ঢাকা, শনিবার, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২১ মে ২০২২, ১৯ শাওয়াল ১৪৪৩

নির্বাচন

টাঙ্গাইল-৭ আসনের উপ-নির্বাচনের ভোটগ্রহণ চলছে

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৯৫৭ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৬, ২০২২
টাঙ্গাইল-৭ আসনের উপ-নির্বাচনের ভোটগ্রহণ চলছে ভোটারদের লাইন। ছবি: বাংলানিউজ

টাঙ্গাইল: টাঙ্গাইল-৭ (মির্জাপুর) আসনের উপ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। রোববার (১৬ জানুয়ারি) সকাল ৮টা থেকে শুরু হওয়া ভোটগ্রহণ বিরতিহীনভাবে চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত।

 

জেলায় প্রথমবারের মতো ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে এ আসনের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।
 
সকাল থেকে বিভিন্ন কেন্দ্রে ভোটারদের উপস্থিত লক্ষ্য করা গেছে। আবার কিছু কিছু কেন্দ্রে ভোটারের উপস্থিত তেমন দেখা যায়নি।

এদিকে নির্বাচন সুষ্ঠু এবং শান্তিপূর্ণ করতে নির্বাচনী এলাকায় একজন জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, ৮ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ৪ প্লাটুন বিজিবি, ৮১০ জন পুলিশ সদস্য ও ১০টি র‌্যাবের মোবাইল টিম, প্রায় সাড়ে ১৮শ আনসার সদস্যসহ পর্যাপ্ত সংখ্যক আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী দায়িত্ব পালন করছেন।

জেলা নির্বাচন অফিস সূত্র জানায়, এ উপ-নির্বাচনে ৫ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তারা হলেন- বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী খান আহমেদ শুভ (নৌকা), জাতীয় পার্টির জহিরুল হক জহির (লাঙল), বাংলাদেশ ওয়ার্কাস পার্টির গোলাম নওজব, চৌধুরী (হাতুড়ি), বাংলাদেশ কংগ্রেস পার্টির রুপা রায় চৌধুরী (ডাব) এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী নুরুল ইসলাম নুরু (মোটরগাড়ি, কার)।

জেলা নির্বাচন অফিস সূত্র আরও জানায়, এ আসনে মোট ভোটার ৩ লাখ ৪০ হাজার ৩৭৯ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৭০ হাজার ৫০১ জন, মহিলা ভোটার ১ লাখ ৬৯ হাজার ৮৭৮ জন। ৫ জন হিজরা ভোটার রয়েছেন। মোট ভোট কেন্দ্র রয়েছে ১২১টি। এর মধ্যে ঝুকিপূর্ণ কেন্দ্র ৫৭টি, সাধারণ কেন্দ্র ৬৪টি। আর নির্বাচনে ভোট কক্ষ রয়েছে ৭৫৬টি। নির্বাচনের দিন প্রতিটি কেন্দ্রে পুলিশ এবং আনসার মিলিয়ে ১৯ থেকে ১৮ জন করে সদস্য দায়িত্ব পালন করছেন। একইসঙ্গে র‌্যাব এবং ডিবির টিমও কাজ করছে। অপরদিকে প্রতিটি ইউনিয়নে পুলিশের স্ট্রাইকিং ফোর্স ও একজন করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্বে রয়েছে।

এ আসনের নির্বাচনের সহকারী রিটানিং অফিসার ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা এএইচএম কামরুল হাসান বলেন, শাস্তিপূর্ণভাবে ব্যাপক কড়া নিরাপত্তার মধ্যে দিয়ে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে৷ নির্বাচনে পর্যাপ্ত সংখ্যাক আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। আশা করছি নির্বাচন সুষ্ঠু এবং শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হবে।

জানা যায়, গত ১৬ নভেম্বর এ আসনের সংসদ সদস্য একাব্বর হোসেন মারা গেলে আসনটি শুন্য ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। নির্বাচনে ৭ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ০৯৫৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৬, ২০২২
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa