ঢাকা, মঙ্গলবার, ১০ বৈশাখ ১৪৩১, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১৩ শাওয়াল ১৪৪৫

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

বৈদ্যুতিক গোলযোগে চবির হলের একটি কক্ষে আগুন

ইউনিভার্সিটি করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৩৮ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২৪
বৈদ্যুতিক গোলযোগে চবির হলের একটি কক্ষে আগুন ...

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়: বৈদ্যুতিক গোলযোগ থেকে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) সোহরাওয়ার্দী হলে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে হলের ১৪৪ নম্বর কক্ষে এ ঘটনা ঘটে।

এ সময় কক্ষে থাকা বইপত্র, বিছানা ও অন্যান্য আসবাবপত্র পুড়ে প্রায় ১৭ হাজার টাকার ক্ষতি হয়।  

হলের শিক্ষার্থীরা জানান, রুমের মাল্টিপ্লাগে আগুন লেগে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়।

কিছুক্ষণ পরে পাশের রুমে থাকা কয়েকজন শিক্ষার্থী ও কর্মচারী এসে আগুন নেভাতে সক্ষম হন।

জানতে চাইলে ১৪৪ নম্বর কক্ষে থাকা বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থী রাব্বিউল হাসান শান্ত বলেন, যখন আগুন লাগে তখন আমি ডিপার্টমেন্টে ছিলাম। ডিপার্টমেন্টে যাওয়ার আগে চেয়ারের ওপর একটি মাল্টিপ্লাগ রেখে যাই। ওইখান থেকে শর্টসার্কিট হয়ে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। পরবর্তীতে পাশের রুমের কয়েকজন এসে আগুন নিভিয়ে ফেলেন। আমার বিছানা, ৫ হাজার টাকার বইপত্র ও ১২ হাজার টাকার গিটার পুড়ে যায়।  

পাশের কক্ষে থাকা তামজীদ ও নাজমুল হাসান জানান, ১৪৪ নম্বর রুমের পাশ দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় অগুন দেখতে পাই। পরে রুমের তালা ভেঙে আগুন নিভিয়ে ফেলি। বিছানা ও নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস পুড়ে যায়।  

অগ্নিকাণ্ডের বিষয়ে জানতে চাইলে সোহরাওয়ার্দী হলের প্রভোস্ট ড. শিপক কৃষ্ণ দেবনাথ বলেন, ওই রুমে থাকা শিক্ষার্থীদের অসচেতনতার কারণেই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। রুম থেকে যাওয়ার আগে মাল্টিপ্লাগের সুইস বন্ধ না করায় অতিরিক্ত গরম হয়ে আগুন লেগে যায়। খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক হলের কর্মচারীরা গিয়ে আগুন নিভিয়ে ফেলে এবং ফায়ার সার্ভিসকে কল দেয়।

হাটহাজারী থানা ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন অফিসার আব্দুল মান্নান বলেন, হল কর্তৃপক্ষ আগুনের খবর আমাদের জানায়। খবর পেয়ে আমরা স্পটে যাই। বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকেই আগুনের সূত্রপাত হয়েছিলো।

বাংলাদেশ সময়: ২১৩০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২৪
এমএ/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।