ঢাকা, রবিবার, ১৭ আশ্বিন ১৪২৯, ০২ অক্টোবর ২০২২, ০৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

ক্রিকেট

ফিফটির পর লিটনের বিদায়, আবারও ব্যর্থ বিজয়

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৫১ ঘণ্টা, জুলাই ৩১, ২০২২
ফিফটির পর লিটনের বিদায়, আবারও ব্যর্থ বিজয়

ব্যাট হাতে দারুণ সব স্ট্রোকের ফুলঝুরি ছুটিতে রানের গতি বাড়াচ্ছিলেন লিটন দাস। তুলে নিয়েছিলেন দুর্দান্ত এক ফিফটিও।

কিন্তু পরের ওভারেই জিম্বাবুইয়ান স্পিনার শন উইলিয়ামসের বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়লেন বাংলাদেশের এই ডানহাতি ওপেনার। এরপর একই ওভারে টানা দ্বিতীয়বারের মতো ব্যর্থতার খাতায় নাম লেখালেন এনামুল হক বিজয়।

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ১২ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে ৯০ রান তুলেছে বাংলাদেশ।

লক্ষ্য তাড়ায় নেমে শুরুটা ভালোই করেন বাংলাদেশের দুই ওপেনার লিটন দাস ও মুনিম শাহরিয়ার। তবে জুটিতে ৩৭ রান উঠলেও এর মধ্যে মুনিমের অবদান মাত্র ৭ রান। আগের ম্যাচে ৪ রান করে আউট হওয়া এই ওপেনার এবার জিম্বাবুইয়ান পেসার এনগারাভার বলে বোল্ড হয়ে ফিরেছেন।  

মুনিম বিদায় নিলেও লিটন ছিলেন আগ্রাসী। দারুণ সব চার-ছক্কা হাঁকিয়ে তিনি তুলে নেন দুর্দান্ত এক ফিফটিও। ৩০ বলে ফিফটি করার পরের ওভারেই অবশ্য বিদায় নেন তিনি। জিম্বাবুয়ের স্পিনার শন উইলিয়ামসের বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়ার আগে এই ডানহাতি ব্যাটারের ব্যাট থেকে আসে ৫৬ রান। ৩৩ বল স্থায়ী ইনিংসটি ৪টি চার ও ২টি ছক্কায় সাজানো।

লিটন বিদায় নেওয়ার ৩ বল পরেই সেই উইলিয়ামসের বলেই বিদায় ঘটে এনামুল হকের। আগের ম্যাচে ২৭ বলে ২৬ রান করা এই ব্যাটার আজ বিদায় নিয়েছেন ১৫ বলে ১৬ রান করে। এক ওভারেই ২ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় বাংলাদেশ।

এর আগে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে মোসাদ্দেক হোসেনের প্রথম পাঁচ উইকেট তুলে নেওয়ার কীর্তির পরও বাংলাদেশের সামনে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৩৬ রানের লক্ষ্য ছুড়ে দেয় জিম্বাবুয়ে।  

রোববার হারারেতে তিন ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয়টিতে টস জিতে ব্যাট করতে নামে স্বাগতিকরা।  

সিরিজে বাঁচিয়ে রাখার মিশনে নেমে শুরুটা স্বপ্নের মতো হয়েছিল বাংলাদেশের। প্রথম বলেই রেজিস চাকাভাকে নুরুল হাসান সোহানের ক্যাচ বানান মোসাদ্দেক। ওই ওভারের শেষ বলে আউট করেন আগের ম্যাচের হাফ সেঞ্চুরিয়ান ওয়েসলি মাদাভিরাকেও। ৫ বলে ৪ রান করে সাজঘরে ফেরত যান তিনি।   

এক ওভারে দুই উইকেট নেওয়ার পর মোসাদ্দেক সাফল্য পান নিজের দ্বিতীয় ওভারেও। এবার তার শিকার হন ক্রেইগ আরবিন। ১০ বলে ১ রান করে সাজঘরে ফেরত যান স্বাগতিক অধিনায়ক।  

নিজের তৃতীয় ওভারের চতুর্থ বলে মোসাদ্দেক ফেরান শেন উইলিয়ামসকে। ৭ বলে ৮ রান করা এই ব্যাটারের ক্যাচ নিজেই নেন তিনি। ইনিংসের সপ্তম ওভারে মিল্টন সাম্বাকে ফিরিয়ে ফাইফার পূর্ণ করেন মোসাদ্দেক। তার আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের প্রথম ও টি-টোয়েন্টিতে কোনো বাংলাদেশির চতুর্থ পাঁচ উইকেট এটি।  

এরপর অবশ্য ঘুরে দাঁড়ায় জিম্বাবুয়ে। ৩১ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বিপদে থাকা দলকে উদ্ধার করেন রায়ান বার্ল ও সিকান্দার রাজা। দুজন মিলে গড়েন ৮০ রানের জুটি। ৩১ বলে ৩২ রান করে আউট করা বার্লকে বোল্ড করে তাদের জুটি ভাঙেন হাসান মাহমুদ।

সিকান্দার রাজাও বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি। ৫৩ বলে ৬২ রান করে মোস্তাফিজুর রহমানের বলে মুনিম শাহরিয়ারের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে আউট হন তিনি। তাতে জিম্বাবুয়ের ইনিংসও খুব একটা লম্বা হয়নি। ৮ উইকেট হারিয়ে ১৩৫ রানে থামে তারা। বাংলাদেশের পক্ষে ৪ ওভার বল করে ২০ রান দিয়ে ৫ উইকেট নেন মোসাদ্দেক, এক উইকেট করে নিয়েছেন মোস্তাফিজ ও হাসান মাহমুদ।   

বাংলাদেশ সময়: ১৯৪৯ ঘণ্টা, জুলাই ৩১, ২০২২
এমএইচএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa