ঢাকা, মঙ্গলবার, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২১ মে ২০২৪, ১২ জিলকদ ১৪৪৫

অর্থনীতি-ব্যবসা

রিহ্যাব ফেয়ার

ছুটির দিনে ক্রেতা আকৃষ্ট করতে বিভিন্ন ধরনের ছাড়

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৮৫৬ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৩, ২০১৬
ছুটির দিনে ক্রেতা আকৃষ্ট করতে বিভিন্ন ধরনের ছাড় ছুটির দিনে দর্শনার্থীদের পদচারণায় মুখরিত রিহ্যাব ফেয়ার। ছবি: দীপু মালাকার

সাপ্তাহিক ছুটির দিনে দর্শনার্থীদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠেছে রিহ্যাব ফেয়ার।

ঢাকা: সাপ্তাহিক ছুটির দিনে দর্শনার্থীদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠেছে রিহ্যাব ফেয়ার। গত দু’দিনে চেয়ে শুক্রবার (২৩ ডিসেম্বর) ক্রেতা-দর্শনার্থীদের ভিড় বেশি দেখা গেছে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত মেলা প্রাঙ্গণে।



আর ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে মেলায় অংশগ্রহণকারী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ফ্ল্যাট বা প্লট বুকিংয়ে দিচ্ছে বিশেষ ছাড়।

২১ ডিসেম্বর থেকে শুরু হওয়া এ রিহ্যাব ফেয়ার চলবে ২৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত।

ছুটির দিনে বেলা যতোই গড়াচ্ছে ক্রেতা-দর্শনার্থীদের ভিড় ততই বাড়ছে। প্লট ও ফ্ল্যাট উভয় ক্ষেত্রেই বিশেষ ছাড়ে ক্রেতাদের যথেষ্ট সাড়া পাওয়া যাচ্ছে বলে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে। ছুটির দিনে দর্শনার্থীদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠেছে রিহ্যাব ফেয়ার।  ছবি: দীপু মালাকার
মেলায় জেনিট লিমিটেড তাদের ফ্লাটে প্রতি বর্গ ফুটে ৩শ’ থেকে ৪শ’ টাকা পর্যন্ত ছাড় দিচ্ছে। এ ছাড়ে ক্রেতাদের বেশ সাড়া পাওয়া যাচ্ছে বলে জানালেন প্রতিষ্ঠানটির সহকারী ম্যানেজার তানজিল আলম। তিনি জানালেন, রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় জেনিটের প্রকল্প রয়েছে। গুলশানে প্রতি ফ্লাটের বর্গফুট ১৫ থেকে ২২ হাজার টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে।

মেলা উপলক্ষে স্বদেশ প্রোপার্টিজ লিমিটেড প্রতি প্লটের ক্ষেত্রে কাঠা প্রতি শতকরা ২০ ভাগ ছাড় দিচ্ছে।

ছুটির দিনে দর্শনার্থীদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠেছে রিহ্যাব ফেয়ার।  ছবি: দীপু মালাকারশুধু তাই নয় পেশাজীবীদের জন্য যেমন শিক্ষক, চিকিৎসক, প্রকৌশলীসহ বিভিন্ন পেশাজীবীদের ক্ষেত্রে প্রতি কাঠায় ২০ হাজার টাকা ছাড়ের ব্যবস্থাও রয়েছে বলে স্বদেশ প্রোপার্টিজ লিমিটেডের জেনারেল ম্যানেজার খন্দকার একেএম ফায়জুল হক জানান।

স্বদেশ প্রোপার্টিজের প্রতি কাঠা জমি আবাসিকের জন্য ১৭ থেকে ৪৫ লাখ টাকা বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া ব্যবসায়িক প্লট প্রতি কাঠা ৬৫ থেকে ৭০ লাখ এবং স্কুল-কলেজের জন্য ৫০ লাখা টাকা মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে।

ফায়জুল হক জানান, এ ছাড়ে ক্রেতারা আকৃষ্ট হচ্ছে এবং যথেষ্ট সাড়া আসছে।

তবে কোনো কোনো প্রতিষ্ঠান আবার প্যাকেজ ঘোষণা ছাড়াই ক্রেতাদের আকৃষ্ট করার চেষ্টা করছে। ওই সব প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষের বক্তব্য, এসব ছাড়ে ক্রেতাদের তেমন কোনো সুবিধা থাকে না।

এ ধারণা থেকে ফেয়ারে কোনো ছাড় দেয়নি আকাশ ডেভেলপমেন্ট। প্রতিষ্ঠানটির ডেপুটি ম্যানেজার শরিফুল ইসলাম বলেন, আমরা কোনো ছাড় নিয়ে আসিনি। এই ছাড় আসলে এক ধরনের ফাঁকি। সঠিক মূল্য যা, সেটাই আমরা নেই। ছাড় দিয়ে মূল্য নির্ধারণ করি আমরা।

এদিকে এলাকা বিশেষ বিভিন্ন ধরনের ছাড়ে ফ্লাট বিক্রি করছে নিউ ভিশন। তবে সাধারণভাবে এ প্রতিষ্ঠানটি শতকরা ২০ ভাগ ছাড়ে মূল্য নির্ধারণ করেছে। নিউ ভিশনের সহকারী ম্যানেজার শাহজালাল বলেন, আমরা সেগুনবাগিচায় প্রতি ফ্লাটে ১১ হাজার ৫শ’ টাকা, উত্তর বাড্ডায় ৫ হাজার টাকা এবং দক্ষিণখানে ৩ হাজার ৫শ’ টাকা ছাড় দিচ্ছি। এতে আমরা ক্রেতাদের দিক থেকে মোটামোটি সাড়া পাচ্ছি।

এছাড়া পূর্বাচল প্রবাসী পল্লী মেলায় তাৎক্ষণিকভাবে প্লট বুকিং দিলে কাঠা প্রতি শতকরা ১০ থেকে ১৫ টাকা ছাড় দিচ্ছে। মেলায় ১ থেকে ৫ হাজার টাকা টোকেন মানি দিয়ে ১৫ দিনের মধ্যে বুকিং চূড়ান্ত করা যাচ্ছে। এই সুবিধা অনেকেই নিচ্ছে বলে প্রবাসী পল্লীর মার্কেটিং ম্যানেজার সিকদার আরিফুল আলম জানান।

তিনি বলেন, এই ছাড়ের ক্ষেত্রে আমরা যথেষ্ঠ সাড়া পাচ্ছি। এবারের বিক্রিও গত বছরের তুলনায় ভাল।

বাংলাদেশ সম: ১৪৫৭ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৩, ২০১৬
এসকে/এসএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।