ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ কার্তিক ১৪২৭, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

সার্জেন্টের নামে ভুয়া কেস স্লিপ, যুবক আটক

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২৩৩৬ ঘণ্টা, অক্টোবর ১, ২০২০
সার্জেন্টের নামে ভুয়া কেস স্লিপ, যুবক আটক

চট্টগ্রাম:  চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) ট্রাফিক দক্ষিণ বিভাগে কর্মরত এক সার্জেন্টের নামে ভুয়া কেস স্লিপ বানিয়ে প্রতারণার দায়ে তুহিন বড়ুয়া নামে এক যুবককে আটক করা হয়েছে। ওই যুবকের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের পর তাকে ডবলমুরিং থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

 

বৃহস্পতিবার (০১ অক্টোবর) বিকেলে ওই যুবকের বিরুদ্ধে ডবলমুরিং থানায় মামলা দায়ের করেছেন সার্জেন্ট কুমার বিশ্বজিৎ মজুমদার। মামলা নম্বর-০২।

মামলার বিষয়টি বাংলানিউজকে নিশ্চিত করেছেন ডবলমুরিং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সদীপ কুমার দাশ।  

আটক তুহিন বড়ুয়া রাউজান উপজেলার কদলপুর দক্ষিণ জয়নগর এলাকার বিজয় সেন বড়ুয়ার ছেলে। তিনি ইপিজেড থানাধীন বন্দরটিলা এলাকায় বসবাস করেন।  

জানা যায়, ২৯ সেপ্টেম্বর হেলমেট না পড়ায় ইপিজেড আলীশাহ মাজারের সামনে তুহিন বড়ুয়াকে থামায় ট্রাফিক বন্দর জোনে কর্মরত সার্জেন্ট আরিফুজ্জামান সরকার। হেলমেট না পড়া তুহিন বড়ুয়াকে মামলা দেয় সার্জেন্ট আরিফুজ্জামান সরকার। এসময় তুহিন বড়ুয়া সার্জেন্ট আরিফুজ্জামান সরকারকে ট্রাফিক দক্ষিণ বিভাগের সার্জেন্ট কুমার বিশ্বজিৎ মজুমদারের সিলমোহরযুক্ত একটি কেস স্লিপ দেখান। বিষয়টি আরিফুজ্জামান সরকার কুমার বিশ্বজিৎ মজুমদারকে জানালে তিনি সেটি ভুয়া বলে জানান।  

বৃহস্পতিবার তুহিন বড়ুয়াকে ডেকে এনে কথা বলেন সার্জেন্ট কুমার বিশ্বজিৎ মজুমদার। পরে তার নামে ভুয়া কেস স্লিপ তৈরি করে প্রতারণার অভিযোগ এনে তুহিন বড়ুয়াকে ডবলমুরিং থানায় হস্তান্তর করেন।  

সিএমপি ট্রাফিক দক্ষিণ বিভাগের সার্জেন্ট কুমার বিশ্বজিৎ মজুমদার বাংলানিউজকে বলেন, আমি তুহিন বড়ুয়াকে চিনি না। তিনি আমার নাম ব্যবহার করে প্রতারণা করে আসছিলেন। তার বিরুদ্ধে ডবলমুরিং থানায় মামলা দায়ের করেছি।  

বাংলাদেশ সময়: ২৩৩৩ ঘণ্টা, অক্টোবর ০১, ২০২০
এসকে/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa