ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

অর্থনীতি-ব্যবসা

সমবায়ীদের বিক্ষোভের মুখে মিল্কভিটার এজিএম স্থগিত

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০১২০ ঘণ্টা, আগস্ট ২৪, ২০১০
সমবায়ীদের বিক্ষোভের মুখে মিল্কভিটার এজিএম স্থগিত

ঢাকা: সমবায়ীদের বিক্ষোভের মুখে মঙ্গলবার মিল্কভিটার ৩৩তম বার্ষিক সাধারণ সভা(এজিএম) স্থগিত করা হয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা কমিটির চেয়াম্যান অহিদ উল্লাহ মোল্লা দুপুর ১২টায় এজিএম স্থগিতের  ঘোষণা দেন।



মঙ্গলবার সকালে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বাংলাদেশ দুগ্ধ উৎপাদনকারী সমবায় ইউনিয়ন লিমিটেড-মিল্কভিটার ৩৩ তম এজিএম শুরু হয়। ব্যবস্থাপনা কমিটির চেয়াম্যান অহিদ উল্লাহ মোল্লার সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মো. রহমত আলী এমপি উপস্থিত ছিলেন ।
এজিএম চলাকালে সমবায়ীরা প্রতিষ্ঠানটির অনির্বাচিত অ্যাডহক কমিটির দুর্নীতি এবং নির্বাচনের দাবিতে বিক্ষোভ শুরু করেন। পাশাপাশি তারা দুধের দাম বাড়ানো এবং কোটা প্রথা বাতিলেরও দাবি জানান।
 
অন্যান্যদের মধ্যে স্থানীয় সরকার  প্রতিমন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবির নানক, সিরাজগঞ্জ-৬ আসনের  চয়ন ইসলাম ও সিরাজগঞ্জ-৪ এর সংসদ সদস্য শফিকুল ইসলাম শফি, স্থানীয় সরকার ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের সচিব রোকেয়া সুলতানাসহ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তরা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

বিক্ষেভকারীদের সঙ্গে একাত্বতা ঘোষণা করে সরকারদলীয় সাংসদ চয়ন ইসলাম বলেন, গত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে সমিতির নির্বাচনের জন্য তিন মাসের অ্যাডহক কমিটি গঠন করা হলেও আজ পর্যন্ত নির্বাচন হয়নি। স্থানভেদে কেজি প্রতি দুধের দাম ২৫ থেকে ২৬ টাকা ধরা হলেও  কৃষকদের ভূষি কিনতে হয় ৩৫ টাকায়। দুধের দাম কম ও কোঠাপ্রথার জন্য কৃষকরা ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। আর বর্তমান কমিটির দুর্নীতির কারণে দুধ সরবরাহকারী সমবায়ীরা আজ দিশেহারা।  

এ সময় তিনি নির্বাচনের তারিখ নির্ধারণ, দুধের দাম বৃদ্ধি, দুধ সরবরাহে কোঠাপ্রথা বাতিলের সুর্নিদিষ্ট ঘোষণা ছাড়া এজিএম হবে না বলে ঘোষণা দেন।

কৃষকদের দাবিকে যৌক্তিক বলে আখ্যায়িত করে প্রতিমন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, প্রস্তুতকৃত এজিএমে লাভ দেখানো হয়েছে ১৬ কোটি টাকা।   কৃষকদের মেরে  এ লাভের দরকার নেই। এসময় তিনি কৃষকদের সব দাবি মিটিয়ে রোজার পরে এজিএম ও এক মাসের মধ্যে নির্বাচন করার ঘোষণা দেন।


অভিযোগ সম্পর্কে প্রতিষ্ঠানটির মহাব্যবস্থাপক নাসিম আহমেদ বাংলানিউজটোয়েন্টিফো.কম.বিডিকে বলেন, ‘সরকার আমাকে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দিয়েছে।   নিয়মের বাইরে আমার কাজ করার সুযোগ নেই। ’

নির্বাচন দেওয়া- না দেওয়া বিষয়ের সঙ্গে নিজে সংশ্লিষ্ট নন দাবি করে তিনি বলেন,‘ বর্তমানে আইন মন্ত্রণালয়ে নির্বাচনের বিষয়টি ভেটিংএ আছে। ১৫ দিনের মধ্যে এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত পাওয়া যাবে। ,

বাংলাদেশ সময়: ১৫১৯ ঘণ্টা, আগস্ট ২৪, ২০১০

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa