ঢাকা, বুধবার, ২২ আষাঢ় ১৪২৯, ০৬ জুলাই ২০২২, ০৬ জিলহজ ১৪৪৩

ফুটবল

নির্ভার বসুন্ধরা কিংস, প্রত্যাশার চাপ বাগানে

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, স্পোর্টস | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২৪৮ ঘণ্টা, মে ২১, ২০২২
নির্ভার বসুন্ধরা কিংস, প্রত্যাশার চাপ বাগানে

এএফসি কাপের শুরুটা জয় দিয়েই করেছে বাংলাদেশের চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংস। মালদ্বীপের ক্লাব মাজিয়াকে ১-০ গোলে হারিয়ে এগিয়ে রয়েছেন অস্কার ব্রুজোনের শিষ্যরা।

তবে প্রথম ম্যাচেই গোকুলাম কেরেলার কাছে হেরে পিছিয়ে রয়েছে এটিকে মোহনবাগান। তাদের ঘরের মাঠেই আজ শনিবার (২১ মে) মোহনবাগানের বিপক্ষে মাঠে নামবে কিংস। ঘরের মাঠে দর্শকদের প্রত্যাশা পূরণের চাপ থাকছে বাগানের উপর। অন্যদিকে শিষ্যদের নির্ভার রাখতে বুদ্ধিদীপ্ত সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ব্রুজোন। নিজেদের আন্ডারডগ হিসেবে বলে চাপ বাড়িয়েছেন প্রতিপক্ষ শিবিরে। আজ (২১ মে) বিকেল পাঁচটায় কলকাতার সল্টলেকে অনুষ্ঠিত হবে এই দুই দলের লড়াই।

প্রথম ম্যাচে জয়ের ফলে এগিয়ে রয়েছে বসুন্ধরা। তবে এতে সন্তুষ্ট হওয়ার কোনও সুযোগ নেই বলে জানিয়ে দিয়েছেন দলের স্প্যানিশ কোচ অস্কার। তার মতে প্রতিটি ম্যাচই সমান গুরুত্বপূর্ণ। প্রতিপক্ষের উপর চাপ বজায় রাখার কৌশলটা ভালোই জানেন এই কোচ। তারই ধারাবাহিকতায় প্রতিপক্ষকে ফেভারিট বলছেন তিনি। অস্কার বলেন,‘আমার চোখে এটিকে (মোহনবাগান ) ফেভারিট। আমাদেরকে এক-আধটু ফেভারিট বলা যায়। ’ শুরু থেকেই নিজেদেরকে আন্ডারডগ বলে আসছেন অস্কার ব্রুজোন। এটার সুবিধা হলো নিজের খেলোয়াড়রা যেন চাপমুক্ত হয়ে খেলতে পারেন।

মোহনবাগান খেলোয়াড়রাও চাপে রয়েছেন। আর সেই সুযোগটা কাজে লাগাতে চান অস্কার। তিনি বলেন, ‘প্রথম ম্যাচ হেরে তারা চাপের মধ্যে আছে। নানান দুশ্চিন্তা কাজ করবে মাথায়। কারণ এটা তাদের বাঁচা-মরার লড়াই, মরিয়া হয়ে খেলার চেষ্টা করবে। তাই সুযোগটা আমাদের নিতে হবে এবং খুব সতর্কভাবেই নিতে হবে। ’ সেটা কীভাবে নিতে হবে, তার ছকও এঁকে তারিক-রবসনদের জানিয়ে দিয়েছেন।

মোহনবাগান শিবিরের সেই অস্বস্তির গল্প শুনিয়ে এই ম্যাচ কিভাবে বের করবেন সেই ছকও বলে দিলেন, ‘আমাদের মূল লড়াইটা হবে প্রথম ৩০ মিনিটে। প্রথম ম্যাচ হেরে ওরা চাপে আছে। শুরু থেকেই সমর্থকরা উদ্দীপ্ত করে যাবে তাদের এই ম্যাচটা বের করে নিতে। আমরা ওই সময়টা যদি তাদের ধরে রাখতে পারি, তবে সমর্থকরা যেমন হতাশ হবে, তেমনি মাঠেও মোহনবাগান আরো বেশি চাপে পড়ে যাবে। সেখান থেকেই সুযোগটা আমাদের কাজে লাগাতে হবে। ’

ঘরের মাঠের দর্শকরা বাগানের শক্তির চাইতে দূর্বলতার কারণ হতে পারে বলে মনে করেন ব্রুজোন। প্রথম ম্যাচে মোহনবাগের ডিফেন্সের দুর্বলতা সকলেরই নজরে এসেছে। দলের কোচ হুয়ান ফেরান্দোও স্বীকার করেছেন এই কথা। তবে এই ম্যাচেও আগের ম্যাচের কৌশলেই খেলবেন বলে জানিয়েছেন বাগানের স্প্যানিশ কোচ।  তাতে কতটা লাভবান হবেন তা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যায়। ভারতীয় দলটির চাইতে শক্তিমত্তার বিচারে কোনও অংশেই পিছিয়ে রাখা যাবে না বসুন্ধরা কিংসকে। এবার সেই কথা প্রমাণের মিশনেই বেঙ্গল জায়ান্টরা।

মোহনবাগানের নানান দুর্বলতা থাকলেও যে কোনও মুহূর্তে ম্যাচে ফিরতে পারেন বলে জানিয়েছেন ব্রুজোন। তিনি বলেন, ‘ওরা এখনো ছন্দ পায়নি, ডিফেন্স নিয়ে ভুগছে, তার মানে এই নয় এই ম্যাচে তারা ঘুরে দাঁড়াতে পারবে না। আমাদের নিজেদের খেলাটা সাবধানে খেলতে হবে। ’

প্রথম ম্যাচে জয়ের পর আত্মবিশ্বাসী কিংস। অন্যদিকে নিজেদের হারিয়ে খুজছে মোহনবাগান। দক্ষিণ এশিয়ার ক্লাব ফুটবলে এই দুইয়ের লড়াই কে হাসবে শেষ হাসি তা সময়ই বলে দেবে।

বাংলাদেশ সময়: ১২৪৮ ঘণ্টা, ২১ মে ২০২২
এআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa