ঢাকা, রবিবার, ১০ কার্তিক ১৪২৭, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

বিনোদন

ঋত্বিক ঘটকের বাড়ি সংরক্ষণের উদ্যোগ নিলো জেলা প্রশাসন

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৪৯ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২০
ঋত্বিক ঘটকের বাড়ি সংরক্ষণের উদ্যোগ নিলো জেলা প্রশাসন কমিটির সদস্যরা ঋত্বিক ঘটকের বাড়িটি পরিদর্শন করছে

রাজশাহী: বাংলা চলচ্চিত্রের পুরোধা ব্যক্তিত্ব ঋত্বিক ঘটকের পৈতৃক বাড়ি স্থানীয়ভাবে সংরক্ষণের জন্য রাজশাহী জেলা প্রশাসন উদ্যোগ নিয়েছে। এ বিষয়ে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

 

কমিটির সদস্যরা বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) বিকেলে বাড়িটি পরিদর্শন করেছে। এই কমিটি বাড়িটির ভৌত অবকাঠামো পরিমাপ করে এবং সংরক্ষণ ব্যয় নির্ধারণ করে আগামী কয়েক দিনের মধ্যে একটি প্রতিবেদন দেবে।

এর আগে প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের মহাপরিচালকের নির্দেশে প্রদত্ত একটি প্রতিবেদনে বলা হয়- ঋত্বিক ঘটকের বাড়িটি প্রত্নতত্ত্ব বিভাগ কর্তৃপক্ষ সংরক্ষণের জন্য উপযুক্ত নয়। এটি রাজশাহী জেলা প্রশাসক বা রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষকে স্থানীয়ভাবে সংরক্ষণের জন্য অনুরোধ করা যেতে পারে।  

তারই পরিপ্রেক্ষিতে বাড়িটির টিকে থাকা অংশটুকু স্থানীয়ভাবে সংরক্ষণ করা যায় কী না, তা অনুসন্ধান করে দেখার জন্য জেলা প্রশাসন ৭ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করে দেয়।

কমিটির আহ্বায়ক অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. নজরুল ইসলাম। অন্য সদস্যরা হলেন- কবিকুঞ্জের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা রুহুল আমিন প্রামাণিক, জেলা কালচারাল অফিসার আসাদুজ্জামান সরকার, নগরীর বড়কুঠি ভূমি অফিসের সহকারী কমিশনার (ভূমি) আবুল হায়াত, রাজশাহী মহানগর পুলিশ কমিশনারের প্রতিনিধি সহকারী পুলিশ কমিশনার ফারজিনা নাসরিন, গণপূর্ত বিভাগের উপবিভাগীয় প্রকৌশলী এমদাদুল হক ও হোমিওপ্যাথিক কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আনিসুর রহমান।

কমিটির সদস্যরা বুধবার ঋত্বিক ঘটকের পৈতৃক বাড়ি পরিদর্শন করেন। তারা ঋত্বিক ঘটকের পরিবারের ব্যবহৃত বাড়ির অক্ষত অংশ এবং একটি কুয়া চিহ্নিত করেন।

এসময় সিদ্ধান্ত হয় কমিটির সদস্য সহকারী কমিশনার (ভূমি) আবুল হায়াত ভবনের দৈর্ঘ্য, প্রস্থ এবং সামনের জায়গা পরিমাপ করবেন। আর গণপূর্ত বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী এমদাদুল হক ভবনটি যেভাবে রয়েছে, সেভাবে সংরক্ষণের জন্য সম্ভাব্য ব্যয়ের পরিমাণ নির্ধারণ করবেন। কমিটির সভায় এ বিষয়ে আলোচনা শেষে জেলা প্রশাসকের কাছে একটি প্রতিবেদন জমা দেওয়া হবে।

এর আগে সাইকেল গ্যারেজ তৈরির জন্য ঋত্বিক ঘটকের পৈতৃক বাড়ি ভেঙে ফেলছে রাজশাহী হোমিওপ্যাথিক মেডিক্যাল কলেজ কর্তৃপক্ষ-এমন খবর ছড়িয়ে পড়লে প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। সম্মিলিত ব্যানারে রাজশাহীতে মানববন্ধনের ডাক দেয় ঋত্বিক ঘটক ফিল্ম সোসাইটি, রাজশাহী ফিল্ম সোসাইটি, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় চলচ্চিত্র সংসদ এবং বরেন্দ্র ফিল্ম সোসাইটি। প্রতিবাদলিপি পাঠান ১২ চলচ্চিত্র নির্মাতা। নাসির উদ্দীন ইউসুফ বাচ্চুসহ ১১ জন নির্মাতা ঋত্বিক ঘটকের পৈতৃক বাড়ি ভেঙে ফেলার প্রতিবাদে বিবৃতি দেন।

ঋত্বিক ঘটক জীবনের শুরুর সময়টা কাটিয়েছেন পৈতৃক বাড়ি রাজশাহীতে। এই বাড়িতে থাকার সময় তিনি রাজশাহী কলেজিয়েট স্কুল ও রাজশাহী কলেজে পড়েছেন। রাজশাহী কলেজ ও মিঞাপাড়ার সাধারণ গ্রন্থাগার মাঠে প্রখ্যাত সাহিত্যিক শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়কে নিয়ে নাট্যচর্চা করেছেন।

ওই সময় ‘অভিধারা’ নামে সাহিত্যের কাগজ সম্পাদনা করেছেন ঋত্বিক। তাকে ঘিরেই তখন রাজশাহীতে সাহিত্য ও নাট্য আন্দোলন বেগবান হয়। এই বাড়িতে থেকেছেন ঋত্বিক ঘটকের ভাইঝি বরেণ্য কথাসাহিত্যিক মহাশ্বেতা দেবী। এই বাড়ির ৩৪ শতাংশ জমি ১৯৮৯ সালে এরশাদ সরকার রাজশাহী হোমিওপ্যাথিক মেডিক্যাল কলেজকে ইজারা দেয়।

বাংলাদেশ সময়: ২১৪৮ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২০
এসএস/জেআইএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa