ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ আষাঢ় ১৪২৯, ০৭ জুলাই ২০২২, ০৭ জিলহজ ১৪৪৩

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

মমতার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করলেন টিপু মুনশি

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১০১ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৯, ২০২২
মমতার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করলেন টিপু মুনশি

কলকাতা: প্রতিবছরের মত চলতি বছরে পশ্চিমবঙ্গে হতে চলেছে বেঙ্গল গ্লোবাল বিজনেস সামিট বা বিশ্ব বাংলা বাণিজ্য সম্মেলন। এটি পশ্চিমবঙ্গের একটি বাণিজ্য সম্মেলন।

এ সম্মেলনে প্রতিবছর বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ অংশ নিয়ে থাকে। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি।  

২০ এবং ২১ এপ্রিল সল্টলেক লাগোয়া নিউটাউনের বিশ্ব বাংলা কনভেনশন সেন্টার হতে চলেছে এ সম্মেলন। অংশ নিতে মঙ্গলবার (১৯ এপ্রিল) কলকাতায় এসেছেন বাংলাদেশের বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি এবং তার নেতৃত্বে বাংলাদেশ শিল্প ও বণিক সমিতির (এফবিসিসিআই) ছয় সদস্য। দুই দিন অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন তাঁরা।

এবারের আয়োজনে কোনও খামতি রাখতে চাইছেন না মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দুই দিন ধরে চলা বাণিজ্য সম্মেলনের প্রস্তুতি দেখতে এদিন বিকেল চারটে নাগাদ মুখ্যমন্ত্রী নিজেই যান নিউটাউনের কনভেনশন সেন্টারে।  

এরপর সাবেক মিলনমেলা প্রাঙ্গণ, বর্তমান যার নাম বিশ্ববাংলা মেলা প্রাঙ্গণ। সেখানে সৌজন্য সাক্ষাৎ হয় বাংলাদেশের বাণিজ্যমন্ত্রী এবং পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর।

কুশল বিনিময়ের মধ্যেই মমতা, মন্ত্রীর কাছে জানতে চান শেখ হাসিনা দিদি কেমন আছেন? শরীর ভালো আছে তো ওনার? আচ্ছা, উনি আমাকে একটা মিষ্টি পাঠান। এত স্বাদ সেই মিষ্টির বলে বোঝাতে পারবো না। শুধু আমি না একথা সবাই বলে। হাসিনা দিদি মিষ্টি পাঠালেই আমি সবাইকে দিই। উত্তরে মন্ত্রী সেই মিষ্টির দোকানের পরিচয় দেন। বলেন, এ মিষ্টি বানানোই হয় টাটকা। যেদিনের অর্ডার থাকে সেদিন সকালেই বানানো হয়। শুনে মমতা বলেন, তাই এত স্বাদ। এরপর টিপু মুনশি জানতে চান আপনি কেমন আছেন। উত্তরে মমতা বলেন, চলে যাচ্ছে।

এবারের বিজনেস সামিটে বাংলাদেশে টিমের নেতৃত্ব দেবেন এফবিসিসিআইর ডিরেক্টর ও ইউনিভার্সাল মেডিক্যাল কলেজ অ্যান্ড হসপিটালের চেয়ারম্যান প্রীতি চক্রবর্তী। আছেন এফবিসিসিআইর অন্যতম ডিরেক্টর ও বাংলাদেশ মুদ্রণ শিল্প সমিতির ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং অগ্রণী ব্যাংকের ডিরেক্টর হাসিনা নেওয়াজ, এফবিসিসিআইর অন্যতম ডিরেক্টর বিজয় কুমার কেজরিওয়াল, এফবিসিসিআইর অন্যতম ডিরেক্টর ও ইথেন এন্টারপ্রাইসের ডিরেক্টর মোহাম্মদ ইকবাল শাহরিয়র, এফবিসিসিআইর অন্যতম ডিরেক্টর ও বেঙ্গল কর্মাসিয়াল ব্যাংকের ডিরেক্টর ড. যশোদা জীবন দেবনাথ এবং ইউনিভার্সাল মেডিক্যাল কলেজ অ্যান্ড হসপিটালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আশীষ কুমার চক্রবর্তী।

এরপর ২১ এপ্রিল দুপুরে কলকাতার ভারত চেম্বার অব কমার্সে বক্তব্য রাখবেন মন্ত্রী এবং সাক্ষাৎ করবেন সাংবাদিকদের সঙ্গে। ওইদিন বিকেলে কলকাতাস্থ বাংলাদেশ ডেপুটি হাইকমিশনে সবার জন্য আয়োজিত ইফতারে অংশ নেবেন বাণিজ্যমন্ত্রী। ২২ এপ্রিল কলকাতা থেকে ইম্ফল যাবেন। সেখানে কাজ মিটিয়ে ২৭ এপ্রিল কলকাতা বিমানবন্দর হয়ে বাংলাদেশ ফিরবেন।

বাংলাদেশ ছাড়া এবারের জাপান, নেপাল, ভুটানসহ আরও অনেকগুলো দেশ এবারে পশ্চিমবঙ্গের বাণিজ্য সম্মেলনে অংশগ্রহণ করেছে।  

বাংলাদেশ সময়: ২০৪৭ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৯, ২০২২
ভিএস/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa