ঢাকা, শনিবার, ৮ মাঘ ১৪২৮, ২২ জানুয়ারি ২০২২, ১৮ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

জামিন পেলেন সাবেক মেয়র মহিউদ্দিন

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১০৫৪ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৮, ২০১৪
জামিন পেলেন সাবেক মেয়র মহিউদ্দিন ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

চট্টগ্রাম: দুর্নীতি দমন কমিশনের একটি মামলায় চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীকে আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত অর্ন্তবর্তীকালীন জামিন দিয়েছেন চট্টগ্রামের একটি আদালত।

মঙ্গলবার সকালে মহিউদ্দিন চৌধুরী চট্টগ্রাম বিভাগীয় বিশেষ জজ এস এম আতাউর রহমানের আদালতে আত্মসমর্পন করেন।

এসময় তার আইনজীবী অ্যাডভোকেট রনি কুমার দেন জামিনের আবেদন করেন। শুনানি শেষে আদালত মামলার পরবর্তী ধার্য তারিখ পর্যন্ত জামিন মঞ্জুর করেন।

শুনানিতে দুর্নীতি দমন কমিশনের আইনজীবীরা উপস্থিত থাকলেও তারা জামিনের বিরোধিতা করেননি।

জামিন নিতে মঙ্গলবার সকাল ১০টা ১০ মিনিটে আদালতে হাজির হন এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী। এসময় তার সঙ্গে নগর আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের কয়েক’শ নেতাকর্মী ছিলেন।

সাড়ে ১০টার দিকে মহিউদ্দিনের জামিন শুনানি শুরু হয়। শুনানিতে অংশ নিয়ে মহিউদ্দিনের আইনজীবী অ্যাডভোকেট রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী সাবেক মেয়র। উনি সবসময় আদলতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। কিন্তু এ মামলায় কমিউনিকেশন গ্যাপ হয়ে গেছে। উনাকে যথাযথভাবে ইনফর্ম করা হয়নি। উনি যদি ইনফর্মড থাকতেন অবশ্যই আদালতে এসে হাজিরা দিতেন।

রেজাউল করিম বলেন, উনি হার্টের রোগী। জামিন আবেদনের সঙ্গে আমরা মেডিকেল সনদ দাখিল করেছি। আমরা তাকে পূর্ণ জামিন দেয়ার জন্য আবেদন জানাচ্ছি।

এসময় চট্টগ্রাম মহানগর পিপি অ্যাডভোকেট কামাল উদ্দিন আহমেদ, জ্যেষ্ঠ্য আইনজীবী অ্যাডভোকেট ইব্রাহিম হোসেন চৌধুরী বাবুল, অ্যাডভোকেট ইফতেখার সাইমুল চৌধুরীসহ প্রায় অর্ধশত আইনজীবী জামিন আবেদনের প্রতি সমর্থন জানান।

এ পর্যায়ে আদালত দুদকের আইনজীবীর বক্তব্য জানতে চান। দুদকের বিশেষ পিপি অ্যাডভোকেট মাহমুদুল হক মাহমুদ শুনানিতে অংশ নিয়ে বলেন, ‘এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী সবার সম্মানিত ব্যক্তি। উনাকে সবাই শ্রদ্ধা করেন। উনি এ মামলায় আগেও জামিনে ছিলেন। ’

দুদকের আরেক পিপি অ্যাডভোকেট মেজবাহ উদ্দিন শুনানিতে অংশ নিয়ে বলেন, আসলে মামলার বিষয়ে উনাকে (মহিউদ্দিন) জানানোর জন্য যে স্টেপটা নেয়া দরকার ছিল সেটা যথাযথভাবে নেয়া হয়নি।

উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালত বলেন, যেহেতু ১৬ ফেব্রুয়ারি ধার্য তারিখ আছে, সেইদিন পর্যন্ত অর্ন্তবর্তীকালীন জামিন দেয়া হল।

চট্টগ্রাম মহানগর পিপি অ্যাডভোকেট কামাল উদ্দিন আহমেদ বাংলানিউজকে বলেন, আদালত বাদি ও বিবাদিপক্ষের বক্তব্য শুনে সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীকে ১৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত জামিন মঞ্জুর করেছেন। মামলার ধার্য তারিখে আবারও জামিনের আবেদন করতে হবে।

এর আগে সোমবার (২৭ জানুয়ারি) জ্ঞাত আয় বর্হিভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দায়ের হওয়া একটি মামলায় সাবেক মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর বিরুদ্ধে চট্টগ্রাম বিভাগীয় বিশেষ জজ এস এম আতাউর রহমান গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, বিগত তত্তাবধায়ক সরকারের আমলে ২০০৭ সালের ২ ডিসেম্বর অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশন এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর বিরুদ্ধে মামলাটি (বিশেষ মামলা নম্বর-৩২/২০০৮) দায়ের করেছিল।

মামলায় মহিউদ্দিনের বিরুদ্ধে ২৮ লক্ষ ২৯ হাজার ২৬৪ টাকা ১৫ পয়সা মূল্যের সম্পদের তথ্য গোপন এবং এক লক্ষ ২৩ হাজার ৪৯১ টাকার জ্ঞাত আয় বর্হিভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগ আনা হয়েছিল।

২০০৮ সালের নভেম্বরে দুদকের উপ-পরিচালক মোজাম্মেল হোসেন খান মহিউদ্দিনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ পত্র দেন।

২০০৯ সালের ৫ ফেব্রুয়ারি ওই মামলায় মহিউদ্দিনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়। এরপর ৯জনের সাক্ষ্যগ্রহণের পর হাইকোর্ট মামলাটির কার্যক্রম স্থগিত ঘোষণা করেন।

গত ২৭ নভেম্বর হাইকোর্ট স্থগিত আদেশ তুলে নিয়ে মামলার কার্যক্রম চালানোর জন্য নিম্ন আদালতকে দেয়া নির্দেশ চট্টগ্রামের সংশ্লিষ্ট আদালতে পৌঁছে।

এ আদেশ বিভাগীয় বিশেষ জজ আদালতে পৌঁছার পর সোমবার চারজনের সাক্ষ্যগ্রহণ হয়। সাক্ষ্যগ্রহণ চলাকালে এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী হাজির না থাকায় তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত।

সাবেক মেয়র মহিউদ্দিনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা


বাংলাদেশ সময়: ১০৪৩ঘণ্টা, জানুয়ারী ২৮, ২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa