ঢাকা, সোমবার, ১১ মাঘ ১৪২৭, ২৫ জানুয়ারি ২০২১, ১১ জমাদিউস সানি ১৪৪২

পরিবেশ ও জীববৈচিত্র্য

দুর্গাসাগরে পরিযায়ী পাখিদের জন্য ৫০ হাজার শামুক

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫০৬ ঘণ্টা, নভেম্বর ১৮, ২০২০
দুর্গাসাগরে পরিযায়ী পাখিদের জন্য ৫০ হাজার শামুক

বরিশাল: দুর্গাসাগর দীঘিতে প্রায় একযুগ পর হাজার মাইল পাড়ি দিয়ে আসতে শুরু করেছে পরিযায়ী পাখি। প্রজননের জন্য ছুটে আসা এসব পাখির খাবারের চাহিদা পূরণ করতে উদ্যোগ নিয়েছে জেলা প্রশাসন।

‌জেলা প্রশাসন সূ‌ত্রে জানা গে‌ছে, পরিযায়ী পাখিদের খাবারের জন্য বিভিন্ন স্থান থেকে সংগ্রহ করে দীঘির জলে ও পাড় ঘেঁষে প্রায় ৫০ হাজারের বেশি শামুক ও ঝিনুক ছাড়া হয়েছে। এই শামুক সংগ্রহে সহযোগিতা করেছে উজিরপুর ও বাবুগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন। এর ফলে শীত মৌসুমে আগত পরিযায়ী পাখি এবং হাঁসের খাবারের চাহিদা পূরণ হবে। খাদ্যের অভাবে যেন পাখির প্রজননে কোনরূপ বাঁধা সৃষ্টি না হয় এবং খাদ্যের অভাবে তারা যেন এখান থেকে চলে না যায় তার জন্যই জেলা প্রশাসকের এই অভিনব উদ্যোগ।

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক এস এম অজিয়র রহমান জানান, দুর্গাসাগরে ভারসাম্যপূর্ণ ইকোসিস্টেম তৈরি করার জন্য সংযুক্ত করা হয়েছে শামুক ও ঝিনুক। এছাড়া দুর্গাসাগরের মধ্যবর্তী দ্বীপকে আরো দৃষ্টিনন্দন ও আকর্ষণীয় করে সাজানোর জন্য রোপণ করা হয়েছে দেশীয় নানা প্রজাতির বাঁশ এবং বিভিন্ন প্রজাতির ফুলের গাছ। এসব গাছের মধ্যে অন্যতম হলো দ্বীপের চারপাশের জলরাশিতে শাপলা এবং দ্বীপের মাঝে স্থল পদ্মসহ নানা রঙের পদ্ম, গাঁদা, কলাবতী, হাসনাহেনা ও বিভিন্ন শীতকালীন ফুল।

প্রলয়ংকারী ঘূর্ণিঝড় সিডরের পর দুর্গাসাগর দীঘিতে আর কোন পরিযায়ী পাখি আসেনি। প্রায় এক যুগ পরে এবার পরিযায়ী পাখির দেখা মিলেছে এখানে। বিষয়টি জানতে পেরে প্রতিদিন পাখি দেখতে ছুটে আসেছেন বিভিন্ন বয়সের প্রকৃতি ও পাখি প্রেমী মানুষ। দুর্গাসাগরে পাখির পাশাপাশি দেখা মিলছে দেশি প্রজাতির হাঁস, রাজহাঁস, দেশি-বিদেশি প্রজাতির পাখি, বানর, শতাধিক কবুতর ও হরিণের। এছাড়া দীঘির জলে অবমুক্ত করা হয়েছে বিভিন্ন প্রজাতির মাছ।

বাংলাদেশ সময়: ১৫০২ ঘণ্টা, নভেম্বর ১৮, ২০২০
এমএস/এইচএমএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa