ঢাকা, মঙ্গলবার, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২১ মে ২০২৪, ১২ জিলকদ ১৪৪৫

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

ত্রিপুরায় উদযাপিত হচ্ছে ঈদুল আজহা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮০৬ ঘণ্টা, জুন ২৯, ২০২৩
ত্রিপুরায় উদযাপিত হচ্ছে ঈদুল আজহা ঈদের জামাত।

আগরতলা, (ত্রিপুরা): গোটা বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে বৃহস্পতিবার (২৯ জুন) ত্রিপুরা রাজ্যজুড়ে উদযাপিত হচ্ছে ত্যাগের উৎসব পবিত্র ঈদুল আজহা।  এ উপলক্ষে এদিন সকালে রাজ্যের প্রতিটি মসজিদে বিশেষ নামাজ অনুষ্ঠিত হয়।

রাজ্যের সবচেয়ে বড় নামাজের আয়োজন করা হয় রাজধানী আগরতলা শিবনগর এলাকার গেদু মিঞা মসজিদ প্রাঙ্গণে।

এখানে একসঙ্গে হাজারেরও বেশি বিভিন্ন বয়সী মুসল্লিরা নামাজ আদায় করেন। নামাজ পড়ান হজরত মাওলানা আব্দুল রহমান। নামাজ শেষে মুসল্লিরা একে অপরকে ঈদের শুভেচ্ছা জানান।

নামাজ সম্পন্ন করে হজরত মাওলানা আব্দুল রহমান বলেন, আজ ঈদুল আজহা। এটি হচ্ছে ত্যাগের উৎসব। বিশেষ এই দিনে তিনি রাজ্যের সব মানুষকে শুভেচ্ছা এবং ঈদ মোবারক ব্যক্ত করেন।

তিনি আরও বলেন, আজ থেকে প্রায় পাঁচ হাজার বছর আগে কোরবানির ঈদ সারা বিশ্বজুড়ে প্রচলন হয়। পশু কোরবান করা এই উৎসবের মূল উদ্দেশ্য নয়, এই উৎসবের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে আমাদের নিজেদের ভেতরে যে বিপরীত শক্তি রয়েছে এগুলোকে কোরবান করা। রাজ্য এবং বিশ্বের প্রতিটি মানুষের ঘরে যাতে শান্তি এবং আনন্দ বিরাজ করে এই প্রার্থনা এদিন করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ত্রিপুরা রাজ্যের সংখ্যালঘু উন্নয়ন দপ্তরের মন্ত্রী শুক্লা চরণ নোয়াতিয়া।  

ঈদের জামাত শেষে উপস্থিত সবাইকে ঈদের শুভেচ্ছা জানান ওই মন্ত্রী। এছাড়া রাজ্যবাসীর উদ্দেশ্যেও শুভেচ্ছা জানান তিনি।  

মন্ত্রী শুক্লা চরণ নোয়াতিয়া বলেন, এ রাজ্যে বিভিন্ন জাতি-ধর্ম বর্ণ ভাষা সম্প্রদায়ের মানুষ একসঙ্গে বসবাস করছে। নিজেদের উৎসব ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আনন্দের সঙ্গে পালন করছে। এ উৎসবে একে অপরের সঙ্গে মিলিত হচ্ছে, এটাই হচ্ছে এই রাজ্যের অন্যতম এক পরিচিতি। রাজ আমল থেকেএই প্রথা চলে আসছে। এ মসজিদ রাজ আমলে প্রতিষ্ঠিত হয় তখন থেকে ঈদে সবাই মিলে ঈদের নামাজ আদায় করছেন। আগামীতেও এভাবে সবাই মিলে চলবেন বলে আহ্বান রাখেন তিনি।

 এদিকে পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে রাজ্যবাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী অধ্যাপক ডা. মানিক সাহাও।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৪৪ ঘণ্টা, জুন ২৯, ২০২৩
এসসিএন/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।