ঢাকা, শনিবার, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ২৮ রবিউস সানি ১৪৪৩

বইমেলা

মেলায় রুদ্র আরিফের ‘সাক্ষাৎ ফিল্মমেকার ফেদেরিকো ফেল্লিনি’ 

শিল্প-সাহিত্য ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৩৬ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২১, ২০২০
মেলায় রুদ্র আরিফের ‘সাক্ষাৎ ফিল্মমেকার ফেদেরিকো ফেল্লিনি’ 

ঢাকা: অমর একুশে বইমেলা-২০২০-এ প্রকাশ পেয়েছে রুদ্র আরিফের চলচ্চিত্র বিষয়ক অনুবাদের বই  ‘সাক্ষাৎ ফিল্মমেকার ফেদেরিকো ফেল্লিনি’। ইতালিয়ান মাস্টার ফিল্মমেকার ফেদেরিকো ফেল্লিনির একগুচ্ছ সাক্ষাৎকারের অনুবাদ দিয়ে সাজানো এ বই। 

বইটি মেলায় এনেছে প্রকাশনা সংস্থা- ঐতিহ্য। প্রচ্ছদ করেছেন দেওয়ান আতিকুর রহমান।

১৯২ পৃষ্ঠার বইটির মেলায় মিলছে ২৬২ টাকায়। মেলায় ঐতিহ্যের ১৪ নম্বর প্যাভিলিয়নে পাওয়া যাচ্ছে ‘সাক্ষাৎ ফিল্মমেকার ফেদেরিকো ফেল্লিনি’।  

চলচ্চিত্র ও চলচ্চিত্র বিষয়ক বইপত্র নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করছেন রুদ্র আরিফ। ফেল্লিনির সাক্ষাৎকার সংকলনের এ বইটি প্রকাশের প্রেক্ষাপট জানতে চাইলে লেখক বলেন, নিজেকে ‘জন্মের মিথ্যুক’ দাবি করতেন ফেল্লিনি! রসবোধে টইটম্বুর ছিল তার ভাণ্ডার। সিনেমার ইতিহাসে তিনি এক অদ্ভুত জাদুকর। কিংবা বলা ভালো, দারুণ সার্কাস-ম্যান। কখনো ক্লাউন, কখনো রিংমাস্টার। রঙচঙা পোশাক, মেকি হাসিমুখ, ঝলমলে আলো, তবু চোখ বেঁধে দড়ির ওপর দিয়ে হাঁটা...। উদ্দেশ্য—সামনে বসে মজা দেখা দর্শকের করতালি। জীবন ও মৃত্যু নিয়ে এমন মশকরা করার আড়ালে ব্যক্তিমানুষটির চিনচিনে ঘাম হয়ে যে ধারা প্রবাহিত হতে থাকে, সেটি গিয়ে মেশে শাশ্বত জীবন-মহাসমুদ্রের নানা শাখায়। এর দেখা পেতে চাইলে, রিংয়ে চলা সার্কাস কিংবা বড় পর্দায় চলা সিনেমার এসব হাসি মুখ পরিবেশনার পরত পেরিয়ে, মেকআপ-রংঢং-মশকরা ছাড়িয়ে, ক্যামেরা-অ্যাকশন-কাটের বন্দিত্ব মাড়িয়ে চোখ রাখা চাই অনন্ত প্রবহমান সেই মহাসমুদ্র্রের দিকে।  

‘তাহলে সংবেদনশীল দর্শকমাত্রই টের পাবেন, ক্লাউনের ভেলকি আর তাকে হাসি জোগাচ্ছে না, জোগাচ্ছে কান্না; নায়কের নৈরাজ্যপনা তাকে পুলক দিচ্ছে না, দিচ্ছে বেদনাবোধ...। এমন জাদুমন্ত্র ফেল্লিনি সিনেমায় দেখাতে পেরেছিলেন বলেই নিজ সময়ের তো বটেই, ইতিহাসের সর্বকালের সেরা মাস্টার ফিল্মমেকারদের একজন হিসেবে তাকে এখনো করা হয় বিনম্র স্মরণ। ... এবার তার জন্মশতবর্ষ। নানা সময়ে দেওয়া একগুচ্ছ সাক্ষাৎকারের সূত্র ধরেই তার সিনেমা ও জীবন নিয়ে বোঝাপড়া করার প্রচেষ্টা হিসেবে এই বইয়ের হাজিরা। ’ 

এছাড়া এ বছরই প্রকাশ পেয়েছে রুদ্র আরিফের সাতটি বইয়ের ভারতীয় সংস্করণের (পুনঃমুদ্রণ) পাশাপাশি সদ্যসমাপ্ত কলকাতা বইমেলায় দুটি নতুন বই ('বার্গম্যান/বারিমন' ও 'ফেদেরিকো ফেল্লিনি') প্রকাশ করেছে পশ্চিমবঙ্গের 'প্রতিভাস'।

রুদ্র আরিফের গ্রন্থনা ও অনুবাদে আগে প্রকাশিত চলচ্চিত্রবিষয়ক বইয়ের মধ্যে আছে- 'ঐতিহ্য' প্রকাশিত 'ফিল্মমেকারের ভাষা' (চার খণ্ড : ইরান, লাতিন, আফ্রিকা ও কোরিয়া পর্ব), 'তারকোভস্কির ডায়েরি', 'কুরোসাওয়ার আত্মজীবনী' ও 'ডেভিড লিঞ্চের নোটবুক'; 'ভাষাচিত্র' প্রকাশিত 'কিয়ারোস্তামির সিনে-রাস্তা', 'ফ্রাঁসোয়া ত্রুফো : প্রেম ও দেহগ্রস্ত ফিল্মমেকার' ও 'সিনেঅলা' (৩ খণ্ড), 'আন্তোনিওনির সিনে-জগৎ'; 'মেঘ' প্রকাশিত 'স্মৃতির তারকোভস্কি' এবং 'অগ্রদূত' প্রকাশিত 'হিচকক-ত্রুফো কথোপকথন'।  

এছাড়া আছে এ লেখকের কবিতার বই: 'ওপেন এয়ার কনসার্টের কবিতা', 'মেনিকিনের লাল ইতিহাস' (ঐতিহ্য), 'র‍্যাম্পমডেলের বাথটাবে অন্ধ কচ্ছপ' (ভাষাচিত্র) ও 'হাড়ের গ্যারেজ' (চৈতন্য)।  আছে অনূদিত মিউজিক গ্রন্থ- 'আমার জন লেনন' (মূল : সিনথিয়া লেনন; প্রকাশক : ভাষাচিত্র)।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৩৬ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২১, ২০২০  
এইচজে

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa