ঢাকা, শনিবার, ৬ বৈশাখ ১৪৩১, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ১০ শাওয়াল ১৪৪৫

বাজেট

‘সবচেয়ে সমালোচিত বাজেট’

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮ ঘণ্টা, জুলাই ১৩, ২০১৭
‘সবচেয়ে সমালোচিত বাজেট’

সংসদ ভবন থেকে: খাদ্যে ভেজাল এবং বেকার যুবকদের কসর্মসংস্থান সৃষ্টিসহ বেশ কিছু বিষয়ে প্রধানমমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদ। তিনি বলেছেন, আপনাকেই করতে হবে। আপনি না করলে হবে না।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুলাই) রাতে জাতীয় সংসদে দশম সংসদের ১৬তম ও বাজেট অধিবেশনের সমাপনী বক্তব্যে এ কথা বলেন বিরোধী দলীয় নেতা।
রওশন এরশাদ বলেন, অর্থমন্ত্রী বলেছেন এবারের বাজেট সর্বকালের সর্ববৃহৎ বাজেট।

আমি বলব সবচেয়ে সমালোচিত বাজেট। এই বাজেট না দিলে এত আলোচনা সমালোচনা হত না। একটি ভাল বাজেট দিয়েছেন। প্রাণবন্ত আলোচনা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে জনগণের দাবি পূরণ করে দিয়েছেন। এটা সবচেয়ে ভাল দিক।

বিরোধী দলীয় নেতা বলেন, আমাদের দেশে জনসংখ্যা এত বাড়ছে যে, যদি কমানোর চেষ্টা না করি তাহলে ২০৫০ সালে জনসংখ্যা দাঁড়াবে ২০ কোটি ২০ লাখ। এমনিতেই জায়গা স্বল্পতা দেখা দিয়েছে, কৃষিজমি কমে যাচ্ছে। এতো মানুষ কোথায় থাকবে, কোথায় যাবে, এখনই পরিকল্পনা করতে হবে।
একটি সেমিনারের উদ্ধুতি দিয়ে রওশন বলেন, কতদিন আগেই খাদ্য পুষ্টি সম্পর্কে একটি সেমিনারে বলা হয়, ২ কোটি ৬০ লাখ লোক অপুষ্টিতে ভুগছে। আমাদের ভাত আছে। কিন্তু পুষ্টি নাই, আমিষের অভাব।   খাদ্যে ভেজাল বন্ধ করতে হবে। এরজন্য প্রধানমন্ত্রীকেই দায়িত্ব নিতে হবে। এই কাজটা আপনি (প্রধানমন্ত্রী) ছাড়া কেউ করতে পারবে না। র‌্যাবকে দায়িত্ব দিয়ে দেন। এই ভেজাল খাবার খেয়ে আমাদের তরুণ প্রজন্ম নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। তরুণ প্রজন্ম না থাকলে আপনি ভিশন ২০২১ বা ২০৪১ সাল বাস্তবায়ন করবেন কিভাবে?

সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা বাড়ানোর দাবি জানিয়ে রওশন বলেন, সেশন জটের কারণে আমাদের ছেলে-মেয়েরা সরকারি চাকরিতে প্রবেশ করতে পারছে না।

এসময় অন্যান্য দেশের উদাহরণ দিয়ে তিনি বলেন, অনেক দেশেই ৪৫ বছর পর্যন্ত সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা আছে। আমাদের এখানেও এটি করে দিন, আপনাকে (প্রধানমন্ত্রীকে) এই ছেলে-মেয়েরা স্মরণ করবে। এরা আমার সন্তান, আপনার সন্তান, এদের বাঁচান।

রাজধানী ঢাকাসহ সারা দেশের বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় সুষ্ঠ ব্যবস্থাপনা গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, আমাদের জন্য বড় ঝুঁকি ই-বর্জ্য। এই ই-বর্জ্য ডিসপজাল করার মত ব্যবস্থা আমাদের নেই। মেডিকেল বর্জ্য ডিসপজাল করার ক্ষমতা নেই। এগুলো নিয়ে ভাবতে হবে।

বিরোধী দলীয় নেতা সংসদ সদস্যদের জন্য প্লট বরাদ্দ দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেন, সংসদ সদস্যদের ঢাকায় মাথা গোঁজার ঠাই করে দিতে হবে। অন্তত ৫ কাঠা করে জায়গা দেন। জায়গা আছে। পূর্বাচলে অনেক জায়গা আছে। সেখান থেকেই দেন।

বাংলাদেশ সময়: ২১৩০ ঘণ্টা, জুলাই ১৩, ২০১৭
এসএম/জেডএম
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।