ঢাকা, রবিবার, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৬ মে ২০২৪, ১৭ জিলকদ ১৪৪৫

অর্থনীতি-ব্যবসা

ভারত থেকে নিম্নমানের পেঁয়াজ বীজ আমদানি বন্ধের দাবি

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫০৮ ঘণ্টা, মার্চ ২২, ২০২৩
ভারত থেকে নিম্নমানের পেঁয়াজ বীজ আমদানি বন্ধের দাবি কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব ওয়াহিদা আক্তার

ফরিদপুর: ভারত থেকে নিম্নমানের পেঁয়াজ বীজ আমদানি বন্ধের দাবি জানিয়েছেন চাষিরা।

বুধবার (২২ মার্চ) ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার চান্দ্রা ইউনিয়নের লোহারদিয়া গ্রামে মতবিনিময় সভায় কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব ওয়াহিদা আক্তারের কাছে তারা এ দাবি জানান।

সভায় বক্তারা বলেন, বর্তমান সরকার কৃষকের জন্য ভর্তুকি, প্রণোদনাসহ নানা উদ্যোগ নিয়েছে। যাতে কৃষি ও কৃষকের উন্নতি হয়। আমরা চাই কৃষক উন্নতি করুক।

তারা আরও বলেন, পেঁয়াজের চাষ এখন সারাবছরই হচ্ছে। এর ফলে আমদানি নির্ভরতা কমেছে। শুভ লক্ষ্মণ হলো, পেঁয়াজ আবাদের চেয়ে পেঁয়াজ বীজ চাষে ঝুঁকছেন কৃষকেরা। এর ফলে বৈদেশিক মুদ্রা সাশ্রয় হচ্ছে।

বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশনের (বিএডিসি) বাস্তবায়নাধীন ‘মানসম্পন্ন মশলা বীজ উৎপাদন, প্রক্রিয়াজাতকরণ এবং বিতরণ’ শীর্ষক প্রকল্পে বরিশাল-ফরিদপুর জোনের আওতাধীন ফরিদপুর জেলার পাঁচটি স্থানে পেঁয়াজ বীজ চাষ স্কিম চালু করা হয়েছে। এরমধ্যে ভাঙ্গা উপজেলায় রয়েছে দুটি স্কিম। এর একটি চান্দ্রা ইউনিয়নের লোহারদিয়া গ্রামে। প্রায় ১৬ একর জমিতে সেখানে পেঁয়াজ বীজ চাষ করছেন পাঁচ কৃষক।

বুধবার (২২ মার্চ) সকালে সরেজমিনে লোহারদিয়া গ্রামে পেঁয়াজ বীজ  উৎপাদনকারী চুক্তিবদ্ধ চাষিদের বীজ ফসলের মাঠ পরিদর্শন করেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব ওয়াহিদা আক্তার। পরে তিনি স্থানীয় পেঁয়াজ চাষিদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।

এ সময়  বিএডিসির চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ সাজ্জাদের সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বাদল চন্দ্র বিশ্বাস, বিএডিসির সদস্য পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান, মহাব্যবস্থাপক প্রদীপ দে, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের পরিচালক কাজল ইসলাম, প্রকল্প পরিচালক জামিলুর রহমানসহ জেলার বিএডিসি ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা।

এ সময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব ওয়াহিদা আক্তার বলেন, দেশে কৃষিখাতের সাফল্যের বড় কারণ পেঁয়াজ বীজ চাষে আমাদের সফলতা। আর এ পেঁয়াজ বীজের সিংহভাগই উৎপন্ন হয় ফরিদপুর জেলায়। ফরিদপুরের মাটি ও আবহাওয়া পেঁয়াজ বীজ চাষের খু্বই উপযোগী। যেমনটি অন্য কোথাও নেই।

তিনি ফরিদপুরের পেঁয়াজ বীজ চাষিদের উদ্দেশে বলেন, আপনারা পাইকারদের কাছে পেঁয়াজ বীজ বিক্রি করবেন তবে অবশ্যই যখন তারা সেটি বাজারজাত করবে তখন যেন সই বীজের প্যাকেটে ‘ফরিদপুরের বীজ’ লেখা থাকে। কারণ ফরিদপুরের পেঁয়াজ বীজ একটি মানসম্মত ব্রান্ড।  

তিনি বলেন, পেঁয়াজ বীজ চাষে সফলতার কারণে আমাদের আমদানি নির্ভরতা কমেছে ফলে বৈদেশিক মুদ্রার সাশ্রয় হচ্ছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৫০৮ ঘণ্টা, মার্চ ২২, ২০২৩
জেএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।