ঢাকা, বুধবার, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ০৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

‘ষড়যন্ত্র সফল হয়নি, এগিয়ে যাবেন চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৩২ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২২
‘ষড়যন্ত্র সফল হয়নি, এগিয়ে যাবেন চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক’ ...

চট্টগ্রাম: উপজেলা পরিষদ অ্যাসোসিয়েশন চট্টগ্রাম বিভাগের সভাপতি এবং রাউজান উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ কে এম এহেছানুল হায়দার চৌধুরী বাবুল বলেছেন, ষড়যন্ত্রকারীদের ষড়যন্ত্র সফল হয়নি, এগিয়ে যাবেন চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক। স্বার্থান্বেষী মহল এবং চিহ্নিত ভূমিদস্যুদের সকল ষড়যন্ত্র রুখে দেওয়া হবে।

বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) সকালে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল খালেক মিলনায়তনে বাংলাদেশ উপজেলা পরিষদ অ্যাসোসিয়েশন চট্টগ্রাম জেলা ও চট্টগ্রাম বিভাগের উদ্যোগে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের বিরুদ্ধে সাম্প্রতিক সময়ে স্বার্থান্বেষী মহল এবং চিহ্নিত ভূমিদস্যু কর্তৃক মিথ্যা প্রচারণা ছড়ানোর প্রতিবাদে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

এহেছানুল হায়দার চৌধুরী বাবুল বলেন, চট্টগ্রামবাসীর স্বার্থে জেলা প্রশাসক মমিনুর রহমানের নানা সাহসী পদক্ষেপের কারণে সংঘবদ্ধ একটি প্রভাবশালী ও ভূমিদস্যু এবং বিভিন্ন অবৈধ কাজের সাথে জড়িত চক্র তাঁর প্রতি রুষ্ট।  

‘দায়িত্ব পালনকালীন সময়ে চিহ্নিত ভূমিদস্যুদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান, জনগণের স্বার্থ রক্ষা, রাষ্ট্রের পক্ষে সততা ও নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করায় নিজেদের স্বার্থ হাসিলে ব্যর্থ গোষ্ঠী জেলা প্রশাসক মমিনুর রহমানকে চট্টগ্রাম থেকে সরিয়ে দিতে চায়’। তাঁকে চট্টগ্রাম থেকে বদলি করা হলে চট্টগ্রামবাসীর স্বার্থ ক্ষতিগ্রস্ত হবে বলেও সংবাদ সম্মেলনে দাবি করা হয়।

তিনি বলেন, গত ১৫ সেপ্টেম্বর মনোনয়ন পত্র দাখিলের পর মূলত মুসলিম ধর্মীয় বিধান মেনে মোনাজাতে শামিল হয়েছিলেন জেলা প্রশাসক এবং তৎকালীন রিটার্নিং কর্মকর্তা মমিনুর রহমান। মোনাজাত পরিচালনাকারীর বক্তব্যের সঙ্গে জেলা প্রশাসক কোনভাবে সম্পৃক্ত নন। প্রকৃতপক্ষে চট্টগ্রামের জঙ্গল ছলিমপুর ও জঙ্গল লতিফপুর এলাকায় অবৈধভাবে জমি বিক্রয় করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়া একটি সিন্ডিকেটের অর্থায়নে এবং একটি পেশাজীবী সংগঠনের পৃষ্ঠপোষকতায় জেলা প্রশাসকের বিরুদ্ধে অপপ্রচার ছড়ানো হয়েছে। জঙ্গল ছলিমপুরের ভূমিদস্যুতার বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসকের অবস্থান, কোর্ট বিল্ডিং সুরক্ষা, ভূমি অধিগ্রহণে দালাল চক্রকে শক্ত হাতে দমনে ডিসি’র ভূমিকা- এই তিনটি বিষয় স্বার্থান্বেষী মহল, যারা নিজের স্বার্থ হাসিলে ব্যর্থ হয়েছেন তারা উদ্দেশ্যমূলকভাবে এই ধরনের নাটক মঞ্চায়নে ব্যস্ত।

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মমিনুর রহমানের বিভিন্ন কল্যাণমূলক কাজে চট্টগ্রামবাসী উপকৃত হলেও কুচক্রীমহলের স্বার্থে ব্যাঘাত ঘটেছে। তাই তারা তাঁকে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক পদ থেকে সরিয়ে দিতে কিংবা বদলি করার মানসে পরিকল্পনা করে যাচ্ছে। আমরা জনপ্রতিনিধিরা এ ধরনের অপপ্রচার এবং চট্টগ্রামবাসীর স্বার্থকে জলাঞ্জলি দিয়ে কোনপ্রকার হীনস্বার্থ চরিতার্থ করতে দিবো না। তাই প্রধানমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি দাবি জানাচ্ছি, প্রকৃত ঘটনা উদ্ঘাটন করে সকল চক্রান্ত রুখে সুশাসন প্রতিষ্ঠা এবং শিষ্টের লালনে নজির সৃষ্টি করা জেলা প্রশাসক মমিনুর রহমানের প্রতি যেন ন্যায়বিচার করা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন আনোয়ারা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান তৌহিদুল হক চৌধুরী, ফটিকছড়ি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এইচ এম আবু তৈয়ব, পটিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরী সহ বিভিন্ন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান এবং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানরা।

বাংলাদেশ সময়: ১৪১৪ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০২২ 
বিই/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa