ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৭ মাঘ ১৪২৯, ৩১ জানুয়ারি ২০২৩, ০৮ রজব ১৪৪৪

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

আপের ঝাটাতে ঝড়ে গেল বিজেপি

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২৩১০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৭, ২০২২
আপের ঝাটাতে ঝড়ে গেল বিজেপি

কলকাতা: ১৫ বছরের গড় হাতছাড়া হল বিজেপির। আপের ঝাটাতে ঝড়ে গেল বিজেপি।

দিল্লি পুরসভা নির্বাচনে বিজেপিকে ঝেটিয়ে (ঝাটা আপের প্রতীক) উৎখাত করে, মসনদে এখন কেজরিওয়ালের আম আদমি পার্টি। গত ৪ ডিসেম্বর দিল্লি পুরসভার ২৫০টি ওয়ার্ডে ভোটগ্রহণ হয়। ভোট পড়েছিল প্রায় ৫০ দশমিক ৪৭ শতাংশ। দিল্লির মিউনিসিপ্যাল করপোরেশনের ২৫০টি ওয়ার্ডে ১৩৪৯ জন প্রার্থী এই নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন।

বুধবার (৭ডিসেম্বর) সকাল ৮টা থেকে শুরু হয় গণনা। এদিন ট্রেন্ডে দেখেই বোঝা যাচ্ছিল বিজেপিকে মাত দিয়ে দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলেছে কেজরিওয়ালের আপ। বিগত ১৫ বছর ধরে দিল্লির পুরনিগম বিজেপির দখলে থাকলেও, এবারের বুথ ফেরত সমীক্ষায় এগিয়ে ছিল অরবিন্দ কেজরিওয়ালের আম আদমি পার্টিই। সেই সমীক্ষাতেই সিলমোহর এবার ফেলল নির্বাচনী ফলাফল।

দিল্লি পুরসভা নিজেদের দখলে রাখতে একাধিক রণকৌশলও নেয় বিজেপি। হিমন্ত বিশ্বশর্মা, অনুরাগ ঠাকুরের মত হেভিওয়েট নেতাদের প্রচারেও নামায় বিজেপি। ইডি, সিবিআই-এর মতো তদন্তকারী সংস্থাগুলো দিয়ে আপ নেতাদের নাস্তানাবুদ করা হচ্ছে বলেও দাবি করে আসছিলেন কেজরিওয়াল। কিন্তু এত কিছু করেও ১৫ বছরের গড় রক্ষা করতে পারল না বিজেপি। আপ ঝড়ে একপ্রকার ধরাশায়ী হয়েছে তারা।

রাজনৈতিক মহলের মতে, এবার দিল্লিতে কেজরিওয়ালের সুশাসন, স্বচ্ছ রাজনীতি, নাগরিক পরিষেবা-সহ একাধিক ইস্যু মানুষের মনে ভরসা জুগিয়েছে।  

অপরদিকে দীর্ঘ ১৫ বছরে দিল্লি পুরসভায় ক্ষমতায় থেকেও বিজেপি শুধু অনুন্নয়ন, দুর্নীতি, ক্ষমতার অপব্যবহারই করেছে। যার কারণেই দিল্লির মানুষ ভোট দিয়েছে বলেও মত তাদের।

নির্বাচনে ২৫০টি ওয়ার্ডের মধ্যে আপের ঝুলিতে গিয়েছে ১৩৪টি। বিজেপি জয় পেয়েছে ১০৪টি ওয়ার্ড। যেহেতু দিল্লি পুরসভার ম্যাজিক ফিগার ১২৬, তাই আর বলার অবকাশই রাখে না, কারা চালকের আসনে বসতে চলেছে। কিন্তু এসবের মধ্যে সবচেয়ে শোচনীয় ফল হয়েছে কংগ্রেসের। মাত্র ৯টি আসন ধরে রাখতে পেরেছে তারা। দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনের পর পুরসভাতেও ক্রমশ ম্লান হয়েছে কংগ্রেস।

এর আগে দিল্লি পুরসভার ২৭২টি ওয়ার্ডে তিনটি ভাগ ছিল। এবারই প্রথম ২৫০টি ওয়ার্ডে গোটা পুরসভা একটি করা হয়েছে। ২০১৭ সালে দিল্লি পুরসভা নির্বাচনে ২৭২টি ওয়ার্ডের মধ্যে বিজেপি পেয়েছিল ১৮১টি আসন। আপ ৪৮টি এবং কংগ্রেস ৩০টি আসনে জয়ী হয়।

বিজেপিকে হারিয়ে অরবিন্দ কেজরিওয়াল জানিয়েছেন, দিল্লিবাসী দেশকে রাস্তা দেখাল। কু-কথার রাজনীতি নয়, উন্নয়নের রাজনীতিতেই বিশ্বাস করে মানুষ। আগামী দিনে দিল্লিবাসীকে নিয়ে সাফাই অভিযানে নামব আমরা। এরই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, মানুষকে সঙ্গে নিয়ে দুর্নীতিকে সমূলে উৎখাত করবে আপ।

পাঞ্জাবের আম আদমি পার্টির মুখ্যমন্ত্রী ভগবন্ত মান দিল্লি পুরসভার নির্বাচনের ফলাফল সম্পর্কে বলেছেন, আমরা ইতিহাস স্থাপন করেছি। অরবিন্দ কেজরিওয়াল দিল্লি থেকে বিজেপির ১৫ বছরের ক্ষমতাকে উপড়ে ফেলেছেন। মানুষ ঘৃণার রাজনীতি পছন্দ করে না, তারা শিক্ষা, বিদ্যুৎ, পরিচ্ছন্নতার জন্য ভোট দেয়। এখন দিল্লি সাফ করা হবে।

আম আদমি পার্টির নেতা, সাংসদ রাঘব চাড্ডা বলেছেন, বিজেপি দিল্লিকে আবর্জনায় ঢেকে দিয়েছে, তা সাফ করা হবে। দিল্লির মানুষ আপকে পুরসভার আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যাতে দিল্লি পরিষ্কার এবং সুন্দর হয়। খোঁচা দিয়ে তিনি বলেছেন, ‘বিশ্বের সর্ববৃহৎ দল’ আমাদের কাছে হেরেছে।

এদিকে নির্বাচনে দলের ফল মোদি, শাহ, নাড্ডাদের যে চূড়ান্ত অস্বস্তিকর পরিস্থিতির সম্মুখীন করেছে তা বলাই বাহুল্য। দিল্লি থেকে কেন্দ্রীয় সরকার চললেও দিল্লি এখন হাতছাড়া! এই ক্ষত কোন মলমে সারবে তার জবাব খুঁজতে শুরু করছেন মোদি-শাহ।  

বাংলাদেশ সময়: ২৩১০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০৭, ২০২২
ভিএস/আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa