্তায় দু’হাজার পুলিশ ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রামে বর্ষবিদায় ও বর্ষবরণের আয়োজনকে কেন্দ্র করে নগরীতে তিন স্তরের নিরাপত্তা বলয় তৈরি করছে পুলিশ ও র‌্যাব। রোববার দুপুর ২টা থেকে আয়োজনস্থল ঘিরে দায়িত্ব পালন শুরু করবে পুলিশ ও র‌্যাবের বিশেষ নিরাপত্তা টিম।

 

বাংলা বর্ষবিদায় ও নববর্ষ বরণ উপলক্ষে নগরীর ডিসি হিল, সিআরবি, বাওয়া স্কুল প্রাঙ্গন, শিল্পকলা একাডেমি, পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকত সহ জনসমাগম হবে এমন বেশ কয়েকটি এলাকাকে ঘিরে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সাজিয়েছে তাদের সার্বিক নিরাপত্তা পরিকল্পনা।

নগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (অপরাধ ও অভিযান) বনজ কুমার মজুমদার বাংলানিউজকে বলেন, বৈশাখী উৎসবের আয়োজকদের সঙ্গে পরামর্শ করে এবং আমাদের নিজস্ব বিবেচনা অনুযায়ী সার্বিক নিরাপত্তা পরিকল্পনা করা হয়েছে। আশা করছি, সুন্দরভাবেই বৈশাখের সব আয়োজিন সমাপ্ত হবে।

নগর পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে নগরীতে এবার প্রায় দু’হাজার পুলিশ মোতায়েন করা হচ্ছে। এদের মধ্যে আছেন সাদা পোশাকধারী ও নির্দিষ্ট পোশাকধারী পুলিশ এবং আর্মড ব্যাটেলিয়নের সদস্যরা।

ডিসি হিল, সিআরবি সহ সংশ্লিষ্ট এলাকায় উৎসবে প্রবেশের সময় পুলিশ মেটাল ডিটেক্টর দিয়ে তল্লাশি করবে। এছাড়া পুরো প্রাঙ্গনে বিভিন্ন টিমে ভাগ হয়ে অবস্থান নেবেন পুলিশ সদস্যরা। নগরীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েণ্টেও পুলিশ অবস্থান নেবে। এর বাইরে পুরো নগরীতে থাকবেন নগর গোয়েন্দা পুলিশ ও বিশেষ শাখার সদস্যরা।

সূত্র জানায়, বৈশাখী উৎসবের আয়োজকদের সন্ধ্যার মধ্যে অনুষ্ঠান শেষ করার জন্য পুলিশের পক্ষ থেকে অনুরোধ করা হয়েছে। তবে সন্ধ্যার মধ্যে অনুষ্ঠান শেষ করতে না পারলে পুলিশ রাত ৮টার পর আর কাউকে অনুষ্ঠান চালিয়ে যেতে দেবেনা বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এদিকে বর্ষবিদায়ের বিকেলে এবং বর্ষবরণ উপলক্ষে দিনভর নগরীর পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকত, নেভাল সৈকতসহ আশপাশের এলাকায় প্রচুর জনসমাগম হবে বলে মনে করছে পুলিশ। এজন্য পুলিশ ও ট্রাফিক বিভাগ যৌথভাবে ওই এলাকায় আইনশৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখার পরিকল্পনা করেছে। সমুদ্রসৈকতকে ঘিরে শতাধিক পুলিশ এবং ট্রাফিক বিভাগের একাধিক টিম রোববার সকাল ১০টা থেকে দায়িত্ব পালন শুরু করেছে।

নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (বন্দর) মোস্তাক আহমেদ বাংলানিউজকে বলেন, প্রচুর জনসমাগমের বিষয়টি মাথায় রেখেই নিরাপত্তার ব্যবস্থা করেছি। সৈকতে গাড়ি নিয়েও অনেক দর্শনার্থী আসবেন। সড়কে যানবাহন চলাচল যাতে স্বাভাবিক থাকে সেজন্য ট্রাফিক বিভাগও আমাদের সঙ্গে দায়িত্ব পালন করবে।

র‌্যাব সূত্র জানায়, র‌্যাবের চট্টগ্রাম জোন থেকে ২৩০ জন সদস্য বিভিন্ন ইউনিটে বিভক্ত হয়ে নগরীতে টহল দেবেন। এর বাইরে সাদা পোশাকধারী ৮২ জন সদস্য বিভিন্ন উৎসব প্রাঙ্গনে মোতায়েন থাকবেন। র‌্যাব নগরীর বিভিন্ন স্পট ছাড়াও পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকত এবং চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করবেন।

বাংলাদেশ সময়: ১২১৭ঘণ্টা, এপ্রিল ১৩,২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa