ঢাকা, মঙ্গলবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৪ মে ২০২২, ২২ শাওয়াল ১৪৪৩

অর্থনীতি-ব্যবসা

নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতে ডেনমার্কের সহযোগিতা চায় বাংলাদেশ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮০০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৫, ২০২২
নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতে ডেনমার্কের সহযোগিতা চায় বাংলাদেশ

ঢাকা: বাংলাদেশের নিরাপদ ও পুষ্টিকর খাদ্য নিশ্চিতে ডেনমার্কের সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক। কৃষিখাতে বিনিয়োগ আনতে ডেনমার্ক সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে বলে জানান তিনি।

মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) দুপুরে সচিবালয়ে কৃষি মন্ত্রণালয়ে নিজ দপ্তরে ঢাকায় নিযুক্ত ডেনমার্কের রাষ্ট্রদূত উইননি এস্ট্রুপ পিটারসেন সৌজন্য সাক্ষাৎ শেষে তিনি এ কথা জানান।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, ডেনমার্ক বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মসূচিতে আমাদের সহযোগিতা করেছে। বিশেষ করে কৃষিতে তাদের সহযোগিতা অনেক বেশি। প্রাণিসম্পদ ও মৎস মন্ত্রণালয়ে আমাদের উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধি করে কৃষকের জীবনমান উন্নয়নের জন্য তারা অনেক সহযোগিতা করেছে। ইতোমধ্যে আমরা দানা জাতীয় খাদ্যে প্রায় স্বয়ংসম্পূর্ণ। এটাকে আমরা কীভাবে প্রসেস করতে পারি অ্যাগ্রো প্রসেসিং ভ্যালু চেইনে তারা কীভাবে সহযোগিতা করতে পারে।

মো. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, বাংলাদেশ সরকারের এখন অগ্রাধিকার হলো নিরাপদ ও পুষ্টিকর খাদ্য। সেখানে আমরা ডেনমার্কের সহযোগিতা চেয়েছি। ডেনমার্কের এগ্রো প্রসেসিংয়ে অনেক অভিজ্ঞতা আছে। তারা খুবই সফল এ ক্ষেত্রে। তাদের উদ্যোক্তাদের বিনিয়োগের জন্য বাংলাদেশে কীভাবে আনা যায়, তারা বলেছে, এই বিষয়ে সহযোগিতা করবে। বাংলাদেশে কৃষিখাতে বিনিয়োগ আনতে তারা সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে।

আমরা ইউরোপীয় দেশ থেকে উদ্যোক্তাদের বাংলাদেশে আনার চেষ্টা করছি উল্লেখ করে কৃষিমন্ত্রী বলেন, আমরা এখানে আনরারস ও আম উৎপাদন করি। এগুলো কীভাবে প্রসেস করে ভালো জেলি করা যায়; আমরা ভুট্টা করি, ভুট্টা থেকে কীভাবে কর্নফ্লেক্স করা যায়, কীভাবে আলু থেকে আরও উন্নতমানের চিপস করা যায়—এসব প্রসেসিংয়ে তারা তাদের উদ্যোক্তাদের বাংলাদেশে আনার জন্য উৎসাহিত করবে। তারা ইতোমধ্যে চেষ্টা করছে। যেমন ডানো এখানে বিক্রি হয়, ডানো কোম্পানির সঙ্গে তাদের আলাপ-আলোচনা চলছে। বাংলাদেশের দুধ দিয়ে কীভাবে পাউডার মিল্ক করা যায়। এ ধরনের ক্ষেত্রে তারা আমাদের সাহায্য করবে।

সরকার এখন বাণজ্যিক কৃষিকে গুরুত্ব দিচ্ছে জানিয়ে ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, আগে আমরা নিজেদের প্রয়োজন মিটাতে উৎপাদন করতাম, এখন চিন্তা করছি বাণিজ্যিক কৃষি, এ লক্ষ্যে তারা আমাদের সহযোগিতা করবে।

আমরা শক্তভাবে ধর্মীয় ও বিশ্বাসের স্বাধীনতায় বিশ্বাসী উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, আজকে ডেনমার্কের সঙ্গে কোনো রাজনৈতিক আলাপ হয়নি, আমি তাদের বলেছি—আমরা মানবাধিকার লঙ্ঘন করিনি। জঙ্গি ও ধর্মীয় উগ্রবাদী যারা তাদের দমন করার জন্য আমাদের অনেক পদক্ষেপ নিতে হয়েছে, সেটা আমাদের বিধিবিধান ও আইন অনুযায়ী নেওয়া হয়েছে। আমরা মানবাধিকার মেনে চলি। আওয়ামী লীগ কোনদিনই ধর্মীয় উগ্রবাদী ও ধর্মান্ধদের সঙ্গে আপস করেনি। এটা আওয়ামী লীগের মৌলিক নীতি।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৫৯ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৫, ২০২২
জিসিজি/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa