ঢাকা, শুক্রবার, ৫ বৈশাখ ১৪৩১, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ০৯ শাওয়াল ১৪৪৫

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

‘সরকারি কলেজকে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত করা ভুল ছিল’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৫০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৬, ২০১৪
‘সরকারি কলেজকে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত করা ভুল ছিল’ ছবি : বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

চট্টগ্রাম: দেশের সরকারি কলেজগুলোকে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়েল অধিভুক্ত করার সিদ্ধান্ত ভুল ছিল বলে মন্তব্য করেছেন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. এ কে আজাদ চৌধুরী।

শুক্রবার চট্টগ্রাম প্রকৌলশ ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (চুয়েট) পুরকৌশল বিষয়ে তিনদিনব্যাপী এক আন্তর্জাতিক সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এই মন্তব্য করেন।



প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কে আজাদ চৌধুরী বলেন, ১৯৯২ সালে সরকারি কলেজগুলোকে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়ে যাওয়ার এই সিদ্ধান্তে একদিকে কলেজগুলোতে সেশন জট আরও বেড়েছে, অন্যদিকে শিক্ষার মান কমতে শুরু করেছে।

তিনি বলেন, ২০ লাখ শিক্ষার্থী নিয়ে একটি বিশ্ববিদ্যালয় চলতে পারে না।
  তাই সেশন জট কমিয়ে শিক্ষার মান বাড়ানোর উদ্দেশ্যেই সরকারি কলেজগুলোকে আবারো বিভাগীয় পর্যায়ের পুরোনো বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর অধীনে নেওয়া হচ্ছে।

ইউজিসি চেয়ারম্যান বলেন, এখন শিক্ষার্থীরা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী হিসেবে নিজেদের পরিচয় দিতে সংকোচ বোধ করে।   বিশ্ববিদ্যালয়ে অধীনে সরকারি কলেজগুলোকে নেওয়া গেলে তাদের সেই সংকোচ বোধ দূর হবে।

অনুষ্ঠানে ‘ পুরকৌশল বিষয়ে অগ্রসরমাণ প্রযুক্তি ২০১৪’  শীর্ষক তিন দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক সম্মেলন আয়োজনের জন্য চুয়েট কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানান তিনি।

এ কে আজাদ বলেন, যে কোন উন্নয়নের মূলে অবকাঠামো দরকার ,আর তাই বসবাসযোগ্য বিশ্ব গড়তে পুরকৌশলীদের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

এসময় দেশের প্রবৃদ্ধি বৃদ্ধির ক্ষেত্রেও সিভিল ইঞ্জিনিয়রদের ভূমিকার কথা তুলে ধরেন তিনি।

অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চুয়েট উপাচার্য ড. মো. জাহাঙ্গীর আলম ও উপ-উপাচার্য মো. রফিকুল আলম প্রমুখ।

সম্মেলনের প্রথম দিনে সকাল ১০টায় একটি কি-নোট সেশনে ভারতের শিল্প-গবেষক অধ্যাপক ড. ব্রজ ভূষণ পান্ডে দীর্ঘমেয়াদী, অধিক কার্যকরী সড়কের বিভিন্ন উপাদান নিয়ে সার্বিক আলোচনা করেন এবং উন্মুক্ত প্রশ্নোত্তর পর্বে অংশ নেন।

দুপুরে হোক্কায়ডো বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাপক ড. তামন ওয়েদা ভূমিকম্প প্রতিরোধক সামগ্রীর উপর আরেকটি কি-নোট সেশন উপস্থাপন করেন।

এসময় রিক্রোফিটিং এর মাধ্যমে ভূমিকম্প প্রতিরোধের উপর বিভিন্ন যুক্তি উপস্থাপন করেন তিনি।

এছাড়াও, সম্মেলনের প্রথম দিনে ২৮ টি গবেষণা পত্র উপস্থাপিত হয়েছে।

তিনদিনব্যাপী এ সম্মেলন শেষ হবে ২৮ ডিসেম্বর।    চুয়েট পুরকৌশল বিভাগ দ্বিতীয় বারের মত শীর্ষক এ সম্মেলন আয়োজন করেছে।   সম্মেলনে মোট ১১টি দেশের গবেষকদের ১৬৩ টি গবেষণা পত্র উপস্থাপিত হবে।

বাংলাদেশ সময়: ২১৫০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৬, ২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।