ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ আষাঢ় ১৪২৯, ৩০ জুন ২০২২, ০০ জিলহজ ১৪৪৩

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

রাতের চট্টগ্রাম

চট্টগ্রাম বন্দরে নির্ঘুম কর্মব্যস্ততা

মো.মহিউদ্দিন, ইফতেখার ফয়সাল, এস.বি টুপসি, বিপ্লব পার্থ | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৪৩৮ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৬, ২০১৫
চট্টগ্রাম বন্দরে নির্ঘুম কর্মব্যস্ততা ছবি : এস.বি টুপসি/বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

চট্টগ্রাম: পণ্য ভর্তি কন্টেইনার নিয়ে সারিবদ্ধভাবে দাড়িয়ে আছে বেশ কয়েকটি কাভার্ড ভ্যান। আমদানি পণ্য নিয়ে বের হচ্ছে লরি, কাভার্ড ভ্যান।



রাত দুইটায় চট্টগ্রাম বন্দরের চার নম্বর গেইটের চিত্র এটি। দিনের মতোই পণ্য ডেলিভারি হচ্ছে বন্দর থেকে। পরিবহন, নিরাপত্তা বিভাগসহ অন্যান্য সংস্থার কর্মীরা কাজ নিয়ে ব্যস্ত।

গেইটে দায়িত্বরত সার্জেন্ট আ হ ম শহিদুল ইসলাম বাংলানিউজকে জানান, রাত ১২টার শিফটে কাজে যোগ দিয়েছেন তিনি। দুইঘণ্টায় অন্তত ২০০ ট্রাক ট্রেইলর যাওয়া আসা করেছে।

চট্টগ্রাম বন্দরে পণ্য ওঠা-নামার কাজ স্বাভাবিক রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, বন্দরে রাতদিন বলে কোন কথা নেই। দিনের মতোই পণ্য ডেলিভারি হচ্ছে।

গেইটে দায়িত্বরত একজন নিরাপত্তা কর্মী জানান, বন্দর গেইটে ৮ ঘণ্টা করে তিন শিফটে ২৪ ঘণ্টা দায়িত্ব পালন করেন তারা। রাত ১২টায় কাজে যোগ দিয়েছেন তিনিও।

তার সঙ্গে রয়েছেন একজন আনসার সদস্য। এছাড়া পরিবহন বিভাগ, ডিপো প্রতিনিধি ও অন্যান্য বিভাগের কর্মকর্তারা দায়িত্ব পালন করছেন। গাড়ির ক্লিয়ারেন্স নিয়ে সংশ্লিষ্ট গাড়ির চালকদের হাতে ক্লিয়ারেন্সের কাগজ দিতে দেখা গেল শফি মোটরস’র একজন ইনচার্জকে।

নিরাপত্তা বিভাগের ওই কর্মী জানান, রফতানি পণ্য নিয়ে বন্দর অভ্যন্তরে প্রবেশ বা আমদানি পণ্য খালাসের আগে সিটিএমএস ক্লিয়ারেন্স নিতে হয় পরিবহন বিভাগ থেকে। তারপর একটি প্রিন্ট কপি নিয়ে গেইটে নিরাপত্তা বিভাগের কাছে যেতে হয়। এন্ট্রি করে নিরাপত্তা বিভাগ থেকে অনুমতি দেওয়ার পরই যে কোন গাড়ি প্রবেশ কিংবা বের হতে পারে।

পণ্য ভর্তি কন্টেইনার নিয়ে বন্দরে প্রবেশর জন্য অপেক্ষা করছেন কেডিএস গ্রুপের মালিকানাধীন কাভার্ডভ্যানের চালক ও তার সহকারী।

এই প্রতিষ্ঠানের বেশ কয়েকটি কাভার্ডভ্যান বন্দরে প্রবেশের অপেক্ষায় রয়েছে জানিয়ে সহকারী সুশান্ত নাথ বলেন, পাট, গার্মেন্টস এক্সসেসরিজসহ বিভিন্ন প্রকার রফতানি পণ্য নিয়ে এসেছেন তারা।

জাহাজে পণ্য তুলতে বন্দর জেটিতে যাবেন। তাই নিরাপত্তা বিভাগের অনুমতির অপেক্ষায় রয়েছেন।

কিছুক্ষণ পরে ডিপো ইনচার্জ অনুমতিপত্র দেন। এরপরই চালকের উদ্দেশ্যে সহকারী সুশান্তের হাঁক- গাড়ি স্টার্ট দেন।  

বন্দরের চার নম্বর গেইট এলাকায় নিরাত্তার দায়িত্বে রয়েছেন দুই আনসার সদস্য আমজাদ ও খোরশেদ আলম। রাত ১০টা থেকে দায়িত্ব পালন করছেন তারা।

আমজাদ বাংলানিউজকে বলেন, রাতেও পণ্য নিয়ে বন্দরে প্রচুর পরিমাণ গাড়ি প্রবেশ করছে। আবার আমদানি পণ্য নিয়েও গাড়ি বের হচ্ছে। পণ্য ডেলিভারিতে দিনরাত কোন পার্থক্য নেই।


বাংলাদেশ সময়: ০৪৩৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৬, ২০১৫

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa