ঢাকা, সোমবার, ১৬ মাঘ ১৪২৯, ৩০ জানুয়ারি ২০২৩, ০৭ রজব ১৪৪৪

শিক্ষা

মতিঝিল সরকারি বালক-বালিকায় শতভাগ পাস

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১০৪২ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৯, ২০১৬
মতিঝিল সরকারি বালক-বালিকায় শতভাগ পাস উচ্ছ্বসিত মতিঝিল সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা

প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) ও জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষায় শতভাগ পাস করেছে মতিঝিল সরকারি বালক ও বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়।

ঢাকা: প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) ও জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষায় শতভাগ পাস করেছে মতিঝিল সরকারি বালক ও বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়। স্কুল দু’টিতে পিএসসিতে যথাক্রমে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৪১ এবং ২৪৯ জন।

জেএসসি পেয়েছে ৩৩৭ ও ৩০৭ জন শিক্ষার্থী। যা আগের বছরের তুলনায় বেশি। প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) ও জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষায় শতভাগ পাস করেছে মতিঝিল সরকারি বালক ও বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়।

বৃহস্পতিবার (২৯ ডিসেম্বর) প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে বলা হয়, বালিকা বিদ্যালয়ে ২০১৬ সালে প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ২৬৩ জন। এর মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ২৪৯ জন। বাকি ১৪ জন পেয়েছে এ গ্রেড। গত বছর ২৪৫ শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে, জিপিএ-৫ পায় ২২২ জন।  
অন্যদিকে সরকারি বালকে ১৬৭ জন ছাত্র পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। এর মধ্যে ১৪৯ জন জিপিএ-৫ পেয়েছে। বাকি ১৮ জন পেয়েছে এ গ্রেড।

জেএসসিতে সরকারি বালকের মোট ৩৭৪ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিয়ে ৩৩৭ জন জিপিএ-৫ পেয়েছে। অপরদিকে বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে অংশ নেওয়া ৩৫৪ জনের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩০৭ জন শিক্ষার্থী।

ভালো ফলাফল হওয়ায় দুই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকরা খুশি। ফলাফলের আনন্দে শিক্ষার্থীরা নাচ, গান, উল্লাসে মেতে উঠেছে। শিক্ষার্থীর পাশাপাশি অভিভাবক ও শিক্ষকরাও আনন্দে মিষ্টি বিতরণ করছে।

বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাজমুন নাহার শাহীন বাংলানিউজকে বলেন, শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও আমাদের সব শিক্ষকের সম্মিলিত চেষ্টায় ভালো ফলাফল হয়েছে। এজন্য আল্লাহর কাছে শুকরিয়া। আশা করছি আগামীতে আরো ভালো হবে।

জেএসসিতে জিপিএ-৫ অর্জনকারী শিক্ষার্থী আনাস আশরাফি ছোয়া বাংলানিউজকে বলেন, অনেক ভালো লাগছে, এটা  সারা বছর পরীক্ষার ফল। বড় হয়ে চিকিৎসক হওয়ার আশা তার। শিক্ষার্থীর মা, গৃহিণী রোজি খন্দকার বলেন, অনেক ভালো লাগছে, ভাষায় প্রকাশ করা যাবে না।

নুসরাত জামান নামের আরেক শিক্ষার্থী হাঁপাতে হাঁপাতে বলেন, অনেক কষ্টের পর জিপিএ-৫ পেয়েছি। আজ অনেক ভালো লাগছে। ভবিষ্যতে কি হতে চাও প্রশ্নের উত্তরে বিচারক হওয়ার আশা ব্যক্ত করে সে।  

সরকারি বালকের পিইসিতে জিপিএ-৫ পাওয়া খুদে শিক্ষার্থী জুলকার নাইম জায়ন বাংলানিউজকে বলেন, খুব ভালো লাগছে, বড় হয়ে নৌবাহিনীতে কাজ করার ইচ্ছা।  

বিদ্যালয়ের বালক শাখার সহকারী প্রধান শিক্ষক কবির চৌধুরী বলেন, জেএসসিতে আমাদের ফলাফল ভালো হয়েছে। আগামীতে আরো ভালো হবে। তিনি বলেন, আমাদের প্রতিষ্ঠানে নিয়মিত ক্লাস ও পরীক্ষার পাশাপাশি অভিভাবকদের সম্মিলিত প্রচেষ্ঠায় ভালো ফলাফল হয়েছে।
 
বাংলাদেশ সময়: ১৬৪০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৯, ২০১৬
এমএফআই/ জেডএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa