ঢাকা, মঙ্গলবার, ১০ কার্তিক ১৪২৮, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

রাশিফল

জীবনে রঙের প্রভাব ও রত্নে প্রতিকার

জ্যোতিষী রুবাই | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০০০৫ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০১৪
জীবনে রঙের প্রভাব ও রত্নে প্রতিকার

স্বাস্থ্য ও মনের ওপর রঙের প্রভাব বৈজ্ঞানিক ভাবে প্রমাণিত। সুন্দর রঙের পরিবেশে মন থাকে আনন্দে পরিপূর্ণ।

একঘেঁয়ে ভাব কেটে যায়। দূর হয় নিরাশা। গোলাপের লাল, হলুদের পীত, গাছের পাতার সবুজ, ফুলের নানা রং- সবই স্বাস্থ্য, স্ফূর্তি ও কল্যাণের জন্য।
 
সূর্যের রশ্মিতে সব রঙের সংমিশ্রণ থাকে। সূর্যের রশ্মি থেকে রামধনুর সাতটি রং আমাদের পরিবেশ ও মনকে প্রভাবিত করে। সূর্যের আলোয় মিশে থাকা সমস্ত রঙে নানা গাছ-পালা, জীব যেভাবে বেঁচে থাকে,সেভাবে সবুজ, লাল ও নীল রং মানুষকে সুস্থ, সবল, যশস্বী ও গৌরবান্বিত করে। লাল রং সৌভাগ্যের চিহ্ন। আর সবুজ ব্যক্ত করে শুভেচ্ছা। আর এই রং নিয়ন্ত্রণ করতে ব্যবহার কথা হয় বিভিন্ন পাথর। যা সূর্যের বিভিন্ন রঙে বিভিন্নভাবে প্রভাবিত হয়ে মানুষের প্রতিটি মুহূর্তকে শুভ করে তোলে।
 
লাল রং
লালকে প্রাচীন জ্যোতিষ শাস্ত্রে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। লাল শৌর্য ও বিজয়ের প্রতীক। অন্য দিকে গৌরবের রংও লাল। প্রাচীন চিকিৎসা শাস্ত্র থেকে জানা যায়, সুস্বাস্থ্য ও শক্তি মানুষের শরীরের গোলাপি আভা থেকেই প্রকাশিত হয়। লাল রং শক্তি,উৎসাহ,স্ফূর্তি ও পরাক্রমের প্রতীক। আনন্দ প্রকাশের রংও লাল।
 
কোনো ব্যক্তির ক্ষেত্রে লাল রঙের অভাবে শারীরিক, দাম্পত্য ও সন্তানকে নিয়ে সমস্যা হতে পারে।
 
গেরুয়া রং
গেরুয়া হলো আধ্যাত্মিকতা প্রকাশের রং। এই রঙের অর্থ অন্ধকার থেকে আলোর দিকে মৃত্যু থেকে অমৃতের দিকে এবং অজ্ঞানতা থেকে জ্ঞানের দিকে অগ্রসর হওয়া। এই রং শুভ সংকল্পের সূচক।
 
এ রঙের অভাবে মানসিক শান্তি, স্বভাব,আয়ু প্রভৃতির সমস্যা ঘটে।

সবুজ রং
সবুজ রং সমগ্র প্রকৃতির মধ্যে ব্যাপ্ত। এই রং প্রেরণাদায়ক পরিবেশের প্রতীক। এটি গাছপালা, শস্য সুশোভিত খেত, পার্বত্য অঞ্চলের রং। সবুজ মনকে শান্তি দেয় ও হৃদয়কে করে শীতল। মানুষকে সুখ,শান্তি,স্ফূর্তি দেয় এই সবুজ রং।
 
সবুজ রঙের ভারসাম্যের অভাবে অনেক সময় অবসাদ,কাজে অমনোযোগিতা ও শারীরিক সমস্যার দেখা দেয়।
 
হলুদ রং
জ্ঞান, বিদ্যা ও বিবেকের প্রতীক হলুদ রং। এই রং সুখ, শান্তি, অধ্যয়ন, জ্ঞান, যোগ্যতা, একাগ্রতা ও মানসিক বৌদ্ধিক উন্নতিরও প্রতীক। হলুদ বা বাসন্তী রং মস্তিষ্ককে প্রফুল্ল ও উত্তেজিত করে। জ্ঞানের প্রতি আগ্রহ আনে। মানুষের মধ্যে নতুন নতুন সুস্থ চিন্তাধারা তৈরি করে। বসন্ত ঋতু মনের আনন্দদানকারী জ্ঞান বর্ধক ঋতু হিসেবে প্রাচীন শাস্ত্রে উল্লেখ রয়েছে।
 
এই রঙের অভাবে শিক্ষা, মস্তিষ্কের ব্যবহার, পরিকল্পনা সফলতার ক্ষেত্রে বাধা হয়ে ডাড়ায়। একজন অভিজ্ঞ জ্যোতিষ সঠিক রত্নের ব্যবহারে এই সমস্যার সমাধান করতে পারেন

নীল রং
এই রং শক্তি, পৌরুষ ও বীরত্ব মনোভাবের প্রতীক। যেমন নীল রং আকাশ ও পৃথিবীতে সর্বব্যাপ্ত, তেমনই উদ্যোগী পুরুষের রং নীল। এই রঙের পোশাকধারী ইন্দ্রিয়কে নিজের নিয়ন্ত্রণে রাখতে সমর্থ হয়। নীল বর্ণকে সমুদ্রের মতো গভীর বলে মনে করা হয়। নীলের অভাবে উদ্যোগে সফলতা আসে না।
 
সাদা রং
এই রঙের সৃষ্টি বিভিন্ন রঙের সংমিশ্রণে। সূর্যের সাদা রশ্মিকে ভেঙে দিলে তা থেকে সব রকমের রং বেরিয়ে আসে। সাদা রং পবিত্রতা, শুদ্ধতা, বিদ্যা ও শান্তির প্রতীক। এর দ্বারা মানসিক, বৌদ্ধিক ও নৈতিক স্বচ্ছতা বিকশিত হয়। জ্ঞান ও বিদ্যার রং সাদা।
 
রং, গ্রহ ও ব্যক্তিত্ব
 
সূর্যের রশ্মির রং মানুষ, পশু, পাখি ইত্যাদির মন ও হৃদয়ে প্রভাব সৃষ্টি করে। সব রং সবার ভালো লাগে না। মানুষের শরীর ও মনে রঙের প্রভাব সম্পর্কে কয়েকটি কথা এখানে বলা দরকার। মানুষ যেসব রং ভালোবাসে ও ব্যবহার করে তার থেকে কিছু প্রভাব সৃষ্টি হয়।
 
সূর্যের রশ্মি ও রামধনুর রঙিন ছটা চিরকালই সৌন্দর্যের এক অসাধারণ প্রতিফলন। এরকম রঙের খেলা যে কতটা দৃষ্টিনন্দন তা আমরাই সবাই জানি। যুগ যুগ ধরে রামধনুর সাতটি রং মানুষের কাছে এক বিরল অভিজ্ঞতা। প্রকৃতপক্ষে গ্রহজগতের সঙ্গে এই জগতের এক আশ্চর্য সেতুবন্ধন ঘটায় রামধনু। এই সেতুবন্ধনের মাধ্যমেই আমাদের জীবনে অনুশাসনের ক্ষমতা প্রবেশ করে। প্রকৃতপক্ষে সূর্যের কিরণ ও প্রকাশের গ্রহশক্তি কাজ করে।
 
রামধনুর সাতটি রং
 
বেগুনি
সর্বদা হাসিখুশি থাকার মনোভাব। সামাজিক হওয়ার প্রবণতা।
 
নীল
মাঝারি নীল-কঠোর পরিশ্রমী, নিজের কাজে বেশি উদ্যোগী। গাঢ় নীল- অপরের চোখে স্বার্থপর কিন্তু নিজেদের জীবনের উদ্দেশ্য খুঁজে পায়। আসমানি: পরিপূর্ণতার জন্য সংগ্রামী মনোভাবের পরিচায়ক।
 
সবুজ
প্রভাব বিস্তারকারী হওয়ার প্রবণতা ও অন্যদের সুপরিচিত হওয়ার গভীর ইচ্ছা।
 
হলুদ
অন্যদের চেয়ে শ্রেষ্ঠ হওয়ার প্রবণতা। প্রতিযোগিতায় অন্যদের শ্রেষ্ঠত্ব লাভের ইচ্ছা।
 
কমলা
সবাইকে নিয়ে চলার প্রচেষ্টা। ত্যাগের প্রতীক। জ্ঞানপিপাসু। গাম্ভীর্যপূর্ণ চালচলন।
 
লাল
স্বভাবগতভাবেই সাহসী, জীবন উপভোগ করার অনুভূতি। স্পষ্টবাদী।
 
রামধনুর এই সাতটি রঙের বাইরেও আরও বেশ কিছু রং আছে যেগুলি প্রকৃতপক্ষে এই সাতটি রঙেরই সমাহার।
 
বিভিন্ন মানুষের ব্যক্তিত্ব বিভিন্ন রকম। তবে রঙের ব্যবহারের উপর তার অনেকটাই সম্পর্ক রয়েছে। বিভিন্ন পাথরের ব্যবহারের মাধ্যমে রং নিয়ন্ত্রণ করে মানুষের বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করা যায়। একজন অভিজ্ঞ জ্যোতিষী এই কাজটি জাতকের রাশিচক্র ও হস্ত রেখার সাহায্যে তার প্রয়োজনীয় রত্নের ব্যবহার করে বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করেন।
 
বাংলাদেশ সময়: ০০০১ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa