ঢাকা, বুধবার, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২২ মে ২০২৪, ১৩ জিলকদ ১৪৪৫

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

ক্যাশলেস জমানায় নগদেই রাষ্ট্রপতি নির্বাচন ভারতে

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৭১৮ ঘণ্টা, জুন ২২, ২০১৭
ক্যাশলেস জমানায় নগদেই রাষ্ট্রপতি নির্বাচন ভারতে

কলকাতা: ব্যাঙ্ক ভর্তি টাকা বা দু-চারটে প্লাস্টিক কার্ড যতই থাকুক না কেনো, পকেটের মানি ব্যাগ বা হ্যান্ড ব্যাগটায় নগদ নোট থাকলে ভারতীয় আমআদমি এখনো অনেকটাই স্বস্তি বোধ করেন। কিন্তু মোদিজির নতুন ভারত বা ডিজিটাল ইন্ডিয়া মাস ছয়েক আগেই শুরু করেছে ক্যাশলেস জমানা। তবে  এই ক্যাশলেস জমানাতেও রাষ্ট্রপতি নির্বাচন হচ্ছে সেই নগদেই।

যে দেশের প্রধানমন্ত্রী সর্বদা ডিজিটাল ইকনমির পক্ষে সওয়াল করেন, সেই দেশের সর্বোচ্চ সাংবিধানিক পদের নির্বাচন হচ্ছে নগদ টাকায়। আসন্ন রাষ্ট্রপতি ভোটে পদপ্রার্থীদের মনোনয়নের জন্য ১৫ হাজার রুপি জমা দিতে হচ্ছে।

এবং তার পুরোটাই নগদে। নেই কোনও কার্ড, বা নেট ব্যাংকিং বা ওয়ালেটের ব্যবস্থা।

দুর্নীতি, কালো টাকা ও জাল নোটের রমরমা রুখতে গত ৮ নভেম্বর  নোট বাতিলের ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ফল, রাতারাতি কাগজে পরিণত হয়ে যায় দেশের তৎকালীন সর্বোচ্চ মূল্যের নোট ৫০০ ও ১০০০ টাকা। নিত্য জীবনযাত্রা নিয়ে সংকটে পড়তে হয় আপামর ভারতবাসীকে। দাঁড়াতে হয় ব্যাংকের লম্বা লাইনে। টাকার অভাবে নাজেহাল জনগণের সমাধানের পথ বাতলাতে ময়দানে নামেন স্বয়ং মোদিজি। জোর প্রচারও চালানো হয় ডিজিটাল বা অনলাইন পেমেন্টের জন্য। তারপর সেই পানি গড়িয়েছে অনেক দূর।

কিন্তু, রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের পর্ব শুরু হতেই দেখা গেল, ক্যাশলেস নয়, নদগেই ভরসা রাখছে মোদিজির নতুন ভারত।   রাষ্ট্রপতি ভোটের মনোনয়নের ক্ষেত্রে নোমিনেশন ফি যে ১৫ হাজার রুপি প্রতি প্রার্থীকে জমা দিতে হচ্ছে, তা দিতে হবে নগদেই। রাখা হয়নি বিকল্প কোনও অনলাইন পন্থা। এমনকি, সেই টাকা গোণা ও দেখার জন্য থাকবেন একজন ব্যাংক আধিকারিক। একজন প্রার্থী রিজার্ভ ব্যাংকে মনোনয়নপত্র সহ ওই টাকা জমা দিতে পারেন।   প্রার্থীর টাকা অনলাইন বা চেক মারফৎ নেওয়া হচ্ছে না।

কমিশন সূত্রে খবর, এখনও পর্যন্ত ১৫ জন প্রার্থী রাষ্ট্রপতি পদের জন্য মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন। যাদের মধ্যে উপযুক্ত কাগজপত্রের অভাবে সাত জনের মনোনয়ন বাতিল হয়ে গেছে। বাকি আবেদনকারীদেরও প্রার্থীপদ বাতিল হওয়ার মুখে। কারণ, মনোনয়নপত্রে ৫০ জন প্রোপোজার এবং যথা সম্ভব বেশি ইলেকটর -এর স্বাক্ষর দরকার। যা বাকি আট জনের নেই। সংসদের দুই কক্ষের সদস্য এবং রাজ্য বিধানসভার বিধায়করা হলেন ইলেকটর।

আগামী ১৭ জুন অনুষ্ঠিত হবে রাষ্ট্রপতি নির্বাচন। ২০ জুলাই ঠিক হয়ে যাবে ভারতের ভাবী রাষ্ট্রপতি।

বাংলাদেশ সময়: ১২৩০ ঘণ্টা, ২২ জুন, ২০১৭
ভি.এস/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।