ঢাকা, বুধবার, ১১ কার্তিক ১৪২৮, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

অর্থনীতি-ব্যবসা

পুঁজিবাজারে মূল্য সংশোধন, লেনদেন কমেছে ১৪৯২ কোটি

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫২৪ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২১
পুঁজিবাজারে মূল্য সংশোধন, লেনদেন কমেছে ১৪৯২ কোটি ...

ঢাকা: বিনিয়োগকারীদের আস্থা ফেরায় ইতিবাচক রয়েছে দেশের পুঁজিবাজার। বিদায়ী সপ্তাহে (১৯-২৩ সেপ্টেম্বর) দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ও অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচক সামান্য বেড়েছে।

তবে সপ্তাহটিতে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর কমায় উভয় বাজারে লেনদেন কমেছে। গত সপ্তাহে পুঁজিবাজারে এক হাজার ৪৯২ কোটি টাকার লেনদেন কমেছে। এরমধ্যে ডিএসইতে এক হাজার ৪১২ কোটি এবং সিএসই ৮০ কোটি টাকার লেনদেন কমেছে। লেনদেন কমার ঘটনাকে স্বাভাবিক মূল্য সংশোধন হিসেবেই দেখছেন বাজারসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা।

ডিএসই ও সিএসই সূত্রে এতথ্য জানা গেছে।

এদিকে সূচক সামন্য বাড়লেও লেনদেন কমাকে মূল্য সংশোধন হিসেবে বলছেন সাধারণ বিনিয়োগকারীরা। তাদের মতে গত কয়েক সপ্তাহ ধরে টানা উত্থানে রয়েছে দেশের পুঁজিবাজার। টানা উত্থানের পর গত দুই সপ্তাহে লেনদেন কমাটা মূল্য সংশোধনী বলে মনে করেন তারা।

এব্যাপারে বাংলাদেশ পুঁজিবাজার বিনিয়োগকারী ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক বাংলানিউজকে বলেন, টানা কয়েক সপ্তাহ ধরে সূচকের উত্থান রয়েছে পুঁজিবাজারে। শুধু তাই নয় হাজার কোটি টাকার লেনদেন আড়াই হাজার কোটি টাকায় ছাড়িয়েছে। সুতরাং গত দুই সপ্তাহে লেনদেন কমাটা বাজারে মূল্য সংশোধনী বলে তিনি মনে করেন।

তিনি আরো বলেন, দুই একটি কোম্পানি অতি মূল্যায়িত হয়েছিল। কিন্তু বিএসইসি সেদিকে নজর দিয়েছে। আগামীতে বাজার আরো ভালো হবে বলে তিনি মনে করেন।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা গেছে, বিদায়ী সপ্তাহে ডিএসই ৯ হাজার ৭০৯ কোটি ৪৯ লাখ ২৮ হাজার ৮১১ টাকার লেনদেন হয়েছে। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল ১১ হাজার ১২২ কোটি ৩৯ লাখ ৪৫ হাজার ৮০৬ টাকার। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইতে লেনদেন এক হাজার ৪১২ কোটি ৯০ লাখ ১৬ হাজার ৯৯৫ টাকা বা ১২ দশমিক ৭০ শতাংশ কমেছে।

সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ২২.২৯ পয়েন্ট বা ০.৩১ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে সাত হাজার ২৫০.৬০ পয়েন্টে। অপর সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ৩.৯৫ পয়েন্ট বা ০.২৫ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৫৮১.০৫ পয়েন্টে। তবে ডিএসই-৩০ সূচক ০.৯৯ পয়েন্ট ০.০৪ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে দুই হাজার ৬৭৩.৫৬ পয়েন্টে।

সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে লেনদেন শুরুর আগে ডিএসইতে বাজার মূলধন ছিল ৫ লাখ ৭৪ হাজার ৪৭৫ কোটি ৩৪ লাখ ৫১ হাজার টাকায়। আর সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস লেনদেন শেষে বাজার মূলধন দাঁড়ায় ৫ লাখ ৭৭ হাজার ৩৬ কোটি ৫৮ লাখ ২৮ হাজার টাকায়। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে দুই হাজার ৫৬১ কোটি ২৩ লাখ ৭৭ হাজার টাকা বা ০ দশমিক ৪৫ শতাংশ বাজার মূলধন বেড়েছে।

বিদায়ী সপ্তাহে ডিএসইতে মোট ৩৮২টি প্রতিষ্ঠান শেয়ার ও ইউনিট লেনদেনে অংশ নিয়েছে। প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে দর বেড়েছে ১৬২টির, কমেছে ১৯৮টির, অপরিবর্তিত রয়েছে ১৮টির শেয়ার ও ইউনিট দর এবং ৪টি প্রতিষ্ঠানের লেনদেন বন্ধ ছিল।

গত সপ্তাহের শুরুতে ডিএসইর পিই ছিল ২০.৬০ পয়েন্টে। যা সপ্তাহ শেষে ২১.৭১ পয়েন্টে অবস্থান করছে। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে পিই রেশিও ০.৫৩ পয়েন্ট বা ২.৬৫ শতাংশ বেড়েছে।

বিদায়ী সপ্তাহে লেনদেনের শীর্ষ ১০ প্রতিষ্ঠানের তালিকায় রয়েছে- লংকাবাংলা ফাইন্যান্স, লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশ, আলিফ মেনুফ্যাকচারিং, সাইফ পাওয়ার টেক, ম্যাকসন স্পিনিং, ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্স ও প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল।

অপর পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) বিদায়ী সপ্তাহে টাকার পরিমাণে লেনদেন হয়েছে ৩২৫ কোটি ৮০ লাখ ৪০৭ টাকার। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল ৪০৬ কোটি ৫০ লাখ ৬১ হাজার ২৪৩ টাকার। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে সিএসইতে লেনদেন ৮০ কোটি ৭০ লাখ ৬০ হাজার ৮৩৬ টাকা বা ২০ শতাংশ কমেছে।

সপ্তাহটিতে সিএসইর সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৪.৭১ পয়েন্ট বা ০.০২ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২১ হাজার ১৪৬.০৬ পয়েন্টে।  

সপ্তাহজুড়ে সিএসইতে ৩৪২টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেনে অংশ নিয়েছে। প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে ১৪৯টির দর বেড়েছে, ১৭৯টির কমেছে এবং ১৪টির দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৫২৪ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২১
এসএমএকে/কেএআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa