ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩ বৈশাখ ১৪৩১, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ০৬ শাওয়াল ১৪৪৫

স্বাস্থ্য

ভারত ফেরত ৩৩ বাংলাদেশি কোয়ারেন্টিনে

উপজেলা করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১১১ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৫, ২০২০
ভারত ফেরত ৩৩ বাংলাদেশি কোয়ারেন্টিনে

বেনাপোল (যশোর): একদিনে বেনাপোল ইমিগ্রেশন দিয়ে ভারত থেকে ফেরত আসা ৩৩ জন বাংলাদেশি পাসপোর্ট যাত্রীর করোনা টেস্টের সার্টিফিকেট না থাকায় তাদের কোয়ারেন্টিনে পাঠিয়েছে বেনাপোল ইমিগ্রেশন স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা।

শুক্রবার (২৫ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় বেনাপোল ইমিগ্রেশনের মেডিক্যাল অফিসার ডাক্তার সুমন সেন বিষয়টি জানান।

ইমিগ্রেশন সূত্রে জানা যায়, দেশে করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে এর আগে বাংলাদেশ থেকে ভারতে যাওয়ার সময় দেশ-বিদেশি সকলের করোনা নেগেটিভ সনদ লাগছিল। এখন দ্বিতীয় ধাপে করোনা সংক্রমণ রোধে ভারত থেকে ফেরার সময়ও ৭২ ঘণ্টার মধ্যে করানো নেগেটিভের সনদ লাগবে বলে পরারাষ্ট্র মন্ত্রণালয় নির্দেশ দেয়। এরই ধারাবাহিকতায় ১ ডিসেম্বর থেকে করোনা টেস্টের সার্টিফিকেট নিয়ে ভারত থেকে দেশে ফিরছেন বাংলাদেশি পাসপোর্ট যাত্রীরা। আর যেসব যাত্রী করোনা টেস্টের সার্টফিকেট না নিয়ে আসছে তাদের  যশোর  ২৫০ শয্যা হাসপাতালে কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হচ্ছে।

ভারত থেকে ফেরত আসা বাংলাদেশি পাসপোর্ট যাত্রী অসিম হালদার বলেন, আমার ক্যান্সারের সমস্যার কারণে চিকিৎসার জন্য প্রায় আড়াই ভারতে থেকেছি। আমার জানা ছিলো না যে এখন দেশে ফেরার সময় ও করোনা টেস্টের সার্টিফিকেট নিয়ে দেশে ফিরতে হবে। জানলে অবশ্য করোনা টেস্টের সার্টিফিকেট নিয়ে দেশে ফিরতাম।

বেনাপোল ইমিগ্রেশনের মেডিক্যাল অফিসার সুমন সেন বাংলানিউজকে জানান, ভারত থেকে ৩৪২ জন বাংলাদেশি পাসপোর্ট যাত্রী দেশে ফিরেছে। এদের মধ্যে ৩৩ জনের করোনা টেস্টের সার্টিফিকেট না থাকায় তাদের যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়েছে। এই ৩৩ জন পাসপোর্ট যাত্রী ক্যান্সারের ও হার্টের রোগী। তারা সবাই চিকিৎসার জন্য দুই থেকে আড়াই মাস ভারতে ছিলেন।

তিনি আরো জানান, যাদের কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়েছে তাদের বাড়ি দেশের বিভিন্ন জেলায়। তারা চাইলে তাদের নিজ নিজ জেলায় কোয়ারেন্টিনে সেন্টারে যেতে পারবেন।

বাংলাদেশ সময়: ২১০৬ ঘণ্টা, ডিসেম্বর২৫, ২০২০
এনটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।