ঢাকা, বুধবার, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২২ মে ২০২৪, ১৩ জিলকদ ১৪৪৫

অর্থনীতি-ব্যবসা

লকডাউনের ঘোষণায় ব্যাংকে লম্বা লাইন

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২২১ ঘণ্টা, এপ্রিল ৪, ২০২১
লকডাউনের ঘোষণায় ব্যাংকে লম্বা লাইন লকডাউনের ঘোষণায় ব্যাংকে লম্বা লাইন, ছবি: শাকিল আহমেদ

ঢাকা: শুক্র ও শনিবার (৩ এপ্রিল) টানা দু’দিনের সাপ্তাহিক ছুটির একদিন পর এক সপ্তাহের লকডাউনে যাচ্ছে সারাদেশ। এ খবর ছড়িয়ে পড়ায় ব্যাংকগুলোতে ভিড় বেড়েছে।

সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখায় তৈরি হয়েছে গ্রাহকের লম্বা লাইন।

রোববার (৪ এপ্রিল) রাজধানীর মতিঝিল, গুলশান, বনানী ও বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার ব্যাংকগুলোর শাখায় গিয়ে দেখা যায়, গ্রাহকদের উপচে পড়া ভিড়। ভেতরে সামাজিক দূরত্ব মেনে লাইনের কারণে ব্যাংকের বাইরেও লম্বা লাইনে অপেক্ষা করছেন গ্রাহকরা।

ব্যাংকে ঢোকার সময় গ্রাহকের শরীরের তাপমাত্রা পরিমাপের সঙ্গে স্যানিটাইজার দিয়ে হাত পরিষ্কার করাচ্ছেন নিরাপত্তা কর্মীরা।

বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার ইস্টার্ন ব্যাংকের শাখায় গিয়ে দেখা গেছে, দু’টি কাউন্টারে নগদ লেনদেনের পাশাপাশি আরও একটি কাউন্টারে চেক ক্লিয়ারিং করা হচ্ছে। ভেতরে সব গ্রাহক সামাজিক দূরত্ব মেনে লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করছেন। ফলে ভেতরে দু’টি লাইনে ১০-১২ জন গ্রাহক দাঁড়াতে পারছেন। বাইরেও অপেক্ষা করছেন অনেকেই।

ইস্টার্ন ব্যাংকের নিরাপত্তা কর্মীরা বলেন, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার কারণে ভেতরে সবাইকে একসঙ্গে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না। ভেতর থেকে একজন বের হলে বাইরে থেকে একজনকে ভেতরে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে। ভেতরে ঢোকার আগে শরীরের তাপমাত্রা পরিমাপের পাশাপাশি হাত স্যানিটাইজড করা হচ্ছে।

ব্যাংক এশিয়ার বসুন্ধরা শাখায় গিয়েও দেখা গেছে একই চিত্র। গ্রাহকদের স্বাস্থ্যবিধি মানার পাশাপাশি সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে অপেক্ষা করতে হচ্ছে।

ব্যাংক এশিয়ার গ্রাহক আলী নুর হোসেন বলেন, এটিএম বুথ থেকে টাকা তোলা গেলেও জমা দিতে ব্যাংকে আসতে হয়েছে। ৫ এপ্রিল থেকে লকডাউন শুরু হলে কীভাবে লেনদেন চলবে, সেটা নিয়েও একটু ভাবতে হচ্ছে। এ বিষয়ে ব্যাংক থেকে জানতে এসেছি।

রূপালী ব্যাংক স্থানীয় শাখার মহাব্যবস্থাপক খান মো. ইকবাল বলেন, সামাজিক দূরত্ব মেনে লেনদেন চলছে। এতে গ্রাহকের লম্বা লাইন দেখা যাচ্ছে। লকডাউনের সময় ব্যাংক পরিচালনা ও লেনদেনের বিষয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনা মেনে চলা হবে। আমরা কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনার অপেক্ষায় রয়েছি।

এদিকে, ৩ এপ্রিল দুপুরে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন জানান, দ্রুত বেড়ে যাওয়া করোনা সংক্রমণ রোধ করতে সরকার দুই/তিনদিনের মধ্যে এক সপ্তাহের জন্য লকডাউনের চিন্তা করছে।

তিনি জানান, এবারের লকডাউনে সাধারণ মানুষের চলাফেরা একেবারে সীমিত করতে যাচ্ছে সরকার। অর্থাৎ লকডাউন হবে কড়াকড়ি।

রোববার (৪ এপ্রিল) প্রজ্ঞাপন জারি করে বিস্তারিত জানানো হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১২১৯ ঘণ্টা, এপ্রিল ০৪, ২০২১
এসই/এসআই

 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।