ঢাকা, বুধবার, ৮ ফাল্গুন ১৪৩০, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১০ শাবান ১৪৪৫

অর্থনীতি-ব্যবসা

বাংলাদেশে বাণিজ্য-বিনিয়োগ বাড়াতে চায় চীন-সৌদি-ভুটান

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০০৯ ঘণ্টা, মার্চ ১১, ২০২৩
বাংলাদেশে বাণিজ্য-বিনিয়োগ বাড়াতে চায় চীন-সৌদি-ভুটান

ঢাকা: সৌদি আরব, চীন ও ভুটান বাংলাদেশে বিনিয়োগের আগ্রহ প্রকাশ করেছে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।  

তিনি বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতি বিগত যে কোনো সময়ের চেয়ে শক্তিশালী।

সবকিছু জেনে-শুনেই পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ বাংলাদেশের সঙ্গে ব্যবসা-বাণিজ্য ও বিনিযোগ বাড়াতে এগিয়ে আসছে।

শনিবার (১১ মার্চ) ঢাকায় বঙ্গবন্ধু ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স সেন্টারে চলমান বাংলাদেশ বিজনেস সামিটে যোগদানরত সৌদি আরব, চীন ও ভুটানের বাণিজ্যমন্ত্রীর সঙ্গে আলাদাভাবে মতবিনিময় করে সাংবাদিকদের টিপু মুনশি এসব কথা বলেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, সৌদি আরব, চীন ও ভুটান বাংলাদেশের বন্ধু রাষ্ট্র। চীন বাংলাদেশের বড় ব্যবসায়িক ও অর্থনৈতিক অংশীদার। বাংলাদেশে চীনের অনেক বিনিয়োগ রয়েছে। চীনের বিনিয়োগকারীরা আরও বেশি করে বাংলাদেশে বিনিয়োগের আগ্রহ প্রকাশ করেছে। বাংলাদেশের এনার্জি, অ্যাগ্রোবেজ ইন্ডাস্ট্রি, ফুড প্রসেসিং ও অবকাঠামো উন্নয়ন খাতে আরও বিনিয়োগ করবে। চীন বাংলাদেশের সঙ্গে চলমান বাণিজ্য ও বিনিয়োগ আরও বাড়াতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে।  

তিনি বলেন, সৌদি আরব বাংলাদেশে বন্ধু রাষ্ট্র। বাংলাদেশের এনার্জি সেক্টরে সৌদি আরব বড় ধরনের বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। এছাড়া অ্যাগ্রোবেজ ইন্ডাস্ট্রি ও ফুড সেক্টরে সৌদি আরব বিনিয়োগ করতে আগ্রহী।  


টিপু মুনশি বলেন, ভুটান বাংলাদেশের সঙ্গে বাণিজ্য বাড়াতে আগ্রহী। এজন্য নৌপথ ও স্থল বন্দরের বিভিন্ন সমস্যা দূর করে দ্রত বাণিজ্য বাড়াতে চায়। বাংলাদেশ অর্থনৈতিক, সামাজিকসহ সব ক্ষেত্রে দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে, বাংলাদেশের উন্নয়ন এখন দৃশ্যমান।  

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বিনিয়োগের জন্য বাংলাদেশ এখন খুবই লাভজনক। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় দেশের বিভিন্ন আকর্ষণীয় স্থানে ১০০টি স্পেশাল ইকোনমিক জোন গড়ে তোলার কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে। বেশ কয়েকটির কাজ ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে। দেশীয় প্রতিষ্ঠানসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ এখানে বিনিয়োগের জন্য এগিয়ে এসেছে। আরও বিপুল বিনিয়োগের সুযোগ রয়েছে। বাংলাদেশ সরকার বিনিয়োগের জন্য বেশ কিছু সুযোগ-সুবিধা দিচ্ছে এবং বিনিয়োগের আনুষ্ঠানিকতা সহজ করেছে। এ বিষয়গুলো তাদের কাছে তুলে ধরেছি। সৌদি আরব ও চীন বাংলাদেশে বড় ধরনের বিনিয়োগের আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

টিপু মুনশি প্রথমে বিজনেস সামিটে যোগদানকারী সৌদি আরবের বাণিজ্যমন্ত্রী ড. মাজেদ বিন আব্দুল্লাহ আলকাসাবির সঙ্গে মতবিনিময় করেন। এ সময় সৌদি আরবের বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে বড় ধরনের বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সৌদি আরব। এনার্জি খাতে বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়েছে। এছাড়া বাংলাদেশের অ্যাগ্রিকালচার, ফুড সেক্টরে বিনিয়োগের সুযোগ রয়েছে। সৌদি আরবের বিনিয়োগকারীরা সবদিক বিবেচনা করে আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে বাংলাদেশে বিনিয়োগ করবে।

বাণিজ্যমন্ত্রী এরপর বিজনেস সামিটে যোগদানকারী চায়না কাউন্সিল ফর দি প্রোমশন অব ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড জাং শাওগাং-এর সঙ্গে মতবিনিময় করেন। এ সময় চীনের বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ চীনের চতুর্থ বৃহৎ ব্যবসায়িক অংশীদার। বাংলাদেশে চীনের অনেক বিনিয়োগ রয়েছে। চীন বাংলাদেশের উন্নয়নের অংশীদার। বাংলাদেশের এনার্জি, অ্যাগ্রোবেজ ইন্ডাস্ট্রি, ফুড প্রসেসিং ও অবকাঠামো খাতে আরও বিনিয়োগের সুযোগ রয়েছে। চীনের বিনিয়োগকারীরা বাংলাদেশে আরও বিনিয়োগ করতে আগ্রহী।

পরে টিপু মুনশি ভুটানের শিল্প, বাণিজ্য ও কর্মসংস্থানমন্ত্রী কার্মা দর্জির সঙ্গে বৈঠক করেন। এ সময় ভুটানের মন্ত্রী বলেন, ভুটান বাংলাদেশের সঙ্গে ব্যবসা-বাণিজ্য বাড়াতে আগ্রহী। এজন্য উভয় দেশের নৌপথ সচল ও ব্যবসা-বাণিজ্যের জন্য বন্দরের সমস্যাগুলো দূর করার আহবান জানান।

এর আগে বাণিজ্যমন্ত্রী এফবিসিসিআইয়ের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে ঢাকায় বঙ্গবন্ধু ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স সেন্টারে আয়োজিত তিন দিনব্যাপী বাংলাদেশ বিজনেস সামিট-২০২৩ এর উদ্বেধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন। প্রধান অতিথি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘বাংলাদেশ বিজনেস সামিট-২০২৩’ এর উদ্বোধন করেন।

বাংলাদেশ সময়: ২০০৩ ঘণ্টা, মার্চ ১১, ২০২৩
জিসিজি/আরবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।