ঢাকা, বুধবার, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৭ শাবান ১৪৪৫

কর্পোরেট কর্নার

টেকসই রূপান্তরের লক্ষ্যে বিনিয়োগকারী ও উদ্যোক্তাদের সম্মেলন

বিজনেস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮১০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২, ২০২৩
টেকসই রূপান্তরের লক্ষ্যে বিনিয়োগকারী ও উদ্যোক্তাদের সম্মেলন

ঢাকা: বাংলাদেশে অবস্থিত সুইজারল্যান্ডের দূতাবাস এবং স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের (এলজিআরডি) যৌথ উদ্যোগে ‘মেকিং মার্কেটস ওয়ার্ক ফর দ্য চরস (এমফোরসি)’ প্রজেক্ট, বেটারস্টোরিজ লিমিটেডের সহযোগিতায় বিনিয়োগকারী ও উদ্যোক্তাদের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার (২ ডিসেম্বর) ঢাকায় এ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন চরাঞ্চলের বিভিন্ন উদ্যোক্তা, আর্থিক প্রতিষ্ঠান, বিনিয়োগকারী, বেসরকারি সংস্থা, রিসার্চ ও থিংক-ট্যাংকস, নীতি নির্ধারক, উন্নয়ন সংস্থা এবং স্টেকহোল্ডাররা।

সম্মেলনের লক্ষ্য ছিল চরাঞ্চলের উদ্যোক্তাদের সম্ভাবনাগুলো তুলে ধরা ও সেখানকার অর্থনৈতিক বাজারে টেকসই রূপান্তরের জন্য বিকল্প ব্যবস্থা নিয়ে আলোচনা করা। এমফোরসি প্রজেক্ট আয়োজিত এ সম্মেলনে পারস্পরিক মত-বিনিময়, পূর্ণাঙ্গ অধিবেশন এবং চর অর্থনীতির বর্তমান অবস্থা ও ভবিষ্যৎ সম্ভাবনা নিয়ে আলোকপাত করা হয়।  

সম্মেলনে ক্রমবর্ধমান চর-অর্থনীতি তুলে ধরা হয় এবং এ প্রবৃদ্ধি অব্যাহত রাখতে চরাঞ্চলের উদ্যোক্তাদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকার ওপর জোর দেওয়া হয়। এছাড়াও চরের উদ্যোক্তাদের অন্যান্য ব্যবসাকে তুলে ধরার উদ্দেশে অনুষ্ঠানে পাঁচটি স্টলের আয়োজন করা হয়। পূর্ণাঙ্গ অধিবেশনে অর্থনৈতিক বাজারে মুখ্য ভূমিকা পালনকারীরা তাদের মতামত তুলে ধরেন এবং সেখানকার মূল দিকগুলো নিয়ে আলোচনা করেন।  

প্যানেল আলোচনার মধ্যস্থতা করেছেন বেটারস্টোরিজ-এর প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান গল্পকার মিনহাজ আনোয়ার।


চরাঞ্চলের উদ্যোক্তাদের সহায়তায় ক্ষুদ্রঋণ প্রতিষ্ঠান, বিকল্প বিনিয়োগ প্ল্যাটফর্ম ও ব্যাংকের অবদান তুলে ধরা হয় এবং ভবিষ্যতে সহায়তা বাড়ানোর বিষয়ে জোর দেওয়া হয়।

পাশাপাশি সরকারি-বেসরকারি সংস্থা, স্থানীয় বাজার প্রতিনিধি এবং গবেষক/পরামর্শ দাতাদের মধ্যকার সহযোগিতা বাড়ানোর গুরুত্ব সম্পর্কেও আলোচনা করা হয়।  

সম্মেলনে সুইসকন্টাক্ট বাংলাদেশ-এর কান্ট্রি ডিরেক্টর মুজিবুল (সেজান) হাসান, বাংলাদেশে অবস্থিত সুইজারল্যান্ড-এর সিনিয়র প্রোগ্রাম অফিসার সৈয়দা জিনিয়া রশিদ, পল্লী উন্নয়ন একাডেমির মহাপরিচালক মো. খুরশীদ ইকবাল রেজভী, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের সিনিয়র সচিব মোসাম্মৎ হামিদা বেগম এবং পিকেএসএফ-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. নমিতা হালদার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।  

পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের সিনিয়র সচিব মোসাম্মৎ হামিদা বেগম বলেন, আমি বেসরকারি খাত এবং বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানদের পরিচিত বাজারে কাজ করার লাভজনকতার পরিবর্তে উদীয়মান বাজারের লাভজনকতার দিকেও একটু মনোনিবেশ করার আহ্বান জানাই। চরাঞ্চলগুলো ঠিক তেমনই একটি উদীয়মান মার্কেট। এখানে বিনিয়োগ অবশ্যই জাতির জন্য নতুন দ্বার উন্মোচন করবে।  

পল্লী উন্নয়ন একাডেমির মহাপরিচালক খুরশীদ ইকবাল রেজভী বলেন, জলবায়ু সংক্রান্ত সমস্যা যেমন চরম খরা এবং বন্যার জন্য চর অঞ্চলগুলো অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ। বাজার সংযোগের অভাব এ সমস্যাগুলোকে আরও বাড়িয়ে তোলে। আমরা জলবায়ু-স্মার্ট প্রযুক্তি এবং উদ্ভাবনের মাধ্যমে এ সমস্যাগুলোর ওপর কাজ করছি যা এ সমস্যাগুলোর অনেকটা সমাধান করতে পেরেছে।  

পিকেএসএফ-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড নমিতা হালদার বলেন, চরগুলোতে এমফোরসি-এর অসাধারণ কাজ দেখে আমি আনন্দিত। আমি ব্যক্তিগতভাবে চরের মানুষের দৃঢ়তা ও কাজ করার অঙ্গীকার কাছ থেকে দেখেছি। তারা উৎপাদনশীল হতে চায়। তারা প্রতিটি সুযোগের পূর্ণ ব্যবহার করতে চায়। আমি বিশ্বাস করি যদি আরও বেশি ব্যাংক এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠান এগিয়ে আসে তবে তারা সর্বাত্মক প্রচেষ্টা দিয়ে এগিয়ে যাবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৮১০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০২, ২০২৩
আরআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।