ঢাকা, শুক্রবার, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০৭ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

অর্থনীতি-ব্যবসা

এলডিসি থেকে উত্তরণে বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করতে চায় ইইউ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৫১ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২২
এলডিসি থেকে উত্তরণে বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করতে চায় ইইউ

ঢাকা: বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতির প্রশংসা করেছেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের  (ইইউ) প্রতিনিধি দলের প্রধান চার্লস হোয়াইটলি। বলেছেন বাংলাদেশকে স্থানীয় ও বিদেশি উভয় বিনিয়োগকারীদের জন্য সমান পরিবেশ (লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড) নিশ্চিতে কাজ করতে হবে।

স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উত্তরণের জন্য ইইউ বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করতে চায় বলেও জানিয়েছেন তিনি।

মঙ্গলবার (২৭ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস ফোরাম অব বাংলাদেশের (আইবিএফবি) ১৬তম বার্ষিক সাধারণ সভায় (এজিএম) তিনি এসব কথা বলেন।

সভায় অংশগ্রহণকারীরা বৈশ্বিক আকর্ষণের মাধ্যমে আরও বেশি কর্মসংস্থান সৃষ্টির জন্য ব্যবসায়িক পরিবেশের আরও উন্নতির ওপর জোর দেন।

বিনিয়োগকারীদের জন্য তারা নীতিনির্ধারকদের প্রয়োজনীয় পরিবর্তন আনতে এবং সফল আরএমজি (রেডিমেড গার্মেন্টস) মডেলের প্রতিলিপি বাস্তবায়নের আহ্বান জানান।

এজিএমের উদ্বোধনী অধিবেশনে  প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথি হিসেবে যথাক্রমে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত পিটার ডি হাস এবং বাংলাদেশে ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত ও প্রতিনিধিদলের প্রধান চার্লস হোয়াইটলি উপস্থিত ছিলেন।
মি. হাস বলেন, যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশকে তার ব্যবসায়িক পরিবেশ উন্নত করতে সাহায্য করতে চায়। যাতে এটি আরও বেশি আন্তর্জাতিক বিনিয়োগকারীদের আকৃষ্ট করতে পারে।

তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক বিনিয়োগকারীদের স্বাগত জানাতে বাংলাদেশকে প্রস্তুত থাকতে হবে। বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তোলার পাশাপাশি লজিস্টিকসে আরও বেশি মনোযোগ দিতে হবে।

সেই সঙ্গে ইউটিলিটিগুলির নিরবচ্ছিন্ন সরবরাহ নিশ্চিত করা, বিনিয়োগকারীদের জন্য উপযুক্ত হবে এমনভাবে আইনি কাঠামো তৈরির ওপরও জোর দেন তিনি।

অর্থনীতির টেকসই প্রবৃদ্ধির জন্য রপ্তানি বহুমুখীকরণের চাবিকাঠি; উল্লেখ করে পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউটের (পিআরআই) চেয়ারম্যান ড. জাইদি সাত্তার বলেন, বাংলাদেশের সফল আরএমজি মডেলকে অন্যান্য নন-আরএমজি সেক্টরে প্রতিলিপি করতে হবে। তিনি শুল্ক কাঠামো যৌক্তিক করারও পরামর্শ দেন।

স্বাগত বক্তব্যে আইবিএফবি সভাপতি হুমায়ুন রশীদ বলেন, আইবিএফবি একটি অলাভজনক, অরাজনৈতিক এবং অ-দলীয় প্ল্যাটফর্ম, যা সম্পদ ও জ্ঞানভিত্তিক ব্যক্তিসহ সারা দেশের ব্যবসায়ী নেতাদের সমন্বয়ে গঠিত।

উদ্বোধনী বক্তব্যে তিনি বলেন, উন্নয়নশীল অর্থনীতিতে বেসরকারি খাতকে অর্থনৈতিক উন্নয়নের ইঞ্জিন হিসেবে বিবেচনা করা হয়। প্রতিকূলতা সত্ত্বেও ৮ শতাংশের বেশি প্রবৃদ্ধি অর্জনের জন্য আইবিএফবি জ্বালানি ও যোগাযোগ খাতে বিনিয়োগের প্রশংসা করেন।

গত বছরের এফডিআই বৃদ্ধি দেশে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের আস্থা প্রমাণ করেছে বলে উল্লেখ করেন তিনি। বলেন, দেশে ব্যবসা-বান্ধব পরিবেশ তৈরির জন্য কঠোর পরিশ্রম করা হচ্ছে।
আইবিএফবির সহ-সভাপতি এম.এস. সিদ্দিকী ও প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরীও এজিএমে বক্তব্য রাখেন।

উদ্বোধনী অধিবেশনে মিস লুৎফুন্নিসা সৌদিয়া খান, ভাইস প্রেসিডেন্ট (অর্থ) এস.এম. আবু তৈয়ব, সভাপতি আইবিএফবি চট্টগ্রাম চ্যাপ্টার উপস্থিত ছিলেন।

দ্বিতীয় অধিবেশনে দেশের নেতৃস্থানীয় ব্যবসায়ী অ্যানার্জিপ্যাক পাওয়ার জেনারেশন লি. এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও)হুমায়ুন রশীদকে হিসেবে পুনরায় সভাপতি নির্বাচিত করা হয়।

এছাড়া আইনি অর্থনীতিবিদ এবং বাংলা কেমিক্যালের সিইও এম এস সিদ্দিকী সভাপতি এবং বাংলাফোনের ডিরেক্টর মিস লুৎফুন্নিসা সৌদিয়া খান যথাক্রমে সহ-সভাপতি (অর্থ) পদে পুনঃনির্বাচিত হয়েছেন।

বাংলাদেশ সময়: ২১৫১ ঘণ্টা, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২
এমকে/এমএমজেড

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa