ঢাকা, বুধবার, ১১ বৈশাখ ১৪৩১, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১৪ শাওয়াল ১৪৪৫

কর্পোরেট কর্নার

টাইম ম্যাগাজিনে বার্জারের রূপালী চৌধুরী

নিউজ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৫ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৩, ২০২৩
টাইম ম্যাগাজিনে বার্জারের রূপালী চৌধুরী

ঢাকা: টাইম ম্যাগাজিনের জানুয়ারি সংখ্যায় স্থান করে নিয়েছেন দেশের শীর্ষস্থানীয় পেইন্টস সল্যুশন ব্র্যান্ড বার্জারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রূপালী হক চৌধুরী! 

দেশের প্রথম নারী হিসেবে একটি বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের দায়িত্ব পালন করা রূপালী চৌধুরী যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক এই খ্যাতনামা সাময়িকীর পাতায় বাংলাদেশের পেইন্টস ইন্ডাস্ট্রির প্রবৃদ্ধি এবং মার্কেট লিডার হিসেবে বার্জারের ভূমিকা প্রসঙ্গে তথ্যবহুল আলোচনা উপস্থাপন করেন।

বিগত বছরগুলোতে দেশের পেইন্ট ইন্ডাস্ট্রিকে সমৃদ্ধ করতে বাংলাদেশের বাজারে যুগান্তকারী উদ্ভাবন নিয়ে আসায় অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছে বার্জার।

আর ২০০৮ সাল থেকে প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে বার্জার ও একই সঙ্গে দেশের পেইন্টস ইন্ডাস্ট্রিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে চলেছেন রূপালী চৌধুরী।  

এবার একজন সফল বিজনেস লিডার হিসেবে টাইম ম্যাগাজিনের পাতায় নিজের মূল্যবান বক্তব্য তুলে ধরার সম্মান অর্জন করলেন তিনি।

বর্তমানে দেশের পেইন্টস ইন্ডাস্ট্রিতে এক অনন্য প্রবৃদ্ধির ধারা লক্ষ্য করা যাচ্ছে, যার অন্যতম চালিকাশক্তি হিসেবে রয়েছে বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ। উন্নত গুণগত মানসম্পন্ন এবং পরিবেশ-বান্ধব পণ্য উৎপাদন করে এই খাতের উন্নয়ন নিশ্চিত করে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। বিশেষায়িত নির্মাণ রাসায়নিক খাতের ব্রিটিশ প্রতিষ্ঠান বার্জার ফসরোক; কিংবা কয়েল কোটিংয়ের এক নম্বর সরবরাহকারী এবং বিশ্বব্যাপী ইন্ডাস্ট্রিয়াল পেইন্টসের শীর্ষস্থানীয় সরবরাহকারী সুইডিশ প্রতিষ্ঠান বার্জার বেকারের মতো আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানগুলোর সাথে প্রতিনিয়ত যৌথ উদ্যোগে কাজ ও বাজার বিনিয়োগ করে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি।  

তাছাড়া, এবিবি ফ্রান্সের সঙ্গে একজোটে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প নগর ইকোনোমিক জোনে তৃতীয় বার্জার পেইন্টস ফ্যাক্টরিতে অটোমেশনের ব্যবস্থাও করেছে প্রতিষ্ঠানটি।  

শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনে বার্জারের এই দৃঢ় প্রতিশ্রুতি আন্তর্জাতিক বিনিয়োগকারীদেরও দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে, যার দেশের এই খাতসহ সমগ্র অর্থনীতির ভবিষ্যতকে সম্ভাবনাময় করে তুলছে।

নিজের লেখায় দেশের বর্ধিত আবাসন ও পুরকৌশল সংক্রান্ত চাহিদার কথা তুলে ধরেন রূপালী চৌধুরী। যার কারণে দেশে উন্নতমানের পেইন্টস সল্যুশনের চাহিদা ক্রমশ বাড়ছে বলে উল্লেখ করেন তিনি। এই পরিস্থিতিতে বার্জার নিয়ে এসেছে বিস্তৃত পরিসরের ডায়নামিক সল্যুশন। পাশাপাশি, শীর্ষস্থানীয় প্রতিষ্ঠানগুলো প্রতিযোগিতার মাধ্যমে প্রিমিয়াম পণ্য ও প্রযুক্তি-নির্ভর সল্যুশন উন্নত করে ইন্ডাস্ট্রিতে বৈচিত্র নিয়ে আসার জন্য কাজ করে যাচ্ছে।

এ বিষয়ে বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রূপালী চৌধুরী বলেন, টাইমের মতো খ্যাতনামা একটি সাময়িকীতে আমার ভাবনা তুলে ধরতে পেরে আমি অত্যন্ত সম্মানিত বোধ করছি। দেশের পেইন্টস ইন্ডাস্ট্রির বর্তমান পরিস্থিতি এবং এই খাতকে সামনের দিনে আরও এগিয়ে নিতে বার্জারের বিভিন্ন পরিকল্পনা সম্পর্কে বিশ্বকে জানাতে পেরে আমি আনন্দিত। সততা, নিষ্ঠা ও পরিশ্রমকে পুঁজি করে নিজেকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যাবে বার্জার। আমি বিশ্বাস করি, আমার এই লেখা আমাদের দেশের বিবিধ খাত সমূহে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে বিদেশী বিনিয়োগকারীদের আস্থা অর্জনে সহায়তা করবে।

বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ যাত্রা শুরু করে ১৯৭০ সালে। প্রতিষ্ঠানটির প্রধান কার্যালয় ঢাকায়। সারাদেশব্যাপী বার্জারের ১৪টি সেলস ডিপো, ১৬টি এক্সপেরিয়েন্স জোন রয়েছে। রাজধানী ঢাকা এবং বন্দরনগরী চট্টগ্রামে প্রতিষ্ঠানটির দুটি কারখানা রয়েছে।  

বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশে প্রায় ১০০০ মানুষ কর্মরত আছেন এবং দেশব্যাপী প্রতিষ্ঠানটির ৩ হাজারেরও বেশি ডিলার রয়েছে। রং শিল্পে প্রতিষ্ঠানটির ২৫০ বছরেরও বেশি সমৃদ্ধ ঐতিহ্য রয়েছে। রং সংশ্লিষ্ট পণ্যের বৈচিত্রতা এবং গ্রাহকদের মানসম্মত সেবা প্রদানের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানটি দেশের শীর্ষ রং কোম্পানীগুলোর মধ্যে শীর্ষে। প্রতিষ্ঠানটি সর্বোচ্চ গুণগত মানের পণ্য উৎপাদন এবং গ্রাহক সেবা প্রদানে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৫১ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৩ , ২০২৩
এনএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
welcome-ad