ঢাকা, মঙ্গলবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৪ মে ২০২২, ২২ শাওয়াল ১৪৪৩

ক্রিকেট

টেস্টের পর ওয়ানডে সিরিজেও হারল ভারত

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৯০৯ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২২, ২০২২
টেস্টের পর ওয়ানডে সিরিজেও হারল ভারত

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ হেরে ব্যাকফুটে থাকা ভারত এবার ওয়ানডে সিরিজেও হারল। অন্যদিকে এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ পকেটে পুরলো প্রোটিয়ারা।

পার্লের বোল্যান্ড পার্কে শুক্রবার সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ৭ উইকেটের বড় জয় তুলে নিয়েছে স্বাগতিকরা। শুরুতে ব্যাট করে নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৬ উইকেটে ২৮৭ রান সংগ্রহ করে ভারত। জবাবে ৩ উইকেট হারিয়ে ১১ বল হাতে রেখেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় দক্ষিণ আফ্রিকা। ফলে ওয়ানডে সিরিজও হাতছাড়া হলো ভারতের।

লক্ষ্য হিসেবে ২৮৭ রান পার্লের মাটিতে বেশ বড় স্কোর। কিন্তু বোলারদের ব্যর্থতায় সাফল্য পায়নি ভারত। নির্বিষ বোলিং এবং প্রোটিয়া ব্যাটারদের বুদ্ধির কাছেই হার মেনেছে তারা। দুই স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিন ও যুজবেন্দ্র চাহাল তো জ্বলেই উঠতে পারলেন না। অথচ এই উইকেটে জেতার একমাত্র ফর্মুলা অর্থাৎ টসে জিতে ব্যাটিং বেছে নেওয়া এবং বড় সংগ্রহ গড়া; ভারতের অধিনায়ক লোকেশ রাহুল টস জিতেও তাই বলেছিলেন।  

ব্যাট হাতে অবশ্য ভারতের শুরুটা ভালোই ছিল। আগের দিন দ্রুত বিদায় নেওয়া রাহুল এদিন উইকেট কামড়ে পড়েছিলেন। দারুণ সঙ্গ দেন শিখর ধাওয়ান। দুজনের জুটিতে ৬৩ রান উঠার পর খেই হারিয়ে এইডেন মার্করামের বলে বিদায় নেন ধাওয়ান (২৯)। এরপর সাবেক অধিনায়ক বিরাট কোহলি কেশভ মহারাজের নিরীহদর্শন এক বলে ড্রাইভ করতে গিয়ে শর্ট কাভারে ক্যাচ তুলে দেন। ৫ বলের মোকাবিলা করে তিনি ফেরেন 'ডাক' মেরে। তবে ধাক্কা কাটিয়ে উঠতে ভূমিকা রাখলেন ঋষভ পন্থ।  

রাহুলের সঙ্গে মিলে দ্রুত রান তুলছিলেন পন্থ। ১১৫ রান যোগ হওয়ার পর জুটি ভাঙে মাগালার বলে ভ্যান ডান ডুসেনের হাতে রাহুল ক্যাচ তুলে দিলে। ৭৯ বলে ৪ চারে ৫৫ রান করেন রাহুল। অন্যদিকে পন্থ সেঞ্চুরির দিকে ছুটছিলেন। কিন্তু রাহুল ফেরার কিছুক্ষণের মধ্যেই তাবরেজ শামসির স্পিনে পরাস্ত হয়ে বিদায় নেন ৭১ বলে ৮৫ রানের ইনিংস খেলে। এরপর শ্রেয়াস আইয়ার ব্যাট থেকে আসে ১১ রান। ভেঙ্কটেস আইয়ার করেন ২২ রান। তবে শেষদিকে শার্দূল ঠাকুরের ৩৮ বলে অপরাজিত ৪০ রান এবং অশ্বিনের ২৪ বলে অপরাজিত ২৫ রানের ইনিংসে বড় সংগ্রহ পায় ভারত।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে দক্ষিণ আফ্রিকার দুই ওপেনার জানেমান মালান এবং কুইন্টন ডি কক মিলেই ১৩২ রান তুলে ফেলেন। ডি কক ৭৮ রান করে শার্দূলের বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়লে ভাঙে এই জুটি। কিন্তু তাতেও হাল ছাড়েনি প্রোটিয়ারা। মালান ও অধিনায়ক টেম্বা বাভুমা মিলে দক্ষিণ আফ্রিকাকে জয়ের পথে নিয়ে যান। তবে ক্রিজে জমে গিয়েও জাসপ্রীত বুমরাহর বলের বোল্ড হয়ে ফেরেন মালান। এর আগে ৯১ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলেন তিনি। তবে মার্করাম ও ভ্যান ডার ডুসেন মিলে বাকি কাজ অনায়াসেই সারেন। দুজনেই অপরাজিত থাকেন ৩৭ রান করে।

ম্যাচ সেরা নির্বাচিত হয়েছেন কুইন্টন ডি কক।  

৩ ম্যাচের সিরিজে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা।  

বাংলাদেশ সময়: ০৯০৯ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২২, ২০২২
এমএইচএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa